লিটন শোনালেন বদলে যাওয়ার গল্প

তামিম ইকবাল লিটন দাস
Vinkmag ad

২০১৫ সালের জুনে ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডে অভিষেক হয় লিটন দাসের। শুরুর ১৫ ওয়ানডেতে লিটনের রান ছিল এরকম- ৮, ৩৬, ৩৪, ০, ১৭, ৫*, ০, ৭, ১৭, ২১, ১৪, ৬, ০, ৬ ও ৭। শেষ ১৫ ওয়ানডেতে লিটনের স্কোরগুলো- ৪১, ৮, ২৩, ১, ১, ১, ১, ৭৬, ৯৪*, ২০, ১৬, ২২, ৩২, ১২৬*, ৯ ও ১৭৬।

৩৬ ওয়ানডে খেলা লিটন দাসের পারফরম্যান্সের গ্রাফটা উর্ধ্বমুখী। টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটেও দলে নিজেকে অপরিহার্য প্রমাণ করা লিটন দাস নিজের মধ্যে বেশ কিছু পরিবর্তন এনেছেন, আর তাতেই পেয়েছেন সাফল্যের দেখা।

ফেসবুকে তামিম ইকবালের লাইভ শোতে মুমিনুল হক ও সৌম্য সরকারের সঙ্গে অতিথি হয়ে আসা লিটন দাস নিজের বদলে যাবার পেছনের কারণ জানিয়েছেন।

লিটন বলেন, ‘আমার ব্যাটিংয়ের পরিবর্তনগুলো যদি দেখেন তাহলে ভাইয়া (তামিম) বিশ্বকাপ থেকেই। আয়ারল্যান্ড সিরিজ থেকেই নিজের মধ্যে একটা সেটাপ আনার চেষ্টা করেছিলাম। আমি নেটে খুব অল্প সময় ব্যাট করতে পছন্দ করি, যেটা আমি সবসময়ই করেছি। খুব অল্প সময় অনুশীলন করে চলে যাই। আমি যেটা অনুধাবন করলাম আমার ক্ষেত্রে এই ব্যাপারটা সাকসেসফুল নাও হতে পারে। অন্য কিছু চিন্তা করা উচিৎ।’

বাংলাদেশ দলের ব্যাটিং পরামর্শক নেইল ম্যাকেঞ্জির পরামর্শ মেনে সাফল্যের দেখা পেয়েছেন বলে জানান লিটন, খেলাটাও সহজ হয়ে গেছে তার জন্য।

‘বাংলাদেশ থেকে আমি যখন আয়ারল্যান্ডে যাই তখনই ঠিক করে রেখেছিলাম এখান থেকে বিশ্বকাপ পর্যন্ত যত সময় উইকেটটা ব্যবহার করে নেওয়া যায়। আমি নিলের সঙ্গে (নেইল ম্যাকেঞ্জি) অনেক কাজ করেছি, প্রথমে ও শেষে ব্যাট করেছি। নিলের যে জিনিসটা আমার ব্যাটিংয়ে সাহায্য করেছে তা হল দেরিতে খেলা (প্লে লেট)। আমি কোনদিনও দেরিতে খেলার অনুশীলন টা করিনি। এখন আমি এটা প্রচুর অনুশীলন করি যে কত দেরিতে আমি খেলতে পারি।’

‘আমার কাছে মনে হয় আমি যখন দেরিতে খেলি আমার ভিশন অনেক ভালো হয়ে যায়। বল আমি দ্রুত দেখতে পারি যে কোথায় খেলতে পারবো, সহজ হয়ে যায় আমার জন্য।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

তামিমের বাজি: অনেক রেকর্ড নিজেদের করে নিবেন সৌম্য-লিটন

Read Next

সেদিনের এই দিনে: ওয়ানডেতে বাংলাদেশের প্রথম জয়

Total
5
Share