মুমিনুলকে তামিম: ‘ঝাড়ি কম মারিস, তোর সিনিয়র আমরা!’

তামিম ইকবাল মুমিনুল হক
Vinkmag ad

বলা হয়ে থাকে বাংলাদেশের মত দলের অধিনায়কত্ব মানে বিশাল চাপের বোঝা মাথায় নেওয়া। আর ফরম্যাটটি যদি টেস্ট হয় তাহলেতো কোন কথাই নেই। ২০ বছরের পথ চলায় এখনো ঠিকঠাক খাপ খাওয়ানো যায়নি ক্রিকেটের ঐতিহ্যবাহী সংস্করণটির সাথে, নিয়মিত হারই টাইগারদের সঙ্গী।

সাকিব আল হাসানের নিষেধাজ্ঞায় গত নভেম্বরে ভারত সফরের আগে হুট করেই টেস্ট অধিনায়কত্বের ভার ওঠে মুমিনুল হকের কাঁধে। ‘পকেট ডায়নামো’ খ্যাত মুমিনুল জানিয়েছেন কি কারণে চ্যালেঞ্জ জেনেও টাইগারদের টেস্ট অধিনায়কত্বের প্রস্তাবে সাড়া দিয়েছেন।

টাইগারদের ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবালের নিয়মিত লাইভ আডদায় গতকাল (১৬ মে) অতিথি হিসেবে ছিলেন মুমিনুল হক, লিটন কুমার দাস ও সৌম্য সরকার। ঐ লাইভ আড্ডাতেই বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়কত্ব করার মত চাপের কাজ কীভাবে সামলান মুমিনুল সে প্রসঙ্গে প্রশ্ন করেন তামিম।

তামিমের জিজ্ঞাসা, ‘হয়তো আমাদের টেস্ট ক্রিকেটের অবস্থান এতটা শক্ত না কিন্তু তুই যেভাবে নেতৃত্ব দিচ্ছিস, মাঝে মাঝে দুই একটা ঝাড়ি আমাদেরও দিয়ে দেস (হাসি)। আশা করি তুই অনেক দূর যাবি। আমি জানতে চাই খুব বেশি ম্যাচ হয়তো জিততে পারবিনা, দলের অবস্থা সবকিছু জেনেও চ্যালেঞ্জ নেওয়া বা কীভাবে নিজেকে ও দলকে অনুপ্রাণিত করিস তুই?’

জবাবে দেশের অন্যতম সেরা টেস্ট ক্রিকেটার মুমিনুল জানান তামিমরাই তার অনুপ্রেরণা, ‘আমার কাছে যখন প্রস্তাবটা আসে তখন মনে হল এটাই সেরা দল অধিনায়কত্ব নেওয়ার জন্য। আমার কাছে তখন ৪ টা সিনিয়র ক্রিকেটার আছে যারা ১০ বছরের বেশি সময় খেলে ফেলেছে। ৩-৪ টা জুনিয়র আছে যারা বর্তমানে দারুণ ছন্দে আছে, কিছু পেসার, স্পিনার আছে। তো আমি ভাবলাম আমি যদি চ্যালেঞ্জটা নিই তাহলে ভালো সুযোগ হবে। আমার কাছে মনে হয়েছে টেস্ট ক্রিকেটকে এগিয়ে নেওয়ার জন্যও বড় সুযোগ এটা।’

‘সত্যি বলতে আপনারা যে ৪-৫ জন আছেন সিনিয়র তারা অন্তত আরও ৫ বছর খেলবেন। এটা একটা বিষয় এছাড়া জুনিয়র যারা আছে লিটন, সৌম্য, মিঠুন ভাই এরকম কয়েকজন আছে। সেভাবেই আসলে এগোচ্ছি আরকি, কিছুটা চাপতো থাকেই। আপনিতো জানেন চাপ থাকলে ভালো খেলার একটা তাগিদ থাকে। সবমিলিয়ে উপভোগ করার চেষ্টা করি আর কিছুনা।’

লাজুক প্রকৃতির মুমিনুল হকের কাঁধে উঠেছে ক্রিকেটের সবচেয়ে অভিজাত ফরম্যাট টেস্টের অধিনায়কত্ব। অধিনায়ক হিসেবে মাঠের ক্রিকেটে আগ্রাসী মানসিকতা প্রয়োজন বেশ ভালোভাবেই। ফেব্রুয়ারিতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট জয়ের পর জানিয়েছেন নিজের মধ্যে সেটি ধারণ করছেন, প্রয়োজনে ঝাড়ি মারেন দলের সবাইকে। সংবাদ সম্মেলনে বলা সেদিনের বক্তব্য টেনেই গতকাল তামিমের খোঁচা, ‘তো উপভোগ কর ঠিক আছে। কিন্তু ঝাড়ি টাড়ি কম মারিস বয়সে তোর সিনিয়র আমরা (হাসি)।’

জবাবে মুমিনুল বলেন এমন তথ্য ভুল, ‘ঝাড়ির কথা আপনি যেটা বললেন এটা পুরোপুরি ভুল কথা।’

তামিমের পাল্টা জবাব, ‘আরে আমি তোর ইন্টারভিউ দেখেছি পত্রিকায় সে জন্য বলছি।’

পরে মুমিনুলও জানালেন মূল কাহিনী, ‘না আসলে হয়েছে কি কয়েকজন সাংবাদিক জানতে চাচ্ছিল মাঠে আগ্রাসী ভাব আসছে কিনা আমার। সেটা জানাতে গিয়ে বলেছি প্রয়োজনে যে সবাইকেই ঝাড়ি দিই।’

তামিমকে ঝাড়ি মারলেও সেটা তার ভালোর জন্যই মারেন উল্লেখ করে টাইগারদের টেস্ট কাপ্তান যোগ করেন, ‘ঝাড়ি একমাত্র আপনাকেই দিই, তাও নির্ভর করে… বাজে শট খেলে আসলেন তখন মারি। এছাড়া ঝাড়ি মারিনা। ভালোর জন্যই ঝাড়ি মারি (হাসি)।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

তামিমের ‘খুবই স্পেশাল’ অতিথি ভিরাট কোহলি

Read Next

গাভাস্কারের ভারত-পাকিস্তান যৌথ একাদশ

Total
25
Share