‘সাকিব তো ডাকতেছে- রিয়াদ ভাই আইসা পড়েন, আইসা পড়েন!’

সাকিব মাহমুদউল্লাহ নিদাহাস ট্রফি
Vinkmag ad

রবিবার (৩ মে) ইনস্টাগ্রাম লাইভে এসে আড্ডা দেন বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের অধিনায়ক তামিম ইকবাল ও টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। সেখানে আলাপের এক ফাকে উঠে আসে ২০১৮ সালের নিদাহাস ট্রফি প্রসঙ্গ। 

তামিম ইকবাল ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ দুজনই জানান জাতীয় দলের হয়ে খেলা শুরু করার পর নিদাহাস ট্রফি তাদের দুজনের কাছে অন্যতম সেরা টুর্নামেন্ট।

শ্রীলঙ্কার মাটিতে ত্রিদেশীয় নিদাহাস ট্রফি খেলতে যাবার আগে বাংলাদেশের মাটিতে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হেরেছিল বাংলাদেশ। বাংলাদেশের সাবেক কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে তখন শ্রীলঙ্কা দলের দায়িত্ব নিয়েছিলেন। ফাইনাল জেতার পরদিন তামিমকে উদ্দেশ্য করে এক হাসি দিয়েছিলেন হাথুস্রুসিংহে। যা তামিমের কাছে প্রচ্ছন্ন খোঁচা মনে হয়েছিল। তামিম কম যাননি, চ্যালেঞ্জ দিয়েছিলেন চন্ডিকাকে।

তামিম বলেন, ‘ফাইনালের পরদিন সকালে ব্রেকফাস্টে ওর (হাথুরুসিংহে) সাথে আমার দেখা হইল। ওকে তো আপনি চিনেন, একটা মুচকি হাসি দেয়। সে ঐ মুচকি হাসি দিয়ে আমার দিকে তাকায়ে আছে আরকি। মারিও (মারিও ভিল্লাভারায়ন, তৎকালীন সময়ে বাংলাদেশ দলের ট্রেনার) ছিল ঐ জায়গায়। তো আমি হাথুকে যেয়ে বলেছি- হাথু এত হাসিও না, আমরা তোমাদের দেশে এসে তোমাদেরকে হারাব। এই কথাটা আমি ওকে বলেছিলাম।’

নিদাহাস ট্রফিতে ফাইনালে শেষ বলে যেয়ে ভারতের বিপক্ষে হেরেছিল বাংলাদেশ। তবে টুর্নামেন্ট জুড়ে দুর্দান্ত খেলে বাংলাদেশ দল। শ্রীলঙ্কাকে রোমাঞ্চকর এক ম্যাচে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছিল টাইগাররা।

মাহমুদউল্লাহ জানান টুর্নামেন্ট শুরুর আগে দলের সবাই একত্র হয়ে টিম প্ল্যান সাজিয়েছিলেন। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ঘরের মাঠে হারার ক্ষত মনে রেখেই টিম ওয়ার্ক তৈরি হয়েছিল বলে মনে করেন মাহমুদউল্লাহ।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে যে ম্যাচ জিতে ফাইনালে ওঠে সে ম্যাচে টাইগারদের জয়ের নায়ক ছিলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ১৮ বলে ৩ চার ও ২ ছক্কায় অপরাজিত ৪৩ রান করে দলকে জিতিয়েই মাঠ ছেড়েছিলেন রিয়াদ।

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ
নিদাহাস ট্রফিতে লঙ্কানদের হারিয়ে দেবার নায়ক ছিলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ

১ বল হাতে রেখে জয় নিশ্চিত করা ম্যাচে বিতর্কও কম হয়নি। আম্পায়ারের বিতর্কিত সিদ্ধান্তকে কেন্দ্র করে অপ্রীতিকর অবস্থার সৃষ্টি হয় মাঠেই। অধিনায়ক সাকিব আল হাসান মাঠ থেকে উঠেও আসতে বলেন মাহমুদউল্লাহদের! যদিও শেষমেশ খেলা শেষ করেই ফেরেন রিয়াদ।

ঐ ঘটনার বর্ণনা দিতে যেয়ে রিয়াদ বলেন, ‘নিদাহাসের ঐ ম্যাচের দিন সাকিব তো এদিক থেকে ডাকতেছে, রিয়াদ ভাই আইসা পড়েন, আইসা পড়েন! আমি ভাবি কি বলতেছে ও! আমি তো বুঝতেছিনা যে আমি কি করব। আমি কিন্তু গ্লাভস রেখে কিছুদূর চলে আসছিলাম সামনে। কি হচ্ছে, কি করব, না করব। পরে তো সব সেটলড। আলহামদুলিল্লাহ, আমরা ঐ ম্যাচটা জিততে পেরেছি। ঐ রাতটা আমরা দারুণ কাটিয়েছি।’

ঐ ম্যাচে শেষ ওভার করেছিলেন ইসুরু উদানা। ওভারের ৩য় বলে ৪, চতুর্থ বলে ২ ও ৫ম বলে ৬ মেরে জয় নিশ্চিত করেন মাহমুদউল্লাহ। রিয়াদ জানান উদানা কেমন বল করবে তা অনুমান করতে পেরেছিলেন তিনি। পেনাল্টিমেট বলে দারুণ এক ফ্লিকে ছক্কা হাঁকিয়ে কলম্বোর দর্শকদের স্বপ্নভঙ্গ করে দিয়েছিলেন রিয়াদ।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

ইনস্টাগ্রাম নয়, তামিম-মাশরাফির লাইভ আড্ডা ফেসবুকে

Read Next

খাওয়ার পরামর্শ পেতে তাসকিনের ভরসা তামিম

Total
12
Share