তামিমকে দেখে মুশফিকঃ ‘এই রাজত্বে আমিই রাজা’

মুশফিকুর রহিম তামিম ইকবাল এশিয়া কাপ
Vinkmag ad

২০১৮ এশিয়া কাপে দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের ম্যাচটি ছিল ঘুরে দাঁড়ানোর শক্ত মানসিকতা, আবেগ-ভালোবাসা ও রোমাঞ্চে ভরপুর একটি ম্যাচ। ম্যাচের স্কোরবোর্ড বলবে বাংলাদেশের ১৩৭ রানের জয়টি হয়তো হেসেখেলেই পাওয়া সাদামাটা অন্য ৮-১০ টি ম্যাচের মতই ছিল। কিন্তু না, ঐ ম্যাচ দেখা ভক্ত সমর্থকরা ভালোই মনে রাখবেন ভাঙা আঙুল নিয়ে তামিমের ব্যাট হাতে নেমে যাওয়া, এক হাতে ব্যাট করে মুশফিকের আশার পালে হাওয়া বাড়িয়ে দেওয়া। আর ব্যাট হাতে মুশফিকের খুনে মেজাজ।

শুরুতে ব্যাট করতে নেমে ১ রানেই নেই বাংলাদেশের দুই উইকেট। দ্বিতীয় ওভারের শেষ বলে লাকমলের করা বলে আঙুল ভেঙে হাসপাতালে তামিম ইকবাল। বাঁহাতি এই ওপেনারে হাতে সেলাই লেগেছে কয়েকটি, ততক্ষণে মুশফিক-মিঠুনে ঘুরে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ। ফিফটি করে মিঠুন ফিরলে আবারও ধ্বস বাংলাদেশ শিবিরে। অন্য প্রান্তে আসা যাওয়ার মিছিলে ঠায় দাঁড়িয়ে মুশফিক। তামিম ড্রেসিংরুমে ফিরেই ভাঙা আর সেলাই করা আঙুল নিয়েই ক্রিজে যাওয়ার প্রস্তাব পান মাশরাফির কাছ থেকে।

এরপরের গল্পতো সবারই জানা, এক হাতে ব্যাট করে তামিমের এক বল খেলা, মুশফিকের তান্ডব চালানো। ২২৯ রানেই ইনিংস শেষ হতে যাওয়া বাংলাদেশ পেল ২৬১ রানের পুঁজি। কিন্তু এমন একটা ঝুঁকিপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া কতটা কঠিন ছিল তামিমের জন্য, ক্রিজে থাকা মুশফিকও কি আশা করেছিলেন তামিম ফিরবেন তাকে সঙ্গ দিতে? গতকাল (২ মে) নিজেদের ইনস্টাগ্রাম লাইভে দুজনেই উন্মোচন করেছেন সে গল্প। পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হল নিচে-

শুরুতে মজাই ভেবেছিলেন তামিম, শেষে দায়িত্ব নিতে চাননি কোচওঃ

‘আমি যখন হসপিটালে যাচ্ছিলাম তখন আমি অনবরত মোবাইলে স্কোরটা দেখছিলাম। আমাদের দুই-তিনটা উইকেট দ্রুত পড়ে গেল এরপর তোর (মুশফিক) আর মিঠুন আলির একটা ভালো জুটি হল। এটা আমি চিকিৎসকের কাছে পৌঁছানোর আগের চিত্র। আমি আবার যখন ব্যাক করতেছি মাঠে তখন আবার একটা ধ্বস নামলো, দুই-তিনটা উইকেট পড়ে গেল।’

‘তো আমি যখন ড্রেসিং রুমে ঢুকি দেখি তুই ব্যাটিং করছিস আর কোনরকম চলছে আরকি। তো হঠাৎ কথা বলতে বলতে মাশরাফি ভাই বলল এই যা ব্যাটিং কর। তো আমি ফাজলামি হিসেবে নিয়েছি শুরুতে। আমি ভাবলাম এটা কি বলে, আমাদের ফিজিও যে ছিল উনিও বলছে পাগল নাকি। আলোচনা করতে করতে দেখি তুই আবার পিটানো শুরু করেছিস। তোরও ১০০ এর কাছাকাছি হয়ে গেছে, তো তখন আলোচনা করতে করতে দেখি ব্যাপারটা সিরিয়াস হয়ে যাচ্ছে।’

