যেকারণে অন্যদের চেয়ে আকবরকে এগিয়ে রাখলেন বিকেএসপি কোচ

শরিফুল জয় ইমন আকবর মাসুদ হাসান বিকেএসপি

দিন কয়েক আগে যুব বিশ্বকাপ জিতে এসেছে আকবর আলির নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। আকবর আলি সহ বিশ্বকাপ জয়ী স্কোয়াডে বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (বিকেএসপি) থেকে সুযোগ পান সাতজন ক্রিকেটার। দেশের ক্রিকেটে বিকেএসপির অবদান অনস্বীকার্য। নাইমুর রহমান দুর্জয়, আল শাহরিয়ার রোকন হয়ে সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মুমিনুল হক, মোহাম্মদ মিঠুনরা নিজেদের ক্রিকেট প্রতিভা বিকশিত করার সুযোগটা পান বিকেএসপিতেই।

আকবর আলি, মাহমুদুল হাসান জয়, শামীম হোসেন পাটোয়ারীরা এখনো জাতীয় দলে সুযোগ না পেলেও আছেন প্রক্রিয়ার মধ্যেই। যার অনেকটাই এগিয়ে দিল যুব বিশ্বকাপ জয়, নিজেদের আত্মবিশ্বাস ধরে রেখে স্বাভাবিক খেলাটা খেললে ভবিষ্যত বাংলাদেশ দলকে প্রতিনিধিত্ব করার সব উপকরণই আছে তাদের মধ্যে।

বিশেষ করে ঠান্ডা মাথার আকবরকে নিয়ে প্রত্যাশার বেলুনটা হয়েছে ইতোমধ্যে বেশ বড়ই। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে আজ (১৮ ফেব্রুয়ারি) বিসিবি একাদশের স্কোয়াডেও জায়গা মিলেছে আকবরসহ যুব বিশ্বকাপ জয়ী ৬ ক্রিকেটারের। সবশেষ বিকেএসপিতে এসেছেন আকবররা এক পরিচয়ে আর এখন বিশ্বকাপ জয়ী দলের কাপ্তান, ক্রিকেটার। বিশ্বকাপ শেষে স্বল্প দিনের ছুটি কাটিয়ে আকবরদের মাঠে নামতে হয়েছে জিম্বাবুয়ের মত কোন আন্তর্জাতিক দলের বিপক্ষে খেলতে, তাও আবার নিজেদের আতুড় ঘর বিকেএসপির তিন নম্বর মাঠে।

ম্যাচ কাভার করতে আসা গণমাধ্যমকর্মীরা স্বাভাবিকভাবেই সুযোগের অপেক্ষায় ছিলেন আকবরদের বিকেএসপি কোচ মাসুদ হাসানের সাথে কথা বলতে। লাঞ্চ বিরতির পরের সময়টাতে সাংবাদিকদের কৌতুহল মিটিয়ে বেশ লম্বা সময় আড্ডায় নিমজ্জিত থাকেন ২২ বছর ধরে বিকেএসপির এই প্রধান ক্রিকেট কোচ, জানিয়েছেন আকবরদের শুরু আর গড়ে ওঠার দিনের গল্প।

বিশ্বকাপে সাতজন বিকেএসপির ক্রিকেটার সুযোগ পেলেও ভবিষ্যতে বড় তারকা হওয়ার সম্ভাবনা কাদের মধ্যে দেখছেন এমন প্রশ্ন ছুঁড়তেই মাসুদ হাসান আকবর আলিকে রেখেছেন এগিয়ে।

মাহমুদুল হাসান জয়, শামীম হোসেনদের সম্ভাবনার কথা উল্লেখ করে মাসুদ বলেন, ‘বড় প্লেয়ার যেমন স্বীকার করতেই হয় আকবর আলির কথা। ভালো লেভেলের প্লেয়ার হবে সে আশা করি। পাশাপাশি সবাই যেহেতু ছাত্র তারপরও বলতে হয় আরকি, সবাইতো চিন্তা করে স্যারতো মনে হয় আমাকে ওই দৃষ্টিতে দেখেনা। দৃষ্টি কিন্তু আছে যেমন মাহমুদুল হাসান জয়ের কথা যদি বলি তারও একটা ভালো ভবিষ্যৎ আছে।’

‘ভালো লেভেলের প্লেয়ার সে মাহমুদুল হাসান জয়। শামীম হোসেন পাটোয়ারির কথা বলি, সেও ভালো। কিন্তু তার গাইডটা বেশি দরকার। মেন্টাল ফ্রেড যেটা মাহমুদুল হাসান জয়ের রয়েছে, গুড সেন্স। তার (শামীম) মেন্টাল ফ্রেড কিন্তু এক না। ক্যাপাবল বলেই সে..কিন্তু মেন্টাল ফ্রেডের যে ব্যাপারটা সেখানে পার্থক্য রয়েছে দুজনের মধ্যে। মাহমুদুল হাসানকে যতটুকু গাইডলাইন দেওয়া দরকার তার চাইতে বেশি শামীমের দরকার। এটা একটা বিষয়।’

দুর্দান্ত অধিনায়কত্বে যুব বিশ্বকাপে দলকে শিরোপা এনে দিতে রেখেছেন বড় ভূমিকা, সুযোগ পেয়ে ফাইনালে ভারতের বিপক্ষে কঠিন পরিস্থিতিতে ৪৩ রানের হার না মানা ইনিংসে এনে দেন জয়। দেশের ক্রিকেট ইতিহাসে সোনালী অধ্যায় যোগ হয় আকবরের অধিনায়কসুলভ এক ইনিংসে। ভারতীয় ক্রিকেটারদের স্লেজিংয়ের জবাবে অমন খাদের কিনারায় দাঁড়ানো পরিস্থিতিতে মেজাজ নিয়ন্ত্রণে রাখেন আকবর।

টুর্নামেন্টের মাঝপথেই সন্তান জন্ম দিতে গিয়ে মারা যায় তার বোন। বোনের মৃত্যু শোককে শক্তিতে পরিণোত করে আকবর খেলে যান দেশের হয়ে। বেশ চাপা স্বভাবের আকবর কাউকে বুঝতেও দেননি নিজের ভেতরের ক্ষতের কথা। ছোটবেলা থেকেই কি আকবর এই স্বভাবের জানতে চাইলে বিকেএসপির প্রধান ক্রিকেট কোচ বলেন, ‘প্রথম থেকেই এরকম। এ জন্যইতো আমি বিসিবিতে নক করেছি যে অনূর্ধ্ব-১৯ এ ঢুকানোর জন্য। আরও দুই একজন তো ছিল। ওরাও টেকনিক্যালি সাউন্ড, ভালো পারফর্ম করতে পারে।’

মানসিকভাবে শক্ত আর দৃঢ়তার প্রমাণ দেওয়া আকবরে মুগ্ধ মাসুদ হাসান চেয়েছেন  নিশ্চিত হোক আকবরের দলে থাকা, ‘কিন্তু আকবর আলির যে গুনটা আছে, পার্থক্য যেটা আছে বললাম আকবর আলির মত মেন্টাল লেভেল ওদের নাই। যে কারণে আমি ব্যক্তিগতভাবে চেষ্টা করেছি, নক করেছি দলে ওকে ঢুকানো যায় কিনা।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

আইসিসির নয়া প্রস্তাবনায় টি-টোয়েন্টি চ্যাম্পিয়ন্স কাপ

Read Next

পেশাদার শাহাদাতের ত্যাগ স্বীকারে আপত্তি নেই

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
6
Share