মাহমুদউল্লাহকে খেলা ছাড়তে বলার কেউ নন ডোমিঙ্গো

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ১৭০ কে পাখির চোখ করছেন

রাওয়ালপিন্ডি টেস্টে ব্যর্থতার পরই মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের টেস্ট ক্যারিয়ার হুমকিতে এমন একটা আলোচনা বেশ কয়েকদিন ধরেই চলছে। কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো চান সাদা বলেই মনোযোগ দিক রিয়াদ, টিম ম্যানেজমেন্টেরও মত একই রকম। এমন আলোচনায় মুখরিত সংবাদমাধ্যম। এমনকি ‘ডোমিঙ্গোকে দিয়ে রিয়াদকে টেস্ট ক্যারিয়ার নিয়ে ভাবার পরামর্শও দেওয়া হয়েছে’- খবরের শিরোনামে জায়গা পেয়েছে।

বিশেষ করে ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে বাদ দেওয়ার পর বিষয়টি আরও গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠে। যদিও প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু সরাসরিই বলেছেন বাদ নয়, বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে রিয়াদকে। অন্যদিকে রিয়াদ আছেন আগামীকাল থেকে শুরু হতে যাওয়া বিসিএলের ফাইনালে বিসিবি সাউথ জোনের দলে।

লাল বলে বিশ্রামই যদি দেওয়া হয় ঘরোয়া লংগার ভার্সনেও নিশ্চয়ই খেলার কথা ছিলনা অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যানের। এ নিয়েও হয়েছে বিস্তর আলোচনা-সমালোচনা। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আগামীকাল (২২ ফেব্রুয়ারি) থেকে শুরু হতে যাওয়া মিরপুর টেস্টের আগে ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোকে পেয়ে মাহমুদউল্লাহ ইস্যুতে ছোঁড়া হয় প্রশ্ন।

রিয়াদ ইস্যু খোলাসা করেছেন টাইগার কোচ, কারও ক্যারিয়ারে যতি টেনে দেওয়ার কাজ তার নয় বলে সাফ জানিয়েছেন। তবে সাদা বলে রিয়াদকে দলের অবিচ্ছেদ্য অংশ উল্লেখ করে লাল বলে তার ফিরে আসার প্রচেষ্টার প্রশংসা করেছেন ডোমিঙ্গো। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এই মুহূর্তে সে দলে নেই এবং আমি তাকে ভবিষ্যতে বিবেচনার জন্য বলেছি কারণ সে আমাদের সাদা বলের অবিচ্ছেদ্য অংশ। টেস্ট দলে ফিরতে সে মরিয়া। দেশের হয়ে ৪৯ টি টেস্ট খেলেছে সে।’

‘বাংলাদেশের দুর্দান্ত একজন পারফর্মার সে, আর তার টেস্ট দলে ফিরে আসার চেষ্টা প্রশংসার দাবিদার। আমি যেটা বললাম সে বাংলাদেশের অন্যতম সেরা ক্রিকেটার। সাদা বলে সে ৪ জন সেরা ক্রিকেটারের একজন।’

২০০৯ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে অভিষেক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের। এরপর দেশের হয়ে খেলেছেন ৪৯ টেস্ট, ৩১.৭৭ গড়ে রান করেছেন ২৭৬৪। ১৬ ফিফটির বিপরীতে আছে ৪ সেঞ্চুরি। তিনটি সেঞ্চুরি আবার সবশেষ দুই বছরে। গতবছর শুরুতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সেঞ্চুরির পর সবশেষ ১০ ইনিংসে ফিফটি একটি, সবশেষ ৯ ইনিংসে ৩০ পেরিয়েছেন একবার। ভারত সফরে ব্যর্থ হওয়ার পর পাকিস্তানের বিপক্ষে রাওয়ালপিন্ডি টেস্টের ব্যাটিং ধরনই তাকে দাঁড় করায় কাঠগড়ায়।

প্রথম ইনিংসে ২৫ রান করা রিয়াদ দ্বিতীয় ইনিংসে ফিরেছেন খালি হাতে। বিশেষ করে নাসিম শাহের হ্যাটট্ট্রিক বলে যেভাবে অফ স্টাম্পের বাইরের বল খেলতে গিয়ে হারিস সোহেলের হাতে ধরা পড়েছেন তাতে তার শট নির্বাচন নিয়েও প্রশ্ন উঠে বেশ ভালোভাবে।

তবে রিয়াদ হাল ছাড়ছেন না, লড়াই করবেন টেস্ট জায়গা ফিরে পেতে। ৩৪ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান কৃতিত্ব পাচ্ছেন কোচেরও, ‘সে এভাবে নিজের জায়গা ফিরে পেতে লড়ছে তার পুরো কৃতিত্বই তার। কারও খেলা বন্ধ করার কথা বলা আমার কাজ না। একজন ক্রিকেটার যে সাফল্যের সাথে লম্বা সময় ধরে খেলছে, দেশের হয়ে খেলা ছাড়ার সিদ্ধান্তটা নিজেই নেওয়ার সুযোগটা তার প্রাপ্য। সুতরাং নিঃসন্দেহে এই সিদ্ধান্তটা তাকেই নিতে দিতে হবে।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

ডোমিঙ্গো তিন পেসার নামাতেন, যদি…

Read Next

ইস্ট জোনের জন্য ছেড়ে দেওয়া হল হাসানকে, দলে আছেন তামিমও

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
0
Share