অনুশীলনের মত মাঠের লড়াইয়েও আসবে কি বসন্ত?

ড্যানিয়েল ভেট্টোরি মুমিনুল হক

কাগজে-কলমে শীত শেষ হয়েছে সপ্তাহখানেক আগে, ইট পাথরের এই যান্ত্রিক শহরে ক্রমশই ঋতু পরিবর্তনের লক্ষণ যেন বোঝা দায়। এই যেমন ঢাকার রাস্তায় বেরোলেই আশেপাশে আম গাছের মুকুল না দেখলে বোঝাই যেত না বসন্ত এসে গেছে। ক্যালেন্ডারে শীতের উপস্থিতি না থাকলেও আজ দুপুরের পরই কেমন যেন কুয়াশাচ্ছন্ন পরিবেশের দেখা মেলে মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে।

পরিবেশে শীতের সংকেত থাকলেও ঋতুর সাথে মিল রেখে শের-ই-বাংলার গ্র্যান্ড স্ট্যান্ডে সাংবাদিকদের প্রাণবন্ত আড্ডায় অবশ্য ছিল বসন্তের ছোঁয়া। সামনেই অনুশীলনে ব্যস্ত বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটার ও কোচিং স্টাফরা। সেখানেও চোখে পড়ে বেশ ফুরফুরে মেজাজের টিম বাংলাদেশকে। শরীরি ভাষা কিংবা হাসোজ্জ্বল অনুশীলন দেখে বোঝার উপায় নেই এই দলটাই সবশেষ ৬ টেস্টেই হেরেছে বাজেভাবে।

পূর্বনির্ধারিত সময় দেড়টায় হাজির জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টের প্রাথমিক স্কোয়াডে থাকা ক্রিকেটাররা। নিয়ম হয়ে যাওয়া ফুটবল খেলে গা গরম দিয়েই শুরু করে তামিম-মুশফিক-মুমিনুল-লিটনরা। দুই গ্রুপে ভাগ হয়ে খেলা ফুটবলে হেরেছে তামিমের দল। শাস্তি স্বরূপ তামিমদের সহ্য করতে হয় প্রতিপক্ষ দলের খেলোয়াড়দের খুব কাছ থেকে মারা শট।

ফুটবল খেলা শেষে মূল কাজ ক্রিকেটে মনোযোগ তামিম-মুস্তাফিজ-তাইজুলদের। কয়েক গ্রুপে ভাগ হয়ে ফিল্ডিং, থ্রোয়িং, ক্যাচ অনুশীলনে ব্যস্ত সময় পার করেন হেড কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো, পেস বোলিং কোচ ওটিস গিবসন, স্পিন কোচ ড্যানিয়েল ভেট্টোরিরা। অনুশীলনের নিয়মিত দৃশ্যগুলোর মধ্যে হঠাৎ চোখ আটকায় ইনডোরে ব্যাটিং অনুশীলন করতে যাওয়া লিটন কুমার দাস, এবাদত হোসেন, আবু জায়েদ রাহি, নাইম হাসান ও মেহেদী হাসান মিরাজদের একটি গ্রুপের দিকে।

পুরো গ্রুপে টেল এন্ডারদের ভীড়ে একমাত্র স্বীকৃত ও টেকনিক্যালি দেশের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান লিটন দাস। মূলত লোয়ার মিডল সামলাতে হয় লিটনকে, কিন্তু যোগ্য সঙ্গের অভাবে খুব একটা সুবিধা করতে পারেন না বেশিরভাগ সময়। আর সে প্রতিবন্ধকতা দূর করতেই হয়তো লেজের ব্যাটসম্যানদের নিয়ে লিটনকে নিয়ে অনুশীলন। ঘন্টা দেড়েক অনুশীলনে সময় পার করেন রাহি, নাইম, মিরাজ ও এবাদতরা। নিয়মিত ঢংয়ে ব্যাটিং অনুশীলন করেন লিটন দাসও, সামনে দাঁড়িয়ে সেটি দেখছিলেন ব্যাটিং কোচ ম্যাকেঞ্জি, ইনডোরে নিবিড় অনুশীলনে উপস্থিত কোচ ডোমিঙ্গো ও ভেট্টোরিও।

