বাংলাদেশের স্বপভঙ্গ করতে যেভাবে পরিকল্পনা সাজিয়েছিলেন কার্তিক

দীনেশ কার্তিক নিদাহাস
Vinkmag ad

ভারতের হয়ে দেড় দশকের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান দীনেশ কার্তিকের। কিন্তু কখনোই দলে নিজেকে অপরিহার্য চরিত্র হিসেবে উপস্থাপন করতে পারেননি। দলে আসা যাওয়ার মিছিলে কেবল একজন পার্শ্বনায়ক হয়েই কাটিয়েছন, তবে সব কিছু পেছনে ফেলে কার্তিক ভারতীয়দের হৃদয়ে জায়গা করে নেন বাংলাদেশের বিপক্ষে এক ম্যাচ দিয়ে।

বলা হয় থাকে ধৈর্য্যশীলদের নিরাশ করেননা সৃষ্টিকর্তা। ২০১৮ সালের ১৮ মার্চ শ্রীলঙ্কায় অনুষ্ঠিত নিদাহাস ট্রফির ফাইনালে প্রায় অসম্ভব এক ম্যাচ বাংলাদেশের কাছ থেকে ছিনিয়ে নেন মাত্র ৮ বলের এক বিধ্বংসী ইনিংসে।

১৬৮ রানের লক্ষ্য তাড়ায় নেমে ৫ উইকেট হারানো ভারতের শেষ দুই ওভারে প্রয়োজন ছিল ৩৪। ক্রিজে এসেই রুবেল হোসেনের করা ১৯ তম ওভার থেকেই ২২ রান নিয়ে নেন কার্তিক। এরপর সৌম্য সরকারের করা শেষ ওভারে প্রয়োজন ১২, রোমাঞ্চে মোড়ানো ওভারটির শেষ বলে দরকার ৫।

দিনটা কার্তিকের করে দিবেন আগেই ঠিক করে রাখা ক্রিকেট বিধাতা বাংলাদেশকে আরও একবার স্বপ্ন ভঙ্গের রাত উপহার দিলেন। শেষ বলে ছক্কা হাঁকিয়ে ভারতীয়দের জয় এনে দিলেন কার্তিক। তার ৮ বলের ইনিংসটি ভারতীয়দের এনে দেয় স্বস্তি, লম্বা সময়ের ক্যারিয়ারে নায়ক হওয়ার উপলক্ষ্য পেয়ে কার্তিকও যেন হাঁফ ছেড়ে বাঁচলেন।

এমন কঠিন পরিস্থিতিতে ইনিংসটি কীভাবে খেলেছেন, পরিকল্পনাই কি ছিল জনপ্রিয় ক্রিকেট ওয়েবসাইট ক্রিকবাজকে এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন দীনেশ কার্তিক। তিনি বলেন,

‘আমি যখন ক্রিজে যাই অবশ্যই আমার একটা পরিকল্পনা ছিল। এসব ক্ষেত্রে অনুশীলন আপনাকে সাহায্য করবে। আপনি যখন একটি জিনিস বার বার করতে থাকবেন তখন এটা আপনার মধ্যে সয়ংক্রিয়ভাবে চলে আসবে। আপনার কী করা দরকার তা জানার ফলে আপনি যা চান তা অর্জনের আরও ভালো সুযোগ দেয়।’

‘ক্রিজে আসার সময়ই আমার বিশ্বাস ছিল যে এটা আমি করতে পারবো। এটা শেষ করার জন্য যা করা দরকার তা আমার ছিল। তারা যখন বল করছিল তখন আমি কোথায় দাঁড়াবো, কীভাবে আক্রমণ করবো সব পরিকল্পনা সাজিয়ে রেখেছিলাম। যদি আপনি একজন ফিনিশার হিসাবে ধারাবাহিক হতে চান তবে আপনাকে অবশ্যই ভাবতে হবে এবং এভাবেই আমি পুরো ইনিংসটির পরিকল্পনা সাজাই।’

বোলার কি করতে চাচ্ছে তা বোঝার চেষ্টা করাতেই মনযোগ ছিল ৩৪ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যানের,

‘আমি আসলে গ্যাপ খুঁজছিলাম এবং বোলার কী করতে চাচ্ছিল তা বুঝতে চেষ্টা করেছিলাম। আপনি যদি লম্বা সময় অনুশীলন করেন, ভিডিও পর্যবেক্ষণ করেন এবং বাউন্ডারির কোন দিকটি ছোট এসব বিবেচনায় নিয়ে নিতে পারেন ঐ সময়টায় তাহলে বোলারের ওপর চড়াও হয়ে যা করতে চাচ্ছেন তাই করতে পারবেন।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

ব্যাট নিলামের আয়োজকরা জানতেন না কীভাবে নিলাম করতে হয়!

Read Next

ক্রিকেট খেলুড়ে দেশের মধ্যে সবচেয়ে কম করোনা টেস্টের হার বাংলাদেশে

Total
6
Share