গতকাল রাত থেকেই নার্ভাস ছিলেন লিটন!

লিটন দাস

টেকনিক্যালি দেশের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যানদের একজন লিটন কুমার দাস। তবে নিজের ঘরোয়া ক্রিকেটের পারফরম্যান্সটা ঠিক আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে টেনে আনতে পারছিলেন না উইকেট রক্ষক এই ব্যাটসম্যান। প্রথম কয়েকবছর নিজেকে মেলে ধরতে না পারলেও সাম্প্রতিক সময়ে নিজেকে ছন্দে ফেরানোর ইঙ্গিত তার ব্যাটে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে আজ (১ মার্চ) তুলে নিয়েছেন ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় শতক। রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে ১২৬ রানে মাঠ ছাড়া লিটনকে পুরো ইনিংসে একবারের জন্যও নার্ভাস মনে হয়নি। কিন্তু ম্যাচ শেষে জানালেন গতকাল রাত থেকেই নার্ভাস ছিলেন লিটন দাস।

 

View this post on Instagram

 

Retired Hurt Litton’s career best innings in ODI. #BANvZIM #LKD16

A post shared by cricket97 (@cricket97bd) on

মূলত ওপেনার হলেও জাতীয় দলে ঠিক নিজের পজিশনে নিয়মিত ছিলেন না শুরুর দিকে। তবে একটা সময় ঠিকই ওপেনার হিসেবেই আবির্ভাব হয় লিটনের। পারফরম্যান্সেও প্রভাব পড়ে সেটির, ৩৪ ম্যাচের ক্যারিয়ারে আজ নিয়ে ২০ বার ওপেন করেছেন। ২০১৮ সালে এশিয়া কাপে প্রথম আন্তর্জাতিক সেঞ্চুরির দেখা পান এই ব্যাটসম্যান। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে পেলেন দ্বিতীয় সেঞ্চুরির দেখা, দুটোই আবার ওপেনিং পজিশনে।

বেশ সাবলীলভাবে ইনিংস শুরু করা লিটন ৪৫ বলে তুলে নেন ফিফটি, তিন অঙ্কে ছুঁতে বল খেলেন ৯৫ টি। যেভাবে খেলছিলেন পেছনে ফেলতে পারতেন ওয়ানডেতে তামিম ইকবালের সর্বোচ্চ রানের ইনিংসকেও (১৫৪)। ১০৫ বলে ১৩ চার ২ ছক্কায় ১২৬ রানে রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে মাঠ ছাড়ায় সেটি অবশ্য হয়নি আফসোসও নেই লিটনের। কিন্তু সংবাদ সম্মেলনে ঠিকই জানিয়েছেন ছিলেন নার্ভাস আর সেটা গতকাল রাত থেকেই।

নার্ভাসনেস নিয়ে জানাতে গিয়ে লিটন বলেন, ‘অনেকে হয়তো বুঝে নাই, আমি আজ নার্ভাস ছিলাম আজকে। কালকে রাত থেকে আমি অনেক নার্ভাস। কারণ, বাংলাদেশের হয়ে অনেকদিন ধরেই তো ওয়ানডে ক্রিকেটটা খেলছি, যেটা শ্রীলঙ্কায় হয়েছে সেটাতে আমি খেলিনি। এরপরেও আমি জানতাম ওপেন করবো।’

‘ব্যাক অফ দ্যা মাইন্ডে এটা আমার জন্য আরো প্রেশার ছিল। নার্ভাসনেসটা আমার জন্য পজিটিভ হিসাবেই কাজ করেছে মাঠে। আমি যেহেতু নার্ভাস, আমাকে বেশি ফোকাস নিয়ে খেলতে হবে। যদিও পারি সব শট, তবে সব শট খেলা যাবে না। উইকেটে যতক্ষণই ছিলাম আমার ফোকাস টা খুব ভালো ছিল।’

লম্বা সময় পর ওয়ানডেতে ওপেন করেছেন বলেই ছিলেন নার্ভাস জানিয়েছেন নিজেই, ‘আমি যেটা বললাম আমি শ্রীলঙ্কা সিরিজটি মিস করেছি। শেষ খেলেছি বিশ্বকাপে নাম্বার পাঁচে। আমার কাছে ওপেন করাটা অনেকদিন পর সাদা বলে (মূলত ওয়ানডে) এ জিনিসটি আমার কাছে একটু নার্ভাস ছিল। আমিতো নরমালি ওপেনই করি, কিন্তু অনেকদিন পর করছি বলে নার্ভাস ছিলাম আরকি।’

সংবাদ সম্মেলনের শেষভাগে জানিয়েছেন পরের ম্যাচগুলোতে ওপেনই করবেন এমন নিশ্চয়তা পাচ্ছেন বলে কেটে গেছে নার্ভাসনেস, ‘এখন আর নার্ভাস থাকবোনা কারণ আমি জানি ওপেন করতেছি এবং আমি একটা ম্যাচ খেলেছি অলরেডি।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

ইমরান খান, ওয়াসিম, পোলকদের পাশেই মাশরাফি

Read Next

ওয়ানডেতে ডাবল সেঞ্চুরির প্রশ্নে লিটনের উত্তর

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
11
Share