পরে সেখানে যোগ দেন সাইফ হাসান ও মুমিনুল হক। ততক্ষণ শের-ই-বাংলায় থ্রোয়িং, ক্যাচ অনুশীলনে ব্যস্ত উইকেট রক্ষক মুশফিকুর রহিম, তামিম ইকবাল, হাসান মাহমুদ, তাইজুল ইসলামরা। সাইফ হাসান-মুমিনুল হকের পর ইনডোরে ব্যাটিং অনুশীলনে যান মুশফিকুর রহিম-ইয়াসির আলি রাব্বি-তাসকিন আহমেদরাও। মাঝে মুমিনুলের ছোঁড়া বলে তাইজুলের নতুন ব্যাট পরীক্ষা করে দেন তামিম ইকবাল। মজার ছলে গ্লাভস পরে ব্যাট হাতে নক করতে দেখা যায় নির্বাচক হাবিবুল বাশারকেও।

একদম শেষদিকে নাইম হাসানকে নিয়ে মাঠের পশ্চিম প্রান্তে ব্যাট চালান তামিম ইকবাল। সেন্টার উইকেটে স্টাম্প, প্যাড ছাড়া বড় শট খেলার তাড়না তামিমের, আর নাইম চায় কীভাবে পরাস্ত করা যায় দেশসেরা এই ওপেনারকে। বিসিএলের সবশেষ দুই ম্যাচে ২১ উইকেট নেওয়া নাইম ভালোই ভুগিয়েছেন তামিমকে। তার লাফিয়ে ওঠা বলে ব্যাটে-বলে সংযোগ করাতে বেশ কয়েকবার ব্যর্থ তামিম। স্টাম্প না থাকলেও একটি বল তো নিশ্চিত স্টাম্পেই যেত বলে মনে করেন নাইম। তামিম মানতে রাজি না হলেও কাছেই থাকা মুমিনুল হকের কাছে অভিযোগ করতে দৌড়ে আসেন এই অফ স্পিনার।

রিপ্লে দেখার সুযোগ নেই বলে মুমিনুল নিজেই আম্পায়ারের দায়িত্ব নিয়ে নেন। হয়তো নাইমকে এটাই বোঝানোর চেষ্টা করছিলেন, ‘এবার আমি আছি সমস্যা নেই, আউট হলে না মানার সুযোগ নেই।’ পরে ডাউন দ্যা ট্র্যাকে এসেও পরাস্ত হয়েছেন তামিম, এরপর অবশ্য হাঁকিয়েছেন কয়েকটি চার ছক্কা। আম্পায়ারের দায়িত্বে থাকা মুমিনুল হকও ব্যস্ত সময় পার করেছেন দুই হাত দিয়ে চার-ছক্কার সংকেত দিতে দিতে। ইনডোর থেকে ড্রেসিং রুমে ফিরে আসার সময় তামিমের ব্যাটিং দেখতে দাঁড়িয়ে যান তাসকিন আহমেদ, ইয়াসির আলিরাও।

তামিম ব্যাটিং করার সময়টাতে মুশফিক, মুস্তাফিজদের ক্যাচ অনুশীলনের মধ্য দিয়ে শেষ হয় তৃতীয় দিনের মত বাংলাদেশের অনুশীলন ক্যাম্প। কুয়াশাচ্ছন্ন আবহাওয়া বলে ফ্লাডলাইটের আলোয় অনুশীলন করেন তামিম-মুশফিকরা। ফলে বোঝার উপায় নেই বিকেল গড়িয়ে সন্ধ্যা নামলো কিনা! তবে ঘড়িতে সময় দেখে নিশ্চিত হওয়া যায় ফাল্গুনের ৭ম দিনতা শীতের আবহেই কেটে গেল। অনুশীলনে এমন ফুরফুরে বাংলাদেশ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মাঠের খেলাতে কতটা ফুরফুরে থাকবে সেটাই দেখার বিষয়…

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

আগের থেকে শক্তিশালী জিম্বাবুয়ে রাজত্ব করতে চায় বাংলাদেশে

Read Next

সবেধন নীলমণির অংশ না হতে চেয়ে মাহমুদউল্লাহর আবেদন

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
6
Share