অ্যাগ্রো ফার্ম ইস্যুতে প্রতিক্রিয়া জানালেন সাকিব

সাকিব আল হাসান
Vinkmag ad

সাকিব আল হাসানের নামে থাকা অ্যাগ্রো ফার্ম কোম্পানির কর্মীরা বেতন না পেয়ে বিক্ষোভ করেছেন- কয়েকদিন ধরে এই ইস্যুতে আলোচনা-সমালোচনা হয়েছে বিস্তর। বেশ কিছু মিডিয়া ফলাও করে এই খবর প্রকাশ করে। তা নিয়ে নানা পক্ষ কথা বললেও সাকিব আল হাসানের প্রতিক্রিয়া জানা যাচ্ছিল না। অবশেষে প্রতিক্রিয়া জানালেন বাংলাদেশের পোস্টারবয়। 

নিজের অফিশিয়াল ফেসবুক পেইজে (ভেরিফাইড) ইংরেজিতে একটি পোস্ট দেন সাকিব আল হাসান। যার বঙ্গানুবাদ করলে দাঁড়ায় অনেকটা নিম্নরূপ-

‘আমি দেরিতে প্রতিক্রিয়া জানানোর জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করছি। কিন্তু আমি আমার চিন্তা ও এই ঘটনা সম্পর্কিত সকল তথ্য সংগ্রহ করছিলাম যাতে করে আপনাদেরকে সত্যটা জানাতে পারি। যে অ্যাগ্রো ফার্ম নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে সেটাতে আমার নাম সরাসরি যুক্ত থাকলেও আমার ব্যস্ত শিড্যিউলের জন্য অন্য সব কোম্পানির মত এটাও কো ওনার বা পার্টনাররা দেখভাল করে। আমি এসব ব্যবসায় জড়ানোর খুব কম সুযোগ পাই, এমনকি অফিসেও যাওয়া হয়ে ওঠে না। যেমনটা আপনারা সবাইই জানেন যে আমি বছরের বেশিরভাগ সময়ই দেশের বাইরে ছিলাম, কারণ আমরা আমাদের দ্বিতীয় সন্তানের অপেক্ষায় আছি। তাই আমি আমার অ্যাগ্রো ফার্ম সম্পর্কিত ব্যবসায়িক তথ্যের হালনাগাদ করতে পারিনি। মিডিয়ার মাধ্যমেই কর্মীদের বেতন না পাওয়ার ঘটনা আমার কানে আসে। আমার কো ওনার ও পার্টনাররা আমাকে এসব জানাতে ব্যর্থ হয়, যদিও তারা ওয়াদা করেছে যেসব কর্মীদের বেতন বাকি রয়েছে তাদের বেতন এপ্রিলের ৩০ তারিখের মধ্যে দিয়ে দেওয়া হবে। তাদের বেতন ৩০ তারিখেই দেওয়ার কথা ছিল, কিন্তু বিস্ময়করভাবেই তারা আগেভাগে আন্দোলনে নামে, কোন ব্যক্তির ইন্ধনে বাঁ কোন এজেন্ডা বাস্তবায়নে।

যাইহোক, যখনই আমি এই ঘটনার ভয়াবহতা বুঝতে পেরেছি আমি তখনই নিজের ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্ট থেকে বেতন সম্পর্কিত সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ নিয়েছি। কোম্পানির তহবিল বা পার্টনারদের কাছ থেকে কিছু নিয়ে নয়। যেকোন ক্ষেত্রেই আমি বিশ্বাস করি কোন কোম্পানির আভ্যন্তরীণ তথ্য ভেতরেই থাকা উচিৎ। আমি খুবই হতাশ হয়েছি কর্মীরা মাসের শেষ অব্দি অপেক্ষা করতে পারলো না দেখে। আমি অসহায় দুস্থদের সাহায্য করার জন্য তহবিল গঠনে চেষ্টা করছি, তাই আমি বিচলিত হয়েছি এই ভেবে যে মানুষ কেনো ভাববে আমি দক্ষ কর্মীদের তাদের বেতন পাওয়া থেকে বঞ্চিত করবো, যাদেরকে ৩ বছর ধরে নিয়মিত বেতন দেওয়া হচ্ছে!

দুর্ভাগ্যজনকভাবে এই ঘটনার গভীরে না যেয়ে, বিশুদ্ধতা নিশ্চিত না করে অনেক মিডিয়া এই খবর প্রকাশ করেছে। তারা যদি চাঞ্চল্যকর হেডলাইন (আংশিক মিথ্যা ও বেশিরভাগই মিসলিডিং ) তৈরিতে মন না দিয়ে সত্য খুঁজতে চাইতো সেটাই ভালো হতো।

আমি মনে করি চলমান সংকটময় পরিস্থিতিতে জাতি হিসাবে আমাদের আরো অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজ রয়েছে। আমাদের যেকোন মিসলিডিং তথ্য ও সত্যের মিথ্যে আয়োজন সম্পর্কে সজাগ ও শক্ত অবস্থানে থাকতে হবে। আমি মনে করি আমাদের মনোযোগ গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্রে দেওয়া উচিৎ।

সবাই দয়া করে সাবধানে ও ভালো থাকবেন- সাকিব।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

‘রাত তিনটা অব্দি চিৎকার করেছিলাম’

Read Next

শত্রুপক্ষ থেকে সিডল বেঁছে নিলেন সেরা টেস্ট একাদশ

Total
27
Share