পারফরম্যান্সের আগে মানসিকতাটাই নিতে চান রিয়াদ

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ হাসি
Vinkmag ad

বিশ্বকাপের পর থেকে টানা হারে ক্লান্ত বাংলাদেশ অবশেষে স্বস্তির এক সিরিজ শেষ করলো জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। তিন ফরম্যাটেই কোন পাত্তা না দিয়ে সবগুলো ম্যাচ জিতে নেয় টাইগাররা। আগামী মাসেই পাকিস্তানের বিপক্ষে তৃতীয় দফার সফরের আগে আত্মবিশ্বাস ফিরবে টাইগার শিবিরে বিশ্বাস মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে শুধু জয় নয় আধিপত্য বিস্তার করার লক্ষ্যই ছিল বাংলাদেশের।

নিজেদের ঘুরে দাঁড়ানোর সিরিজ বলেই বাড়তি মনযোগ ছিল বলে জানান টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। গতকাল (১১ মার্চ) শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে সফরকারীদের ৯ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়ে প্রথমবার কোন পূর্ণাঙ্গ সিরিজের সবকটি জিতলো বাংলাদেশ। ম্যাচ শেষে বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি দলপতি বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয় দুটোই গুরুত্বপূর্ণ ছিল, ভালো ক্রিকেট খেলা এবং একই সঙ্গে আধিপত্য বিস্তার। কারণ আমরা ওয়ানডেতে ভালো করছিলাম না। এটা আমাদের জন্য ঘুরে দাঁড়ানোর সিরিজ ছিল।’

সিরিজের শুরু থেকেই বাড়তি মনযোগ ছিল ক্রিকেটারদের অনুশীলন, জিমেও। সাফল্যের পেছনে কাজে দিয়েছে এসব, জালনালেন মাহমুদউল্লাহ, ‘আমরা অনেক বেশি ফোকাস ছিলাম, যেটা লিটন বললো যে ব্যক্তিগতভাবে সে অনেক ফোকাস ছিল। মোটামুটি সবাই আসলে ফোকাস ছিল। যারা রান করছে এবং বোলাররা সবাই। যে যার নিজেদের কাজগুলো, জিম থেকে শুরু করে রানিং, স্কিল ওয়ার্ক সবকিছুই বেশ পরিকল্পনা মাফিক করেছে এবং এই কারণেই আমরা সাফল্য পেয়েছি।’

সিরিজের একমাত্র টেস্ট থেকেই ক্রিকেটারদের মধ্যে অন্যরকম এক ক্ষুধা লক্ষ্য করা যায়। ভালো করা এই তাড়নাটা বেশ মনে ধরেছে টি-টোয়েন্টি দলপতির। সিরিজেরর দুর্দান্ত পারফরম্যান্স নয় এই আগ্রহ, মানসিকতাতাই পরবর্তী সিরিজের জন্য নিজেদের মধ্যে ধারণ করতে চান মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। সদ্য সমাপ্ত সিরিজ থেকে পারফরম্যান্স নাকি মানসিকতা নিবেন অধিনায়ক?

সংবাদ সম্মেলনে এমন প্রশ্নে টাইগারদের টি-টোয়েন্টি কাপ্তান বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয় মানসিকতা নেব। প্রথমে মানসিকতা এরপরে পারফরম্যান্স। কারণ সবার যে মাইন্ডসেট এবং ক্ষুধা ছিল সেটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। আমরা যখন পাকিস্তানে গেলাম তখন আমাদের একটি আলোচনা হয়েছিল এমন যে আমরা এমন কেন খেলছি?’

জিম্বাবুয়ে সিরিজের আগে বাংলাদেশ যে পারফরম্যান্স করেছে তার চাইতে ভালো দল বাংলাদেশ এই বিশ্বাস ছিল ক্রিকেটারদেরও, ‘সবাই মনে করি যে আমরা এর চেয়ে ভালো দল এবং এর চেয়ে ভালো পারফরম্যান্স আমরা দিতে পারবো। এই নিয়ে সন্দেহ ছিল না। তবে কোনো কিছুতে একটু ঘাটতি ছিল। এই জিনিসগুলো নিয়ে আমরা এই সিরিজে অনেক বেশি ফোকাস ছিলাম শুরু থেকে এবং আমাদের কাজের পরিধিটাও সেরকম ছিল। এগুলোই আমাদের জন্য ইতিবাচক দিক এবং ভবিষ্যতে এই ব্যাপারগুলো মাথায় রাখতে হবে যে আমরা এই ধরণের দল ও আধিপত্য দেখিয়ে আমরা খেলতে পারি।’

‘কারণ হয়তো  আজকে ফলাফল এসেছে, পরের সিরিজে হয়তো হবে না। তবে একই সঙ্গে আমাদের বিশ্বাস রাখতে হবে যেন এই পারফরম্যান্সটা দিতে পারি। যদি আমরা এখান থেকে সরে যাই তাহলে আমাদের গড়ে ওঠাটা কঠিন হবে। আমাদের এখন পরবর্তী লক্ষ্য হলো বড় দল কিংবা তথাকথিত বড় দলগুলোর সঙ্গে ধারাবাহিক পারফরম্যান্স করতে পারি।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

মিচেল স্টার্ক ও এমপোফুতে একই মনযোগ লিটনের

Read Next

শূন্য গ্যালারি, বিদেশী তারকাহীন আইপিএল!

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
10
Share