শেষ ওয়ানডেতে খেলবেন না মুশফিক, যদি…

রাসেল ডোমিঙ্গো মিনহাজুল আবেদিন নান্নু

পাকিস্তান সফরে না গেলে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেই বাদ দেওয়া হোক মুশফিকুর রহিমকে; বিসিবি সভাপতি দিয়েছেন নির্দেশ-এমন খবরে গত ২৪ ঘন্টায় তোলপাড় ক্রিকেটাঙ্গন। তবে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু অবশ্য অস্বীকার করেছেন এমন কিছু। যদিও পাকিস্তান সফরের দল প্রস্তুত করতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তৃতীয় ওয়ানডেতে বাদ পড়ছেন মুশফিক সেটা নিশ্চিত করেছেন নান্নু।

টিম ম্যানেজমেন্টের বিশ্বস্ত একটি সূত্রই গতকাল (২ মার্চ) গণমাধ্যমকে জানান দুপুরে মুশফিকুর রহিমের সাথে টিম হোটেলে বৈঠক করেন কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো ও প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন। বিসিবি সভাপতির নির্দেশ ছিল মুশফিক পাকিস্তান যেতে রাজি নাহলে যেন বাদ দেওয়া হয় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাকি ম্যাচগুলোতে। রাতেই প্রধান নির্বাচক নিশ্চিত করেন এমন কিছু হয়নি, কেবল মুশফিক যাবে কিনা সেটাই জানার জন্য আবারও বসেন তারা।

মুশফিক যে আগের অবস্থানেই আছেন সেটিও জানা যায় গতকালই। আজ (৩ মার্চ) জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডের ইনিংস ব্রেকে প্রধান নির্বাচক বলেন, ‘যেহেতু সামনে পাকিস্তান সফর আছে আমাদের, এই সিরিজটার পরেই। তো সেই হিসাবে মুশফিককে আমরা ডেকেছিলাম, ওর কনফার্মেশন জানার জন্য। ও সরাসরি ওর সিদ্ধান্ত জানিয়েছিল, ব্যাপারটা ওখানেই শেষ হয়ে গিয়েছিল। আবার ডাকলাম যে একটা টেস্ট ও ওয়ানডের জন্য বিবেচনা করার জন্য।’

‘আমরা কিছু নিউজে দেখেছি (মুশফিককে হুমকি দেওয়া প্রসঙ্গে), খবরটা ঠিক না। অফিশিয়ালি আমরা ওকে জিজ্ঞাসা করেছিলাম ও যাবে কিনা। টিম ম্যানেজমেন্ট ও আমরা একসাথে বসেছিলেম, হেড কোচও ছিল। ও সরাসরি বলেছে যে ‘না’।’

মুশফিক ইস্যুতে জল ঘোলা হওয়ার জন্য আবারও গণমাধ্যমকেই দুষলেন মিনহাজুল আবেদিন, ‘ওরকম কিছুই না (বোর্ড সভাপতির নির্দেশনা প্রসঙ্গে)। এর আগেও টেস্ট সিরিজের পর কিছু নিউজ দেখেছিলাম, ও যাবে কি না। যেখানে একটা পত্রিকাতে (সমকাল) দেখেছিলাম ও যাবে। তাই অফিশিয়ালি ওকে জিজ্ঞাসা করেছিলাম ও সিদ্ধান্তে বদল এনেছে কিনা। ও সরাসরি বলে দিয়েছে যে ও পাকিস্তানে যাবে না।’

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচ সিরিজটি ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেলে তৃতীয় ম্যাচে একাদশে সুযোগ পাবেন কেবল পাকিস্তান সফরের একমাত্র ওয়ানডেতে খেলবেন যারা তারাই। সেক্ষেত্রে মুশফিকের তৃতীয় ওয়ানডেতে না খেলাটা অনেকটা নিশ্চিতই, ‘আমরা টিম ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে বসে আমরা একটা চিন্তাভাবনা করেছি। পাকিস্তানে যেহেতু আমাদের একটা ওয়ানডে আছে। তো জিম্বাবুয়ের সঙ্গে যদি আজ সিরিজ জয় নিশ্চিত হয়ে যায় তাহলে শেষ ওয়ানডেতে পাকিস্তানে যে ১১ জন খেলবে তাদেরকে আমরা খেলাবো।’

কিন্তু অধিনায়ক মাশরাফি পাকিস্তান যাচ্ছেন কিনা সেটা এখনো ধোঁয়াশা হয়েই আছে। সেক্ষেত্রে তৃতীয় ওয়ানডেতে তার খেলার সম্ভাবনা কতটুকু এমন প্রশ্নে মিনহাজুল আবেদিন বলেন, ‘মুশফিক তো যাবে না বলে দিয়েছে। তো ১৫ জনের স্কোয়াড অলরেডি ১৪ জনের হয়ে গেছে। মাশরাফিকে নিয়ে এখনো আলোচনা হয়নি। এই সিরিজ শেষ হলে আমরা পাকিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে দল নিয়ে বসবো।’

তবে প্রধান নির্বাচকের পরের কথায় খানিক বিভ্রান্তিও তৈরি হয়, ‘আজ সিরিজ জিতলে মুশফিকের শেষ ম্যাচে খেলার কোন সম্ভাবনা নেই। কারণ আমরা চাচ্ছি ৩ এপ্রিল পাকিস্তানের বিপক্ষে যে ওয়ানডে টা আছে ওটা মাথায় রেখে একাদশ সাজাতে, টিম ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে বসে আমরা সেটাই সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

মূলত মিনহাজুল আবেদিনের কথার সারমর্ম পাকিস্তানের বিপক্ষে একমাত্র ওয়ানডের একাদশে যারা থাকবেন তারাই খেলবেন তৃতীয় ওয়ানডে। সেক্ষেত্রে মাশরাফি তৃতীয় ওয়ানডে খেলার মানেই পাকিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে দলের একাদশে থাকা। অথবা পাকিস্তানের বিপক্ষে বিবেচনায় না থাকলে খেলার কথা নয় তৃতীয় ওয়ানডেতে। যদিও স্পষ্ট কোন ব্যখ্যা না দিয়ে ব্যাপারটি পরে সিদ্ধান্ত হবে বলে এড়িয়ে গেলেন প্রধান নির্বাচক।

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

সাত হাজারি ক্লাবে প্রথম বাংলাদেশি তামিম

Read Next

ডিপিএলে ১ম দিনে ৫৪ জনের দলবদল

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
15
Share