অভিষেকেই আলো ছড়ালেন তামিম, রাজ্জাকের ‘৭’

তানজিদ হাসান তামিম, বিসিবি একাদশের পক্ষে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সেঞ্চুরি

বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএল) ফাইনালে ইসলামী ব্যাংক ইস্ট জোনের হয়ে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে অভিষেক হল অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয়ী বাংলাদেশ দলের ওপেনার তানজিদ হাসান তামিমের। অভিষেকেই ৮২ রানের ইনিংস খেলেও দলকে বাঁচাতে পারেননি ফলো অন লজ্জা থেকে। যদিও ইস্ট জোনকে ফলো অনে না ফেলে ২য় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমেছে বিসিবি সাউথ জোন।

প্রথম ইনিংসে বিসিবি সাউথ জোনের ৪৮৬ রানের জবাবে ইসলামী ব্যাংক ইস্ট জোন প্রথম ইনিংসে অলআউট ২৭৩ রানে।

৩ উইকেটে ১১০ রান তুলে দ্বিতীয় দিন শেষ করে ইসলামী ব্যাংক ইস্ট জোন। ২১ রানে অপরাজিত থেকে দিন শুরু করা মাহমুদুল ফেরেন ৩৩ রান করে। তবে শূন্য রানে অপরাজিত থাকা আফিফ অভিষিক্ত তামিমকে নিয়ে গড়েন ১০০ রানের জুটি। নিজে ৪৭ রান করে ফিরে গেলেও তামিম তুলে নেন অভিষেকেই ফিফটি।

আব্দুর রাজ্জাকের আরও একবার ৫ উইকেট শিকারে তামিমের অভিষেক ফিফটিও বড় সংগ্রহ এনে দিতে পারেনি ইসলামী ব্যাংক ইস্ট জোনকে। শেষদিকে একাই লড়াই করেন তামিম, আব্দুর রাজ্জাকের বলে ফরহাদ রেজার হাতে ক্যাচ দেওয়ার আগে ওয়ানডে স্টাইলে খেলেন ৮৭ বলে ৭ চার ২ ছক্কায় ৮২ রানের ইনিংস।

এর আগে বিসিবি একাদশের হয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দুইদিনের প্রস্তুতি ম্যাচেও সেঞ্চুরি হাঁকান বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান। মূলত ওপেনার হলেও ঐ ম্যাচ দিয়েই জানান দেন খেলতে পারেন যেকোন পজিশনে। ৭ নম্বরে নেমে দলের বিপর্যয়ে সেদিন খেলেছেন অপরাজিত ১২৫ রানের ইনিংস। ইসলামী ব্যাংক ইস্ট জোনের হয়ে আজকের (২৪ ফেব্রুয়ারি) ইনিংসটিও এসেছে ৬ নম্বরে নেমে।

বিসিবি সাউথ জোনের হয়ে আব্দুর রাজ্জাক একাই তুলে নেন ৭ উইকেট এছাড়া দুটি শিকার পেসার শফিউল ইসলামের। একটি উইকেট নেন অফ স্পিনার মেহেদী হাসান।

২য় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই এনামুল হক বিজয় ও ফজলে মাহমুদ রাব্বির উইকেট হারিয়েছে বিসিবি সাউথ জোন। ১০ রান করা বিজয়কে বোল্ড করে সাজঘরে ফিরিয়েছেন পেসার হাসান মাহমুদ, পিনাক ঘোষের ক্যাচ বানিয়ে ফজলে মাহমুদকে ফেরান আবু হায়দার রনি।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

ধোনি-মাশরাফির পরিস্থিতিতে মিল; করণীয় জানালেন ভিমানি

Read Next

টেস্টে বাংলাদেশের সবার উপরে মুশফিক

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
14
Share