ক্রিকেটারদের দেখানো পথে হাঁটছেন আসিফ

আসিফ হোসেন খান
Vinkmag ad

করোনা পরিস্থিতিতে দেশের অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে নিজেদের ব্যক্তিগত অবস্থান থেকে কাজ করে যাচ্ছেন ক্রীড়াবিদরা। সাকিব আল হাসানের আহ্বানে ক্রিকেটারদের অনেকেই নিলামে তুলছেন নিজেদের ক্যারিয়ারের সেরা মুহূর্তের স্মারক। যা থেকে প্রাপ্ত অর্থ ব্যয় হবে অসহায়, দুস্থদের কল্যাণে। ক্রিকেটারদের পাশাপাশি ফুটবলাররাও হেঁটেছেন একই পথে। এবার এই যাত্রায় যোগ দিয়েছেন শ্যুটার আসিফ হোসেন খান। কমনওয়েলথ গেমসে তার জেতা স্বর্ন পদক তুলতে চান নিলামে, উদ্দেশ্য করোনার কারণে সৃষ্ট দুর্যোগ মোকাবেলা।

ব্যক্তিগত অর্জন বিবেচনায় শ্যুটার আসিফের অর্জন অনন্যই বলতে হয়। তিনিই কমনওয়েলথ গেমসে দেশের হয়ে ব্যক্তিগত ইভেন্টে একমাত্র সোনাজয়ী।

২০০২ সালে ইংল্যান্ডের ম্যানচেস্টারে পুরুষদের এয়ার রাইফেল ইভেন্টে এমন কীর্তি গড়েন তিনি। দেশের ইতিহাসে তিনিই কমনওয়েলথ গেমসে সফল ক্রীড়াবিদ, ঐ আসরে সোনা জয় ছাড়াও ২০০৬ সালে মেলবোর্ন ও ২০১০ সালে দিল্লী কমনওয়েলথে রৌপ্য জিতেছেন দ্বৈত ইভেন্টে।

কমনওয়েলথ গেমসের ইতিহাসেই আসিফের ব্যক্তিগত সোনা জয় ছাড়া মাত্র একটি সোনা জিতেছে বাংলাদেশ। সেটিও আসে শ্যুটারদের কল্যাণে। ১৯৯০ সালে আতিকুর রহমান ও আব্দুস সাত্তার দ্বৈত ইভেন্টে কমনওয়েলথ গেমসে বাংলাদেশকে প্রথম সোনা এনে দেন।

তবে ব্যক্তিগত ইভেন্ট হিসেবে এখনো পর্যন্ত আসিফের সোনা জয় নিশ্চিতভাবেই বড় কিছু। কিন্তু করোনার মত বড় দুর্যোগকালে সেই পদকটিও নিলামে তুলতে দ্বিধা করছেন না খেলোয়াড় থেকে বর্তমানে বিকেএসপির কোচ হিসেবে কাজ করা আসিফ। তার এই ভাবনার পেছনে কাজ করেছে সাকিব আল হাসানের উদ্যোগ।

গত ২২ এপ্রিল সাকিব আল হাসান নিলামে বিক্রি করেন বিশ্বকাপে অসাধারণ পারফরম্যান্স করা ব্যাটটি। ২০ লাখ টাকায় নিজের প্রিয় এসজি ব্র্যান্ডের ব্যাটটি বিক্রি করেন আমেরিকা প্রবাসী এক বাংলাদেশির কাছে। ঐ ব্যাটটি দিয়েই বিশ্বকাপের আগে ত্রিদেশীয় সিরিজ ও বিশ্বকাপের প্রতিটি ম্যাচ খেলেন এই অলরাউন্ডার।

তার আগেই ২০১৩ সালে বাংলাদেশের হয়ে প্রথম ডাবল হাঁকানোর কীর্তি গড়া মুশফিক নিলামে তোলার ঘোষণা দেন ঐ ইনিংসে ব্যবহৃত ব্যাটটি। এদিকে জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুলও কার্ডিফে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ঐতিহাসিক সেঞ্চুরি ও অভিষেক টেস্টে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে রেকর্ড গড়া সেঞ্চুরির ব্যাট দুটি নিলামে তুলতে যাচ্ছেন।

ক্রিকেটারদের বাইরে ফুটবলারও নিজেদের বিভিন্ন কীর্তি গড়া জার্সি তুলতে যাচ্ছেন নিলামে। সাবেক ফুটবলার আলফাজ হোসেন ও পরলোকগমন করা তারকা ডিফেন্ডার মোনেম মুন্নার জার্সি নিলামে তোলার ঘোষণা ইতোমধ্যে জানা গেছে।

২০১৩ সালে জাতীয় দল থেকে অবসর নেওয়া আলফাজ হোসেন ১৯৯৯ সালে কাঠমুন্ডু সাফ গেমসে স্বর্ণজয়ী টুর্নামেন্টের ফাইনাল ম্যাচের জার্সিটি নিলামে তুলবেন। অন্যদিকে দেশের ফুটবল ইতিহাসের অন্যতম সেরা তারকা মোনেম মুন্নার ১৯৯৫ সালে মিয়ানমারে চারজাতি টুর্নামেন্ট জয়ী জার্সিটি নিলামে তোলার ঘোষণা দিয়েছেন তার স্ত্রী সুরভী মোনেম। ১৯৯৫ সালের ঐ শিরোপাই আন্তর্জাতিক কোন টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের প্রথম কোন শিরোপা জয়। ২০০৫ সালে মারা যান খ্যাতিমান এই ডিফেন্ডার।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

মালিকের ক্রিকেটে ফেরার প্রশ্নে পিসিবির ‘না’

Read Next

এখনো নিজের প্রিয় উইকেটের ভিডিও দেখেন রুবেল

Total
10
Share