প্রচলিত প্রথায় বদল চান তামিম, মুশফিক বললেন- ‘আমিই বেশি ভুক্তভোগী’

তামিম ইকবাল মুশফিকুর রহিম
Vinkmag ad

আইপিএলে (ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ) চেন্নাই সুপার কিংস মানেই মাহেন্দ্র সিং ধোনি, মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স মানে রোহিত শর্মা, রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর মানেই ভিরাট কোহলি। তবে একই রকম ফ্র্যাঞ্চাইজি ভিত্তিক টুর্নামেন্ট হলেও বিপিএলে (বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ) এখন অব্দি এরকম (দল ও ক্রিকেটার একই সূত্রে গাঁথা) দেখা যায়নি। যেকারণে এখনও বিপিএলের কোন দলের ফ্যানবেজ ওভাবে গড়ে ওঠেনি বলে মত তামিম ইকবাল ও মুশফিকুর রহিমের। 

ইনস্টাগ্রাম লাইভ সেশনে একে অপরের সঙ্গে আড্ডা দেন তামিম ইকবাল ও মুশফিকুর রহিম। সেখানে অন্য অনেক ইস্যুর মধ্যে তামিম তোলেন বিপিএল ইস্যুও। তার মতে আইপিএলের মতো বিপিএলেও দলের ধারাবাহিকতা থাকা প্রয়োজন।

মুশফিককে তামিম বলেন, ‘এখন তো সারাদিন খেলা দেখতে থাকি। আইপিএলের খেলা দেখা হচ্ছে। আমার কাছে মনে হয় বিপিএল একটা ফ্যান্টাস্টিক টুর্নামেন্ট। আমরা এখান থেকে অনেক কিছু শিখতে পারি। সবচেয়ে বড় যে জিনিসটা আমি মিস করি বিপিএলে- যেটা হল ভারতে আইপিএলে চেন্নাই মানে ধোনি, মুম্বাই মানে রোহিত শর্মা। তোর (মুশফিকুর রহিম) কাছে মনে হয় না যে তুই যদি একটা দলে পাঁচ থেকে ছয় বছর খেলতে পারতিস তাহলে তুই ঐ টিম টা ওন করতি? সাথে তোর যে ফ্যানগুলা আছে, ঐ টিমের একটা ফ্যানবেজ তৈরি হত। আমাদের এখানে নরমালি হয় কি আজকে এই টিমে, কালকে ঐ টিমে।’

অন্তত পঞ্চপান্ডবদের দলের ধারাবাহিকতা থাকা উচিৎ মনে করেন তামিম। তাহলে তারা বুঝেশুনে দল নির্বাচন করতে পারবেন, দলটাকে নিজের মনে করতে পারবেন। আর এতে করে দলের ফ্যানবেজও গড়ে উঠবে বলে মনে করেন বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের অধিনায়ক।

তামিম বলেন, ‘বারেবারে আমরা একটা জিনিস বলি যে আমাদের যদি অন্তত, আমরা ৫ জন আছি। আমাদেরকে যদি এই সুযোগটা দেওয়া হয় যাতে আমরা নিজেদের টিমটা চুজ করতে পারি। যদি এরকম হত যে আমি দলটা চুজ করতে পারব কিন্তু ঐ দলের হয়ে আমাকে অন্তত ৩ বছর খেলতে হবে। আমাকে যদি টিম বাদ দিয়ে দেয় সেটা ভিন্ন কথা। এরকম না যে আজ এই দলে খেললাম, কাল ঐ দল চুজ করলাম। টাকা একটু বেশি পেলে অন্য টিমে চলে গেলাম, এরকম না। একটা দলের সাথে যদি ৩ বছর- ৪ বছর খেলতে পারি তাহলে আমরা ফ্যানবেজটাও তৈরি করতে পারব, টিমও ওন করব। সাথে ঐ ফ্র্যাঞ্চাইজির জন্যও ভাল হবে। ক্রিকেটের জন্যও ভাল হবে ওভারঅল। তোর কি মনে হয় এই ব্যাপারে?’

তামিমের কথার সাথে পুরোপুরি একমত পোষণ করেন মুশফিকুর রহিম। প্রচলিত প্রথায় নিজেকেই সবচেয়ে বেশি ভুক্তভোগী দাবি করে মুশফিক বলেন,

‘না, এটা তো অবশ্যই। যেটা বললি আমাদের আলাদা এক ফ্যানবেজ তৈরি হয়। আর আমাদের তো এখনো হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে সিস্টেম টা তৈরি হয়নি। তুই যেমন বললি, আমিই তো সবচেয়ে বেশি ভুক্তভোগী (হাসি)। কারণ, অলমোস্ট প্রতিটা বছরেই আমাকে নতুন একটা দলের হয়ে খেলতে হয়। এটা অনেক বেশি চ্যালেঞ্জিং; সব সিস্টেমগুলোই- কোচ বল, প্লেয়াররা বল, ফ্র্যাঞ্চাইজি বল- সবার সাথে আমার নতুন করে শুরু করতে হয়। প্রত্যেকের এক বছরের জন্য কন্ট্রাক্ট হয়। এটা যেকোন প্লেয়ারের ক্ষেত্রে একটু ডিফিকাল্ট।’

‘যেটা বললি আমাদের যে ৭ জন বা ৮ জন। প্রত্যেকটা দলের আইকন হবে তারা যদি ৩-৪ বছর এক দলে খেলতে পারে। আমাদের বিপিএল এখন অনেক বড় টুর্নামেন্ট। অনেক নামী-দামী ক্রিকেটার খেলে। এখন যেটা হয় যে একটা টিম যেখানে আমরা খেলি। কিন্তু টিমটাকে ওন করা একটা ব্যাপার।’

তামিম জানান কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সে টানা দুই মৌসুম খেলে দলটাকে নিজের ভাবতে শুরু করেছিলেন তিনি। যেমনটা হয় আইপিএলে, রোহিত-ধোনি-কোহলিরা খেলে থাকেন নিজের আপন হয়ে যাওয়া দলের জন্য, চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

তামিমকে দেখে মুশফিকঃ ‘এই রাজত্বে আমিই রাজা’

Read Next

মিরাজকে লুকিয়ে রেখে সাফল্য পেয়েছিলেন মুশফিক

Total
9
Share