হাথুরুসিংহে চাইলে ইমরুলের ক্যারিয়ার সমৃদ্ধ হত

featured photo1 Recovered 1
Vinkmag ad

দেশের ক্রিকেটে প্রক্সি ম্যান ট্যাগ লেগেছে বাঁহাতি ব্যাটসম্যান ইমরুল কায়েসের গায়ে। লাগবেই বা না কেন? এক যুগের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে দলে ছিলেন আসা যাওয়ার মধ্যেই, খেলা হয়নি ১০০ টি ওয়ানডে কিংবা ৫০ টি টেস্টও। কেউ ইনজুরিতে পড়েছে ইমরুলকে ডাক দাও, কেউ বিশ্রামে যাবে ইমরুলকে ডাকো এভাবেই যেন চলছে তার ক্রিকেট ক্যারিয়ার। তবে শেষদিকে নিজের ক্যারিয়ারটা আরও পিছিয়ে যাওয়ার জন্য সাবেক কোচ হাথুরুসিংহেকেই দায়ী করলেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান।

সময়ের সাথে সাথে নিজেও অভ্যস্ত হয়ে পড়েছেন এসবের সাথে। পরিসংখ্যান বলবে দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবালের অন্যতম যোগ্য সঙ্গী ইমরুল কায়েসই। দুজনে মিলে গড়েছেন অনেক রেকর্ড জুটিও। দলে আসা যাওয়ার এই বাস্তবতাকে মেনে নেওয়া ইমরুল এখনই দমে যাননি, স্বপ্ন দেখেন বাংলাদেশের জার্সি গায়ে আগামী বিশ্বকাপ খেলার।

২০০৮ সালে টাইগারদের হয়ে অভিষেক। প্রায় এক যুগের ক্যারিয়ারে খেলতে পেরেছেন ৩৯ টেস্ট, ৭৮ ওয়ানডে ও ১৪ টি টোয়েন্টি ম্যাচ। টি-টোয়েন্টিতে ইমরুল বিবর্ণ হলেও নিয়মিত সুযোগ পেলে টেস্ট, ওয়ানডেতে আরও কিছু দেওয়ার সম্ভাবনা ছিল ইমরুলের অনেকেই মনে করেন এমনটা। সবশেষ কোচ হাথুরুসিংহে এর অধীনে বেশি বঞ্চিত হয়েছেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান।

সম্প্রতি ‘র‍্যাবিটহোলবিডি’ ইউটিউব চ্যানেলে ‘ক্রিকআড্ডা ‘ লাইভ অনুষ্ঠানে এসে ৩৩ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার জানিয়েছেন আর কখনোই কোচ হাথুরুসিংহের অধীনে খেলতে চাননা। কারণ হিসেবে ইমরুল বলছেন,

‘হাথুরুসিংহে যদি চাইতো তাহলে আমার ক্যারিয়ারটা আরেকটু সমৃদ্ধ হত। আপনারা জানেন যে ওর সময়টাতেও আমি ভালো খেলেছি কিন্তু রেগুলার হতে পারিনি। আমাকে হয়তো সে বিশ্বাস করতনা না আস্থা রাখতে পারতনা আমার উপর।’

‘একই সাথে আমি বলবো হাথুরুসিংহে কোচ হিসেবে অসাধারণ একজন। কিন্তু ম্যান ম্যানেজমেন্ট বা খেলোয়াড়দের সাথে তার আচরণে উৎসাহ দেওয়ার ব্যাপারটা কম ছিল। একটা প্লেয়ার ভালো খেললে ওর পিছনে ও সবসময় থাকতো কিন্তু কেউ যদি খারাপ খেলে বা কারও যে খারাপ সময় যেতে পারে এটা সে বিশ্বাস করতে চাইতোনা। খারাপ খেললে সে তাদের পাশে থাকতোনা।’

গতবছর নভেম্বরে ভারত সফরে টেস্ট সিরিজে সুযোগ পেয়ে অন্যদের মত আরেক ব্যর্থ হয়েছেন ইমরুল কায়েসও। এরপর পাকিস্তান ও জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আবার দলের বাইরে। এমন অস্থিরতার মধ্য দিয়ে যাওয়া ক্রিকেট ক্যারিয়ার নিয়ে তার নিজের ভাবনাটাই বা কি? আর কতদিন ক্রিকেট চালিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনা বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যানের?

অনুষ্ঠান সঞ্চালকের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘তামিম, সাকিব, মুশফিক, আমি অনেকটা কাছাকাছি বয়সের। ওরা এখনো খেলছে আমিও খেলছি। ওরা যদি আগামী বিশ্বকাপ খেলতে পারে আমারও অবশ্য সুযোগ থাকবে। আমার পারফরম্যান্স, ফিটনেস যদি ভালো থাকে। আসলে সময়ই বলে দিবে কি হবে। ২০১৯ বিশ্বকাপের আগে পারফরম্যান্স বলে সবকিছু মিলিয়ে আমি অনেক আশাবাদী ছিলাম, দূর্ভাগ্যজনকভাবে হয়নি।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

৪২ লক্ষ টাকা দিয়ে ব্রেসলেট কিনে মাশরাফিকেই উপহার!

Read Next

সাকিব ছাড়া কেউ খোঁজ নেয়নি নাসিরের

Total
6
Share