অমন উদযাপনের কারণ জানালেন মুশফিক

মুশফিকুর রহিম উদযাপন

সবশেষ ৫ টেস্টে ১০ ইনিংসে বাংলাদেশের কোন ব্যাটসম্যান করতে পারেননি সেঞ্চুরি। মিরপুরে একমাত্র টেস্টে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসেই অধিনায়ক মুমিনুল হকের সেঞ্চুরির সাথে মুশফিকুর রহিম তুলে নেন ডাবল সেঞ্চুরি। বাংলাদেশের হয়ে পঞ্চম ডাবল সেঞ্চুরিটি আবার মুশফিকের তৃতীয় দ্বিশতক।

সেঞ্চুরির পর ব্যাট শূন্যে ভাসিয়ে কিছুটা সাদাসিধে উদযাপন, তবে ছিল কিছুটা ভিন্নতা। অনেকটা হাওয়ায় ভাসা ময়লা ব্যাট দিয়ে সরিয়ে দেওয়ার মত বলা যায়। কিন্তু ডাবল সেঞ্চুরিতে পৌঁছানোর পর উদযাপনে ছিল পুরো ভিন্ন এক চিত্র। সচরাচর মুশফিককে এমন উদযাপনে দেখাই যায়না।

১৫৪ তম ওভারের দ্বিতীয় বলে লোভুকে চার মেরে ডাবল পূর্ণ করেন দেশের অন্যতম সেরা এই ব্যাটসম্যান। ডাবল হাঁকানোর পর ব্যাট, হেলমেট খুলেই চেহারায় আগ্রাসী এক ভাব প্রদর্শন করেন মুশফিক, অনেকটা কাউকে ভয় পাওয়ানোর মত দৃশ্য। ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে স্বাভাবিকভাবেই কৌতুহলী প্রশ্ন উদযাপনে কি বোঝানোর চেষ্টা?

519A9795 519A9797

মুশফিকুর রহিম জানান ডাবল সেঞ্চুরি উৎসর্গ করেছেন ছেলে মায়ানকে। উদযাপনটাও ছিল মায়ানের ডাইয়নাসোর প্রীতির প্রতিচ্ছবি, ‘এটা (উদযাপন) আমি আগে থেকে চিন্তা করি নাই। ডাবল হান্ড্রেড করার পরে, আমার ছেলে আসলে ডাইনোসরের খুব বড় ফ্যান। ও সবসময় ডাইনোসর দেখলে অন্যরকম সেলিব্রেশন করে। সেইটাই জাস্ট করার চেষ্টা করছিলাম। তো আমার ডাবল সেঞ্চুরিটা ওর জন্য।’

পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজে নিরাপত্তা ইস্যুতে নিজের নাম সরিয়ে নিয়েছেন উইকেট রক্ষক এই ব্যাটসম্যান। ফলে ভারত সফরের পর প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে নেমেছেন দেশের টেকনিক্যালি সেরা ব্যাটসম্যানদের একজন মুশফিক। মাঝে তাকে নিয়ে বিতর্কের হাওয়া ভয়ে যায় ক্রিকেটাঙ্গণে। ডাবল সেঞ্চুরির পর ছেলের জন্য আগ্রাসী উদযাপন হলেও সেঞ্চুরি তুলে সাদামাটা উদযাপনেও চাইলে খুঁজে পাওয়া যায় কোন ঈঙ্গিত।

কিন্তু মুশফিক সরাসরি জানালেন ছিলনা এমন কোন বার্তা, তবে ডাবলের পর উদযাপন করবেন ছেলের জন্য ছিল পূর্ব পরিকল্পনা। মুশফিক যোগ করেন, ‘সেঞ্চুরির পরের উদযাপনটা কারো উদ্দেশ্যে ছিলো না। আমি আসলে এরকম করে, আমার যতটুকু ক্যারিয়ারই হয়েছে প্রতিশোধ বা প্রতিবাদের জন্য সেলিব্রেশন করিনাই। আমি সবসময় মনে করি যে আমি আমার নিজের সঙ্গে ফাইট করি। যতটুকু খেলি বা যত ম্যাচই খেলি। সত্যি কথা বলতে প্রি প্ল্যান ছিলো না। ইন শা আল্লাহ ডাবল সেঞ্চুরিটা যদি করতে পারি আমার ছেলের জন্য করবো। ইন্সপায়ার ছিলো যেইটা আমাকে পুশ করেছে।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

টেস্টে বাংলাদেশের সবার উপরে মুশফিক

Read Next

‘৩০০’ করতে চেয়েছিলেন মুশফিক

One Comment

  • nice celebration

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
105
Share