‘বলেছে শুধু দৌড়াও, আর তেমন কোনো টিপস দেয়নি’

featured photo1 5

বাউন্সি উইকেটে সুইং করানোর দক্ষতা আছে পেসার আবু জায়েদ রাহির। লাইন লেন্থের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে পারেন। টেস্ট ক্রিকেটে মাত্র ৮ ম্যাচ খেলা রাহি এখনই টেস্টের পেস ইউনিটের লিডার হতে চান না। অন্তত ৭০ টা টেস্ট খেলে নিজেকে চেনাতে চান এই পেসার। রাহি কথা বলেছেন বোলিং কোচদের নিয়েও।

সবশেষ বাংলাদেশের খেলা রাওয়ালপিন্ডি টেস্টে রাহি শিকার করেন পাকিস্তানের ৩ উইকেট। এবার ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আসন্ন টেস্টের স্কোয়াডেও আছেন। এখন পর্যন্ত সাদা পোশাকে ৮ টেস্ট খেলা পেসার রাহির ঝুলিতে এসেছে মোট ২০ উইকেট।

গত বিশ্বকাপের পর কোর্টনি ওয়ালশের সঙ্গে চুক্তি শেষ করে বিসিবি। এরপর দক্ষিণ আফ্রিকান চার্ল ল্যাঙ্গাবেল্ট যোগ দেন এই দায়িত্বে। নিজ দেশের জাতীয় দলের প্রস্তাব পেয়ে তিনি বিসিবির চাকরি ছেড়ে দিলে ফাঁকা থাকে পেস বোলিং কোচের জায়গা। এবার আসেন ক্যারিবিয়ান কোচ ওটিস গিবসন। কোচদের আসা-যাওয়ার মধ্যেও কিভাবে নিজেকে তৈরি করছেন পেসাররা। রাহির বক্তব্য,

‘আমরা কোচের ভেতর থেকে ভালো জিনিসটা নিতে চাই, যেটা আমার জন্য ভালো হবে। যেমন ধরেন ওয়ালশ আমাকে যে জিনিসটা বলে গেছে কিংবা চাম্পকা যেটা বলে গেছে, এখানে আমার যে জিনিসটা ভালো সেটা নিয়েই কাজ করা মেইন আমার কাছে মনে হয়। কোচ চলে গেছে, আরেকজন এসেছে এটা তো আর আমাদের হাতে নেই। যিনি ছিলেন তিনি যেটা শিখিয়েছেন সেই অনুযায়ী যেন কাজ করতে পারি মাঠে সেটাই আসল।’

পাকিস্তান সিরিজের আগে বাংলাদেশ দলের সঙ্গে যোগ দেন বোলিং কোচ ওটিস গিবসন। নতুন এই বোলিং কোচের সঙ্গে কি কাজ করছেন রাহি?

‘মাত্র দুই দিন হয়েছে বলতে গেলে। যখন আমরা টেস্টে গিয়েছিলাম তখন সে বলেছিল টেস্ট চলাকালীন কাজ করবে না। যেমন গতকাল বলেছে যে আমরা যেহেতু নতুন করে এসেছি, মানে লাইট বোলিং করেছি গতকালকে, সে বলেছে যে যেহেতু লাইট বোলিং করেছি তাই রান আপটি নিয়ে কাজ করো এবং এক জায়গায় বোলিং করো পরে এটা নিয়ে আমরা কাজ করবো।’

নতুন কিছু শিখতে ভারতীয় পেসার মোহাম্মদ শামির কাছ থেকে পরামর্শ নিয়েছেন আবু জায়েদ। গত নভেম্বরে ইন্দোর টেস্ট চলাকালীন সময় শামির সঙ্গে সাক্ষাৎ করে রাহি। কি টিপস পেয়েছেন রাহি, আজ আবার নতুন করে নিজেই জানালেন।

‘টিপস বলতে ফিটনেস নিয়ে কাজ করেছি কিছু। শামি বলেছে শুধু দৌড়াও। আর আমাকে তেমন কিছু টিপস দেয়নি। সে বলেছে ক্ষেত চিনো? বলেছে আপনি তো চিনবেন অবশ্যই। আপনি তো সিলেটেরই। সে বলেছে ক্ষেত ম্যা দাঁড়াও, এমন বলার পর আমি দাঁড়িয়েছি, এরপর সে বলেছে আমি অনেক দৌড়াতাম, এরপরে আমার শরীর ফিট হয়েছে। তখন আমি জোরে বোলিং করতে পারছি।’

ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই দারুণ গতি দিয়ে মুগ্ধ করেছেন আবু জায়েদ রাহি। লম্বা রানআপের সঙ্গে তার বলে সুইংও বেশ ভালো। তবে টেস্ট ক্রিকেটে মাত্র ৮ ম্যাচ খেলা রাহি এখনই নিজেকে দেশের টেস্ট বোলিং ইউনিটের লিডার বানাতে চান না।

‘আমার তো এখনো এই ফিলিংসটা আসছে না। আমি মাত্র ৮টি টেস্ট খেলেছি। আমার কাছে ভেতর থেকে মনে হচ্ছে যেন অনেক টেস্ট খেলি। এটাই শুধু ভেতরে রয়েছে, এখানে লিডারশিপ বলে কিছু না। আমার মনে হয়েছে যে আরো টেস্ট খেলা উচিত, হয়তো আরো টেস্ট খেলবো। ১০০ টেস্ট নয়, অন্তত ৫০-৭০ টেস্ট খেলতে পারি।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে জেতার আগেই জিতে যাওয়ার মানসিকতায় বিরক্ত পাপন

Read Next

‘চাপের পরিবর্তে চ্যালেঞ্জ, অনেক উপভোগ করেছি’

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
10
Share