ব্যাটের ভিত্তি মূল্যই ১৫-২০ লাখ রাখছেন আশরাফুল

মোহাম্মদ আশরাফুল রিকি পন্টিং অস্ট্রেলিয়া
Vinkmag ad

করোনা পরিস্থিতিতে সংকটময় সময় পার করা অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে সাকিব আল হাসান নিজের প্রতিষ্ঠিত ‘দ্য সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশন’ এর মাধ্যমে চালাচ্ছেন নানা কার্যক্রম। বিশ্বের অন্যান্য ক্রিকেটারের মত নিলামে তুলেছেন নিজের প্রিয় একটি ব্যাটও, নিলাম থেকে ব্যাট বিক্রির পুরো টাকাই নিজের ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে ব্যয় হবে অসহায় দুস্থদের জন্য। এবার জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুলও নিলামে তুলতে যাচ্ছেন নিজের দুটি প্রিয় ব্যাট। আশরাফুলের লক্ষ্য সাকিবের ব্যাটের চাইতেও বেশি দামে বিক্রি হবে তার ব্যাট।

ব্যাট দুটির ভিত্তিমূল্যও থাকছে সাকিবের দুর্দান্ত বিশ্বকাপ কাটানো ব্যাটটির ভিত্তি মূল্যের চাইতে অন্তত তিন-চার গুণ বেশি। ব্যাট বিক্রির অর্থ গরীব অসহায়দের পেছনে ব্যয় করতে ইতোমধ্যে ‘অ্যাশ ফাউন্ডেশন’ খোলার পরিকল্পনাও হাতে নিয়েছেন মোহাম্মদ আশরাফুল।

আগেই জানিয়েছেন অবসরের পর নিজের ক্যারিয়ারের সেরা মুহুর্তের স্মারকগুলো নিলামে তুলে দিতেন কোন দুর্যোগ মোকাবেলায়। কিন্তু তার আগেই করোনা ভাইরাসের কারণে সৃষ্ট বৈশ্বিক এই দুর্যোগকেই উপযুক্ত সময় বলে মানছেন আশরাফুল।

দ্রুততার সাথে করা ও পর্যাপ্ত সময়ের অভাবে সাকিব আল হাসান তার এসজি ব্র্যান্ডের ব্যাটটির মূল্য হিসেবে পেয়েছেন ২০ লাখ টাকা। নিলামে যার ভিত্তিমূল্য রাখা হয় ৫ লাখ টাকা। অনেকেরই ধারণা ঠিকঠাক পরিকল্পনা আর সময় নিয়ে গুছিয়ে নিলাম করে আরও বেশ দামে বিক্রিক করা যেত সাকিবের ঐতিহাসিক ব্যাটটি। যে ব্যাট দিয়ে ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে গতবছর ৮ ইনিংসেই ২ সেঞ্চুরি আর ৫ ফিফটিতে রান করেছেন ৬০৬।

তবে আশরাফুল হাঁটছেন ভিন্ন পথে, নিলামে ব্যাটের ভিত্তিমূল্য রাখা হবে ১৫-২০ লাখ টাকা। নিলামে উঠবে তার ২০০৫ সালে কার্ডিফে অস্ট্রেলিয়া বধে হাঁকানো সেঞ্চুরি করা ব্যাট ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে অভিষেক টেস্টেই সর্বকনিষ্ঠ সেঞ্চুরিয়ান বনে যাওয়া ইনিংস খেলা ব্যাটটি। আর নিলাম থেকে প্রাপ্ত অর্থ ব্যয়ে নিজের নামে ফাউন্ডেশন খোলার পরিকল্পনাও ইতোমধ্যে নিয়েছেন হাতে।

আশরাফুল জানান, ‘আমিও অ্যাশ ফাউন্ডেশন গঠন করা নিয়ে কথা বার্তা বলছি, কাজ করছি। দেখা যাক কীভাবে করা যায়।’

সাকিবের চাইতে বড় পরিসরে, বিশ্বব্যাপী নিলাম করতে যাচ্ছেন উল্লেখ করে জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক বলেন,

‘আমি চাই বিশ্বব্যাপী নিলাম করতে। কয়েকজনের সঙ্গে কথা হচ্ছে। ভিত্তিমূল্য রাখতে চাই ১৫-২০ লাখ টাকা। যাতে করে বেশি মানুষকে সহোযোগিতা করা যায়। এ জন্য ধীরে-সুস্থে গুচিয়ে এগোচ্ছি হাতে সময় নিয়ে। তাড়াহুড়ো করছি না।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

দ্বিতীয় সন্তানের জনক হলেন সাকিব

Read Next

মালিকের ক্রিকেটে ফেরার প্রশ্নে পিসিবির ‘না’

Total
150
Share