‘ওয়ার্ন শচীনের সামর্থ্যকে ঘৃণা করতেন’

শেন ওয়ার্ন শচীন টেন্ডুলকার ব্রেট লি
Vinkmag ad

বল হাতে তিনি যখন ছুটে আসতেন তখন নাভিশ্বাস উঠে যেত স্ট্রাইক প্রান্তে থাকা ব্যাটসম্যানের। তাঁর হাত থেকে বের হওয়া একটি বল যেন কামানের গোলার গতিতে আছড়ে পড়তো ব্যাটসমানদের উপর। সর্বকালের অন্যতম সেরা এই অস্ট্রেলিয়ান সাবেক গতি তারকা ব্রেট লি সম্প্রতি কথা বলেছেন ভারতের এক জনপ্রিয় টেলিভিশন চ্যানেল স্টার স্পোর্টসের সাথে। সেখানে উঠে আসে ভারতীয় লিটল মাস্টার শচীন টেন্ডুলকার ও শেন ওয়ার্নে দ্বৈরথ প্রসঙ্গ।

শচীন-ওয়ার্ন দ্বৈরথ শুরু হইয়েছিল নব্বই দশকের শুরুর দিকে যেটা একটানা চলেছিল বেশ কয়েক বছর। ১৯৯২ সালে সিডনিতে ওয়ার্নের যে ম্যাচে (টেস্ট) অভিষেক হয়েছিল শচীন সে ম্যাচে অপরাজিত ছিলেন ১৪৮ রানে। আর এখান থেকে থেকেই তাদের দ্বৈরথের শুরু।

অস্ট্রেলিয়া দলে একই সাথে অনেক বছর খেলেছেন লি ও ওয়ার্ন। দলের গেম প্লানের বড় এক অংশ জুড়ে ছিলেন তারা। ওয়ার্ন তাঁর ক্যারিয়ারের সব বাঘা বাঘা ব্যাটসম্যানদের কুপোকাত করতে পারলেও শচীনকে বুঝতে পারতেন না। লি’র ভাষায়, ‘ওয়ার্ন শচীনের সামর্থ্যকে ঘৃনা করতেন। কারণ শচীনকে আউট করতে সে প্রায় সবকিছুই করত, কিন্তু প্রায় প্রতিবারই তাঁকে হতাশ হতে হয়েছে।’

শচীন টেন্ডুলকার তাঁর ক্যারিয়ারে সেঞ্চুরির সেঞ্চুরি করেছেন। তাঁর রাজত্বে কাঁপুনি ধরানোর কোন বোলারই তখন ছিল না, বলা যায় তিনি কাউকে তাঁর উপরে জেকে বসার সুযোগ দেননি কখনো। অন্যদিকে শেন ওয়ার্নের স্পিন ভেলকিকে কুপোকাত হননি এমন কোন ব্যাটসম্যান ছিল না তখন।

কিন্তু শচীনের সামনে আসলেই খেই হারিয়ে ফেলতেন ওয়ার্ন। লি বলেন,’শচীন যেভাবে বোলারদের হাত বুঝতে পারতো আর সে তার চেয়ে নিখুঁতভাবে সেটা খেলতে পারতো। ওয়ার্ন বাতাসে ভাসিয়ে বা মাটিতে গড়িয়ে বল করুক ন কেন শচীনের কাছে তা পৌছাত একইভাব। আর তাঁর ফলাফর শচীনই নির্ধারণ করতো।’

ওয়ার্ন তাঁর টেস্ট ক্যারিয়ারে ১২ বার শচীন আউট করতে পারলেও ওয়ানডেতে পরিসংখ্যান আরো নগণ্য, ১৭ ম্যাচে মাত্র একবারই আউট করতে পেরেছেন তাঁকে। ১৯৯৮ সালে শারজাতে ওয়ার্নের সাথে পুরো অস্ট্রেলিয়ান বোলিং লাইনআপকে তুলোধুনা করে ব্যাক-টু-ব্যাক সেঞ্চুরি তুলেনিয়েছিলেন ভারতীয় এই লিটল মাস্টার।

ব্রেট লি আরো বলেন, ‘ওয়ার্ন বিশ্বের সকল ব্যাটসম্যানদের যখন বাঁশ দিবে্ন, তখন শচীন অন্যান্য ব্যাটসম্যানদের চেয়ে হাতটি আরও ভাল দেখবেন। তিনি ফিরে এসে বলবেন যে শচীনকে আউট করতে তিনি সব চেষ্টা করেছিলেন, কিন্তু তিনি পারেননি (বেশিরভাগ সময়)। আর এটাকে তিনি ঘৃনা করতেন।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

তাসকিন-নাসির শোনালেন রুবেলের দাঁত পড়ে যাবার কাহিনী!

Read Next

নিষিদ্ধ হয়ে তাসকিনের প্রশ্ন ছিল- ‘কি এমন করলাম!’

Total
5
Share