‘তখন আমরা একটা সিদ্ধান্তে আসলাম যে যদি মুশফিক স্ট্রাইকে থাকে তাহলে আমি যাবো। তুই স্ট্রাইকে থাকলে কারণ আমাকে ডাক্তার বলছে এটা নিয়ে দৌড়ানোও যাবেনা যেহেতু নতুন ভাঙা রিপ্লেস হওয়ার একটা ব্যাপার আছে। তো আমি বললাম ঠিক আছে ও যদি স্ট্রাইকে থাকে আমারতো যেতেই হবে, হয়তো একটু দৌড়াতে হবে আর তো বেশি কিছু না। কিন্তু দূর্ভাগ্যক্রমে ৫ নম্বর বলে মুস্তাফিজ আউট হয়ে গেল।’

‘আমাদের কিছু মুহূর্ত আসে যেখানে ৫ সেকন্ডে সিদ্ধান্ত নিতে হয়, সিদ্ধান্তটা কি সেটা হয়তো কেউ বুঝেওনা ঐ সময়টায়। তো আমার ক্ষেত্রেও তাই হয়েছে, আমি যখন ব্যাটটা নিয়ে হাঁটা শুরু করলাম তখন আমাদের কোচ স্টিভ রোডস এসে থামালো আমায়। পেছন থেকে ডেকে বলল কি করছো তুমি? আমি বললাম সমস্যা নেই, যাই। তখন সে আমাকে বলল- না, এরকমটা প্ল্যান ছিলনা।’

‘আমি পাল্টা বলেছি যে আমি ঠিকঠাক সামলে নিতে পারবো। সে বলেছে হ্যা, যেতে পারো তবে এর দায়ভার পুরোপুরি তোমাকে নিতে হবে। মানে তখন আর দায়ভার তারা কেউ নিতে চাচ্ছিলনা। আর ঐ মোশনের মধ্যেই আমি বলটি খেলেছি। আমার জন্য ব্যক্তিগতভাবে সবচেয়ে সহজ বলটাই ও করছে। ও যদি আমার জন্য ইয়র্কার করতো কিংবা উইকেটে বল করতো অনেক কঠিন হয়ে যেত।’

তামিমকে দেখে মুশফিক ভাবলেন এই রাজত্বে আমিই রাজাঃ

‘আমি কিন্তু এরকমটা আশা করিনি। আমার কাছে এরকম কোন বার্তাও আসেনি যে আমি থাকলে তুই (তামিম) আসবি। আমি চাচ্ছিলাম যেভাবেই হোক আমি যেন শেষ পর্যন্ত থাকি। কারণ শেষের দিকে দুই-তিন ওভারে যা রান করতে পারি তা বোনাস হবে। আমি মোটামুটি নিশ্চিত ছিলাম মিঠুনের সাথে কথাও হচ্ছিল যে আমরা যদি ওখানে ২৩০ এর বেশি করতে পারি তাহলে চ্যালেঞ্জিং স্কোর হবে। কিন্তু দূর্ভাগ্যক্রমে মুস্তাফিজ আউট হয়ে যাওয়ায় কিছুটা হতাশ হয়ে পড়ি কারণ তখন আমি কিছুটা তেড়েফুড়ে খেলছিলাম। নিজের কাছেও খারাপ লাগছিল ইশ যদি আরেকটু থাকতো ভালো হত।’

‘তুই যখন আসছিলি আমি তখন সাহস পাইলাম, তুই যেটা বললি অনেকটা পাগলপ্রায়, আমার মনে হচ্ছিল আমিই রাজা। আমি এখানে আছি আমিই এখানে রাজত্ব করবো এমন একটা সাহস, আত্ববিশ্বাস আমার নিজের ভেতরে আসছিল। এরপর দেখি থিসারা পেরেরা আসছে তো একদম যে জায়গায় চেয়েছি সে জায়গায় বলগুলো দিয়েছে। সত্যি বলতে ডেথ ওভারে আমি যে জায়গায় বল খুঁজি সেখানেই দিয়েছে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

মুশফিককে তামিম, ‘পেস বোলিং ক্যান, হাইট ভুলে গিয়েছিলি?’

Read Next

প্রচলিত প্রথায় বদল চান তামিম, মুশফিক বললেন- ‘আমিই বেশি ভুক্তভোগী’

Total
8
Share