মিরাজকে দিয়ে ৭ ওভার বল করানোর কারণ জানালেন মাশরাফি

মেহেদী হাসান মিরাজ মাশরাফি বিন মর্তুজা

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে শেষদিকের রোমাঞ্চে ৪ রানে জিতেছে বাংলাদেশ। ম্যাচে পেসারদের তুলনায় স্পিনাররাই করেছে ভালো। শফিউল ইসলাম, আল আমিন হোসেনরা রান খরচে উদার হলেও তাইজুল, মিরাজ, মাহমুদউল্লাহরা ছিলেন মিতব্যয়ী। বিশেষ করে ৭ ওভারে ৩.৫৭ ইকোনোমিতে মাত্র ২৫ রান খরচায় ১ উইকেট নেওয়া মিরাজ ছিলেন দুর্দান্ত। তবে গত ম্যাচের মত আজও (৩ মার্চ) পুরো ১০ ওভার করার সুযোগ পাননি মিরাজ। ম্যাচ শেষে অধিনায়ক মাশরাফি অবশ্য দিয়েছেন ব্যাখ্যা।

মূলত ডানহাতি দুই সেট ব্যাটসম্যানের আক্রমণ থেকে বাঁচাতেই মিরাজকে সরিয়ে নেওয়া, ‘প্রথমত মিরাজের বিপক্ষে দুজন সেট ডানহাতি ব্যাটসম্যানের আক্রমণাত্মক হওয়ার সম্ভাবনা খুব বেশি আর সাথে কুয়াশা। স্পিনারদের জন্য একটু কঠিন। তাইজুলের জন্যও খুব কঠিন ছিল, প্রথম ৫ ওভার ও সংগ্রাম করছিলো। ওরা ডাউন দ্যা উইকেটে এসে আক্রমণ করছিলো, বল গ্রিপ করছিল না।’

‘অফ স্পিনারদের বিপক্ষে আরো সহজ ছিল। তাড়াতাড়ি আমরা রিয়াদকে দিয়ে কাভার করিয়ে রেখেছিলাম। পরে তাইজুল শক্তভাবে ফিরে আসার কারণে রিয়াদকে আর দরকার হয়নি।’

আগের ম্যাচের তুলনায় কুয়াশাও বেশ ভুগিয়েছে শেষদিকে বাংলাদেশি বোলারদের। ৩২৩ রানের লক্ষ্য দিয়ে শুরুতে সহজ জয়ের দিকে এগোনো বাংলাদেশের শেষদিকে হারের শঙ্কাও জাগে। ডোনাল্ড টিরিপানোর ২৮ বলে ২ চার ৫ ছক্কার এক ইনিংসের পরও অবশ্য ৪ রানে হারতে হয়েছে সফরকারীদের।

কুয়াশার কারণেই শেষ ১০ ওভারে মাত্র ২ ওভার করানো হয় স্পিনারদের দিয়ে। তবে মিরাজ বা রিয়াদের অফ স্পিন নয় ঐ দুই ওভারই করেছে বাঁহাতি অর্থোডোক্স তাইজুল ইসলাম। মিরাজের কোটা শেষ না হওয়ার পেছনে কুয়াশাকে কারণ হিসেবে দেখিয়ে মাশরাফি আরও যোগ করেন, ‘আর ঐ সময় (শেষদিকে) তো অবশ্যই আমার মিরাজকে দিয়ে করানোর সুযোগ নাই। ঐ সময়ে আমার পেস বোলারদেরই যেভাবে খেলছিল, কঠিন হতো স্পিনারের জন্য। আর কুয়াশা আজকে আগের ম্যাচের চেয়ে বেশি ছিল বলে সমস্যা হচ্ছিলো। আর উইকেট প্রথম ১০ ওভারের পর থেকে বেটার হতে হতে আস্তে আস্তে আরো ব্যাটিং সহায়ক হয়েছিল।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

৩য় দফার পাকিস্তান সফর বাতিল করতে পারে বিসিবি

Read Next

সাইফউদ্দিনের না খেলাকে যে কারণে ইতিবাচক বলছেন মাশরাফি

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
22
Share