এখনো নিজের প্রিয় উইকেটের ভিডিও দেখেন রুবেল

রুবেল হোসেন শচীন টেন্ডুলকার
Vinkmag ad

আজ (২৪ এপ্রিল) ক্রিকেট ঈশ্বর খ্যাত ভারতীয় কিংবদন্তী শচীন টেন্ডুলকার ৪৭ পূর্ণ করে ৪৮ বছরে পদার্পন করেছেন । দুই যুগের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়েরের ইতি টেনে সবশেষ ব্যাট হাতে নামেন ঘরের মাঠ মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে ২০১৩ সালে।

শচীনের বিদায়ে যতটাই বিষাদের ছায়া ভর করেছিল সতীর্থ, সমর্থক কিংবা শুভাকাঙ্খীদের মনে ততটাই স্বস্তি পেয়েছেন সেসময়কার বোলাররা। যদিও শচীনের বিদায়ে মন খারাপের বাতায়ন ছুঁয়ে গিয়েছে বিশ্বের সব ক্রিকেট প্রেমী ও ক্রিকেটারদেরও। কারণ শচীন শুধু ২২ গজেই রাজত্ব করেননি, অসাধারণ ব্যক্তিত্বের নিদর্শনে জায়গা করে নিয়েছেন সবার মনে।

ভারতের জার্সিতে ব্যাট হাতে নেমেছেন ৬৬৪ বার, ১০০ সেঞ্চুরিতে ৩৪,৩৫৭ রান করার পথে আউট হয়েছেন ৫৯০ বার। ব্যাটকে তুলি বানিয়ে ২২ গজের ক্যানভাসে শিল্পকর্মের কীর্তি গড়েন ২৪ বছর ধরে। বিভিন্ন প্রজন্মের বোলাররা বল করেছেন তার বিপক্ষে।

এই দীর্ঘ যাত্রায় বাংলাদেশের বিপক্ষে ব্যাট হাতে নেমেছেন ২০ বার, তাকে আউট হতে হয়েছে ১৬ বার যার মধ্যে একবার হয়েছেন রান আউট। মোট ১২ জন বাংলাদেশি বোলারের সৌভাগ্য হয়েছে শচীনের উইকেট নেওয়ার। যার মধ্যে মোহাম্মদ রফিক টেস্ট ওয়ানডে মিলিয়ে সর্বোচ্চ তিনবার ও মাশরাফি দুইবার আউট করেছেন। বাকি ১০ জন বোলার প্রত্যেকে একবার করে শিকার করেছেন ক্রিকেট ঈশ্বরের উইকেট।

এই দশ জন হলেন নাইমুর রহমান দূর্জয়, শাহদাত হোসেন, রুবেল হোসেন, সাকিব আল হাসান, আব্দুর রাজ্জাক, খালেদ মাহমুদ সুজন, নাজমুল হোসেন, মুশফিকুর রহমান বাবু, আতাহার আলি খান ও এনামুল হক মনি।

 

View this post on Instagram

 

Nazmul Hossain was 17 years 79 days old then. How did you rate Nazmul Hossain as a bowler? #Trivia #HappyBirthdaySachin

A post shared by cricket97 (@cricket97bd) on

১৯৯৫ সালে মোহাম্মদ রফিক প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে শচীনের উইকেট পকেটে পোরেন। শেষটায় জড়িয়ে মাশরাফি বিন মর্তুজা, ২০১২ সালের এশিয়া কাপে সেঞ্চুরির সেঞ্চুরি করা ঐতিহাসিক ম্যাচে মাস্টার ব্লাস্টার টেন্ডুলকারকে ফেরান দেশের সফল এই পেসার ও অধিনায়ক।

২০১০ সালে নিজের তৃতীয় টেস্টেই চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে শচীনকে এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেন পেসার রুবেল হোসেন। এমনিতেই টেস্ট ক্যারিয়ারে রুবেলের মধুর স্মৃতি কমই, রঙিন পোশাকে পারফরম্যান্স যতটা উজ্জ্বল সাদা পোশাকে ততটাই মলিন। ২৭ টেস্টের ক্যারিয়ারে ৭৬.৭৭ গড় ও ১১৭.৩ স্ট্রাইক রেটে উইকেট মাত্র ৩৬ টি।

প্রায় এক যুগের ক্যারিয়ারে বহু বাঘা বাঘা ব্যাটসম্যানকে ফিরিয়েছেন ৩০ বছর বয়সী এই পেসার। আছে নানা স্মরণীয় মুহূর্তও। তবে সেরা উইকেট বেছে নিতে বললে রুবেল বিনা দ্বিধায় জানালেন শচীন টেন্ডুলকারের উইকেটটির কথা।

শচীনের জন্মদিনে ‘ক্রিকেট৯৭’ কে রুবেল বলেন, ‘ওটাতো আমার স্মরণীয় উইকেট। আমার অনেকগুলো স্মরণীয় ম্যাচ আছে যেগুলো আমার কাছে অন্যরকম। প্রতিটি ক্রিকেটারেরই এমন কিছু ম্যাচ থাকে, আমারও আছে। এর বাইরে আমার কিছু উইকেটও স্মরণীয় নিজের কাছে যার মধ্যে শচীনের উইকেটটা অন্যতম।’

‘বিশ্ব ক্রিকেটের একজন কিংবদন্তী। তার উইকেটটা পাওয়া সত্যিকার অর্থেই গর্বের বিষয় আমার জন্য। খুব ভালো লাগে আমার। ভিডিওটা আছে আমার কাছে, প্রায় সময়ই দেখি শচীনের উইকেটের ভিডিওটি। এটা আমার কাছে অনেক গর্বেরও। আমি সবসময় এই উইকেটটিকে এক নম্বরেই রাখবো। ক্যারিয়ারে বোলারদের ক্ষেত্রে হয় যে কার উইকেটটাকে নিজের সেরা বলে মানে এমন কিছু। আমার ক্ষেত্রে আমি শচীন টেন্ডুলকারের উইকেটটিই রাখবো সবার উপরে।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

ক্রিকেটারদের দেখানো পথে হাঁটছেন আসিফ

Read Next

এশিয়া কাপ পিছিয়ে আইপিএল, মানবে না পাকিস্তান

Total
10
Share