বিসিএল ফাইনালে এগিয়ে বিসিবি সাউথ জোন

বিসিএল

আগের দিন এনামুল হক বিজয় ও ফজলে মাহমুদ রাব্বির জোড়া ফিফটির সাথে টপ অর্ডারের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় ৬ উইকেটে ৩০৫ রানে দিন শেষ করে বিসিবি সাউথ জোন। বিসিএলের (বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগ) ফাইনালে আজ (২৩ ফেব্রুয়ারি) ২য় দিনে ফরহাদ রেজার সেঞ্চুরিতে সাউথ জোন থামে ৪৮৬ রানে। জবাবে ভালো শুরু পেয়েও সুবিধাজনক অবস্থানে নেই ইসলামী ব্যাংক ইস্ট জোন। ৩ উইকেটে ১১০ রান তুলে দিন শেষ করেছে ইমরুল কায়েসের দল।

৩৭ রানে দিন শুরু করা বিসিবি সাউথ জোনের শামসুর রহমান শুভ সকালেই তুলে নেন ফিফটি। তবে বিজয়-রাব্বিকে অনুসরণ করে শামসুরও থামেন সেঞ্চুরির কাছে গিয়ে। ১৬২ বলে ১০ চারে খেলেন ৭৯ রানের ইনিংস। তার বিদায়ে ভাঙে ফরহাদ রেজার সাথে তার গড়া ৯৪ রানের জুটি।

বিজয়-রাব্বি-শামসুররা সেঞ্চুরির কাছে গিয়ে হতাশ হলেও সেঞ্চুরি তুলে নেন ফরহাদ রেজা। লাঞ্চের পর ১৭৩ বলে ১০ চার ৫ ছক্কায় সেঞ্চুরিতে পৌঁছানো ফরহাদ শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন ১৮৬ বলে ১০৩ রানে। শেষদিকে তাকে যোগ্য সঙ্গ দেন শফিউল ইসলাম। দুজনে মিলে ৯ম উইকেটে যোগ করেন ৮৮ রান।

৫২ বলে ৫ চারে ৩০ রান করেন শফিউল। দুজনের জুটিতে বিসিবি সাউথ জোন যখন দলীয় সংগ্রহ ৫০০ পার করার দিকে ছুটছে তখনই আঘাত হানেন মোহাম্মদ আশরাফুল। শফিউলকে ফেরান সরাসরি বোল্ড করে। শফিউলের আগে আব্দুর রাজ্জাককেও বোল্ড করেন আশরাফুল। ৬ ওভারে ৩ মেডেনে ১৩ রান খরচায় দুই উইকেট নেন আশরাফুল। সমান দুটি করে উইকেট নেন রুয়েল মিয়া ও সাকলাইন সজীবও। একটি করে শিকার আবু হায়দার রনি ও আফিফ হোসেন ধ্রুব’র।

জবাবে নিজেদের প্রথম ইনিংসে উদ্বোধনী জুটিতে ভালো কিছুর ঈঙ্গিত দেন মোহাম্মদ আশরাফুল ও পিনাক ঘোষ। দুজনে মিলে যোগ করেন ৬৩ রান, ৫ রানের ব্যবধানে দুজনকেই ফেরান আব্দুর রাজ্জাক। ৩৮ রান আসে পিনাক ঘোষের ব্যাট থেকে, আশরাফুল থামেন ২৮ রানে। থিতু হওয়া ইমরুল কায়েসকে (২২) ফেরান শফিউল ইসলাম। ১০৯ রানে তিন উইকেট হারানো ইসলামী ব্যাংক ইস্ট জোন দ্বিতীয় দিন শেষ করে ৩ উইকেটে ১১০ রানে। ২১ রানে অপরাজিত আছেন মাহমুদুল হাসান ও শূন্য রানে আফিফ হোসেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ দ্বিতীয় দিন শেষে

বিসিবি সাউথ জোন ৪৮৬/১০ (১৩৯), এনামুল ৭৬, ফজলে ৮৬, আল আমিন ৩৯, শামসুর ৭৯, মাহমুদউল্লাহ ১, নুরুল ১৮, মেহেদী ৩৬, ফরহাদ ১০৩*, রাজ্জাক ৭, শফিউল ৩০, আল আমিন ০; রুয়েল ২১-৪-৮৬-২, আবু হায়দার ২৩-২-৬০-১, হাসান ১৮-৩-৬৫-০, মাহমুদুল ২৭-১-১২৬-০, সাকলাইন ৩২-৬-৭৮-২, আফিফ ১২-১-৫১-১, আশরাফুল ৬-৩-১৩-২।

ইসলামী ব্যাংক ইট জোন ১১০/৩ (৩৯), পিনাক ৩৮, আশরাফুল ২৮, মাওমুদুল ২১*, ইমরুল ২২, আফফ ০*; শফিউল ৯-১-৩৪-১, রাজ্জাক ১৪-২-৩৪-২।

ইসলামী ব্যাংক ইস্ট জোন ৩৭৬ রানে পিছিয়ে।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

‘আগে ওয়ানডে, এরপর টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট’

Read Next

শচীন, লারা, দিলশানদের ম্যাচের টিকেটের চাহিদা তুঙ্গে

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
6
Share