‘কথা দিলাম টিমের যে কেউ ১০০, ২০০ কিংবা ৩০০ করবে’

মুমিনুল হক

টেস্টে বাংলাদেশের শেষ ১০ ইনিংসে কোনো ব্যাটসম্যানের ব্যাটে শতরানের ইনিংস নেই। দেশের কোনো ব্যাটসম্যান সর্বশেষ শতক হাকিয়েছিলেন ২০১৯-এ নিউজিল্যান্ডের  বিপক্ষে। আগামীকাল জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মিরপুর টেস্টে মাঠে নামার আগে অধিনায়ক মুমিনুলের কণ্ঠে বড় আশ্বাস, দলের যে কেউ খেলবে বড় ইনিংস- ১০০, ২০০ কিংবা হতে পারে ৩০০ রানের ইনিংসও।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে গতবছর সেডন পার্কে ৩টি শতরানের ইনিংস এসেছিলে টাইগার ব্যাটসম্যানদের ব্যাটে- প্রথম ইনিংসের তামিমের শতক, দ্বিতীয় ইনিংসে সৌম্য সরকার আর মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের। আর এই ম্যাচের পর পাকিস্তানের বিপক্ষে রাওয়ালপিন্ডি টেস্ট পর্যন্ত বাংলাদেশের কোনো ব্যাটসম্যান সেঞ্চুরি উদযাপন করতে পারেনি। কতটা অফফর্মে ইনিংসের পর ইনিংস কাটাচ্ছে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা এর প্রমান এসেছে সবশেষ দুই টেস্টে।

সেডন পার্কে ঐ টেস্টের পর পাঁচটি টেস্ট খেলেছে বাংলাদেশ। কিন্তু শতক আসেনি কোনো ব্যাটসম্যানের ব্যাটে। যার কারণে শেষ কয়েক টেস্টে ইনিংস ব্যবধানের পরাজয় বাংলাদেশের সঙ্গী হয়েছে। দলের ব্যাটসম্যানদের এমন খারাপ সময়ের খারাপ গল্প অধিনায়ক মুমিনুলও অকপটে স্বীকার করেছেন। বলেছেন অফফর্ম থেকে দলের ফিরে আসার কথাও

‘সত্যি বলতে গেলে আমার কাছে মনে হয় এতগুলো ইনিংসে একটা ১০০ না থাকা মানে হয়তো আপনি নিচের দিকেই আছেন। আমার কাছে মনে হয় দেখেন মানুষের মাঝে মাঝে একটু ব্যাডপ্যাচ যায়। দল হিসেবে আমরা হয়তো ব্যাড প্যাচ পার করছি। ইনশাল্লাহ আমরা এটা ওভারকামের জন্য কাজ করছি।’

মুমিনুল হক পুরো দলের হয়েই সাংবাদিকদের কথা দিয়ে গেলেন, তাঁর দলের কেউ ১০০, ২০০ কিংবা ৩০০ ও করবে। নিজের কথা না বলে ব্যাটসম্যানদের পক্ষে একাই বলেছেন, বড় ইনিংসের আশ্বাস অধিনায়কের কণ্ঠে,

‘খুব শীঘ্রই কথা দিচ্ছি কথাই দিয়ে দিলাম। টোটাল দলের কথাই বলছি, আমার কথা বলতেছিনা। আমি আমার কথা বলিনা প্রেস কনফারেন্সে, দলের কথাই বলি। ওই কথায় আমাদের টিমের কেউ ১০০, ২০০ বা ৩০০ করবে কথা দিলাম যে কেউই হোক বা বড় ইনিংস খেলবে ইনশাল্লাহ।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

‘মিস্টার ইন্টারফেয়ারার’ সম্পর্কে ডোমিঙ্গোর ভাষ্য

Read Next

ব্যাংকার্স চ্যাম্পিয়নশিপ ট্রফিতে সেঞ্চুরি, জয় পেল এফএসআইবিএল ও এমটিবি

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
16
Share