আইপিএলের জন্য ‘উইন্ডো’ খুঁজছে বিসিসিআই

বিসিসিআই
Vinkmag ad

সারা বিশ্বব্যাপী এখন সবচেয়ে বড় ইস্যু করোনা ভাইরাস। কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ ছড়ানো এড়াতে বিশ্বব্যাপী বিভিন্ন স্পোর্টস ইভেন্ট বন্ধ আছে। ফুটবল, ক্রিকেট, টেনিস- প্রায় সব খেলাই মাঠে গড়াচ্ছে না। সতর্কতাবশত ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে আইপিএল (ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ)। করোনা পরিস্থিতি ঠিক হবে কিনা, হলেও সেটা কবে নাগাদ হবে তার ওপর নির্ভর করছে আইপিএলের ভাগ্য।

শনিবার পর্যন্ত বিসিসিআই (বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া) ও আইপিএলের মালিকপক্ষদের বৈঠকে ধারণা পাওয়া গিয়েছিলো কিছু ম্যাচ ছেঁটে ফেলে সংক্ষিপ্ত সময়ের মধ্যে আইপিএল শেষ করাটা প্ল্যান বি।

যদিও কয়েকদিনের ব্যবধানে বদলেছে পরিস্থিতি, সিদ্ধান্ত। এখন আর কোন প্ল্যান বি নেই। ৬০ ম্যাচের পূর্নাঙ্গ টুর্নামেন্টই হবে, হয় এখন নাহলে পরে। যদি ভারতে আয়োজন করা সম্ভব না হয় তাহলে অন্য কোন দেশে আয়োজন করা হবে। যদি সমস্ত খেলোয়াড় না পাওয়া যায় তাহলে যাদেরকে পাওয়া যাবে তাদেরকে নিয়েই মাঠে গড়াবে টুর্নামেন্টের ১৩ তম আসর।

বিসিসিআই এর এমন সিদ্ধান্তে বড় বাঁধা এফটিপি (ফিউচার ট্যুরস প্রোগ্রাম)। পূর্নাঙ্গ টুর্নামেন্ট করার জন্য উইন্ডো খুঁজে পাওয়া যে হচ্ছে বড় এক চিন্তা। সেপ্টেম্বরে দুবাইয়ে এশিয়া কাপ, সেই মাসেই পাকিস্তান ইংল্যান্ডে যেয়ে খেলবে।

পাকিস্তান ও ইংল্যান্ড ছাড়া অন্য দেশগুলোর প্যাকড উইন্ডো নেই। বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা ও আফগানিস্তান অবশ্য খেলবে এশিয়া কাপে। এশিয়া কাপ ছাড়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে ভারতের খেলা আছে কেবল জুন-জুলাইয়ে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৩ টি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি।

২০০৯ সালে আইপিএল অনুষ্ঠিত হয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকায়। আর সেটা শেষ হয়েছিল ৩৭ দিনে। এমন ৫ সপ্তাহ ও ২ দিনের কোন উইন্ডো খুঁজছে বিসিসিআই। করোনার বিশ্বব্যাপী অবস্থা বিবেচনা করে কিছু অংশ ভারতে, কিছু অংশ অন্যত্র বা পুরোটাই অন্যত্র আয়োজনের ভাবনা আয়োজকদের। আলোচনা চলমান, এখনো বিভিন্ন স্টেকহোল্ডার বিভিন্ন প্রস্তাবনা দিচ্ছে।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

কোয়ারেন্টাইনে যাওয়া অজি পেসার শুরুতে ভেবেছিলেন মজা

Read Next

ধোনিদের সাবেক কোচ আসছেন তামিমদের কোচ হয়ে!

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
64
Share