নিজে না খেয়ে তামিমের জন্য টাকা সঞ্চয় করতেন নাফিস ইকবাল

নাফিস ইকবাল তামিম ইকবাল
Vinkmag ad

জাতীয় দলের নতুন ওয়ানডে অধিনায়ক ও দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবাল খানের উঠে আসা একটা ক্রীড়া পরিবার থেকে। বাবা ছিলেন ফুটবলার, চাচা আকরাম খান দেশের ক্রিকেটের উত্থানের সময়কার তারকা, বড় ভাই নাফিস ইকবালও খেলেছেন জাতীয় দলের জার্সিতে। নাফিসের ক্যারিয়ারটা যেখানে শেষ হয়েছে সেখান থেকেই শুরু হয়েছে তামিমের লাল-সবুজ জার্সির প্রতিনিধিত্ব করা।

ছোট বেলায় বাবাকে হারান তামিম ইকবাল। বাবার মৃত্যুর পর ছোট ভাইয়ের ছায়া হয়ে সবসময় পাশে থেকেছেন নাফিস ইকবাল। ছোট ভাইকে ভালো একটি ব্যাট কিনে দেওয়া থেকে শুরু করে সবকিছুতে সেরাটা উপহার দিতে অনেক ত্যাগ স্বীকার করতে হয়েছে বয়সভিত্তিক থেকেই বেশ সম্ভাবনা জাগিয়ে জাতীয় দলে খেলা নাফিস ইকবালকে। মাত্র ১১ টেস্ট ও ১৬ ওয়ানডে খেলেই জাতীয় দল থেকে আড়ালে চলে যান ৩৪ বছর বয়সী এই ওপেনার।

ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই নাফিসের সাথে বন্ধুত্ব মাশরাফির। নাফিসদের সাথে শুরু করা দেশের সফলতম এই অধিনায়ক এক যুগের বেশি সময় খেলেছেন তামিমের সাথেও। ফলে তামিমের জীবনে নাফিসের অবদান খুব কাছ থেকে দেখেছেন। আর সে গল্পই গতকাল (৪ মে) ফেসবুক লাইভে তামিমের পাশপাশি ভক্ত সমর্থকদেরও শোনালেন মাশরাফি।

তামিমকে উদ্দেশ্য করে লাইভে মাশরাফি বলেন, ‘আমি একটা জিনিস বলি তোর এই পর্যন্ত আসার পেছনে তোর বড় ভাইয়ের (নাফিস ইকবাল) অবদান সবচেয়ে বেশি। তোর ভাই তোদের জন্য যে ত্যাগগুলো করেছে তা অবিশ্বাস্য। তোর বাবা অসাধারণ একজন মানুষ ছিল, মারা গেলেন। তোর মা তোর বোনকে নিয়ে সংসার সামলেছেন। তোর চাচারা ছিল কিন্তু যে যাই বলুক আমি বলবো তোর বড় ভাইয়ের অবদান অনেক বেশি।’

ফাঁকে তামিম বলেন, ‘হ্যা ভাইয়ার অবদান বলে শেষ করা যাবেনা। আপনিতো আমাকে আগেও বলেছেন, ভাইয়া যে না খেয়ে টাকা সেভ করতো।’

আর এমন প্রসঙ্গ আসতেই মাশরাফির কণ্ঠে আবেগের ছাপ, ‘তোর ভাই যা করছে তুই জানিস না, আমরা জানি। আমরা তার সাথে চলছি। ওয়ান ফ্রেঞ্চ বার্গার খাইতো রে ভাই, ওয়ান ফ্রেঞ্চ বার্গার। আমি ওরে একদিন বলছিলাম যে তুই যদি শরীরেই না দিস, তুই বাঁচবি কিভাবে আর খেলবি কিভাবে। এগুলোতো মজার কাহিনী, আফতাব ছিল।’

পরে নিজেই বুঝতে পেরেছেন নাফিসের সঞ্চয় করার পেছনে অপেক্ষায় একজন তামিম ইকবাল খান, ‘পরে আমি বুঝি যে ও তো তোর জন্যই সব করতো। তুই যেন একটা ভালো ব্যাট দিয়ে খেলতে পারিস বা ভালো কিছু করতে পারিস। আমি ওকেও বলছি, তোকেও বলছি ওর কিন্তু বাংলাদেশের অন্যতম সেরা টেস্ট খেলোয়াড় হওয়ার সুযোগ ছিল। আমি এখনও বলি, হতে পারেনি। তবে ওর সব তুই পাইছিস। এই আরকি।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

মাশরাফির চোখে বাংলাদেশের সেরা ‘৩’ জয়

Read Next

তামিমকে ম্যাচ উইনারদের কাঁধে হাত রাখতে বললেন মাশরাফি

Total
346
Share