আইসিসির নয়া প্রস্তাবনায় টি-টোয়েন্টি চ্যাম্পিয়ন্স কাপ

আইসিসি

২০২৩-২০৩১ সাইকেলে আইসিসি টি-টোয়েন্টি চ্যাম্পিয়ন্স কাপ করার প্রস্তাবনা এনেছে। যে টুর্নামেন্টে বিশ্বের সেরা ১০ দল ২০১৯ সালের বিশ্বকাপের মতো ৪৮ টি ম্যাচ খেলবে।

আইসিসির প্রস্তাবনা অনুযায়ী ২০২৪ ও ২০২৮ সালে টি-টোয়েন্টি চ্যাম্পিয়ন্স কাপ এবং ২০২৫ ও ২০২৯ সালে ওয়ানডে চ্যাম্পিয়ন্স কাপ অনুষ্ঠিত হবে। এর পাশাপাশি ২০২৬ ও ২০৩০ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হবে। ২০২৩ সালের বিশ্বকাপের পর ২০২৭ ও ২০৩১ সালেও হবে বিশ্বকাপ।

নারীদের ওয়ানডে চ্যাম্পিয়ন্স কাপ হবে ২০২৩ ও ২০২৭ সালে, বিশ্বকাপ হবে ২০২৫ ও ২০২৯ সালে। টি-টোয়েন্টি চ্যাম্পিয়ন্স কাপ হবে ২০২৪ ও ২০২৮ সালে, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হবে ২০২৬ ও ২০৩০ সালে।

৫০ ওভারি চ্যাম্পিয়ন্স কাপকে চ্যাম্নপিয়ন্স ট্রফির মতোই ধরা হবে। গেলবছর অক্টোবরে আইসিসির বোর্ড সভাতে এই প্রস্তাবনা তোলা হয়েছিল। যা নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া আছে বোর্ড ও আইসিসি কর্তাদের মাঝে। ওয়ানডে চ্যাম্পিয়ন্স কাপে খেলবে মাত্র ৬ দল, যেখানে খেলা হবে মোট ১৬ টি।

আইসিসির প্রস্তাবিত ২০২৩-২০৩১ সাইকেল সম্পর্কে মতামত দিতে ক্রিকেট বোর্ডগুলোকে ১৫ মার্চ পর্যন্ত সময় দেওয়া হয়েছে। মার্চের শেষে আইসিসির বোর্ড সভায় আসবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত।

আইসিসি ও আইসিসির প্রধান নির্বাহী মানু সোনির মতে প্রতি বছরই আইসিসির কোন টুর্নামেন্ট থাকা উচিৎ যাতে করে আইসিসির ক্যাশ ফ্লো আরো ভালো হয়। যদিও ৩ মোড়ল (ভারত, অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড) দ্বিপাক্ষিক সিরিজের জন্য বেশি সময় চায়। যাতে করে তারা বেশি মাত্রায় রেভিনিউ ঘরে তুলতে পারে।

আইসিসির প্রস্তাবিত সাইকেল বাস্তবায়িত হলে এইসব টুর্নামেন্ট করতেই ক্যালেন্ডারের বড় একটা অংশ শেষ হয়ে যাবে। যাতে করে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ সেভাবে আয়োজন করা সম্ভব হবে না। এসবের সাথে আইসিসি ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ তো আছেই।

আইসিসির প্রস্তাবনায় আরো উঠে এসেছে অলিম্পিকে ক্রিকেট ঢোকানো। লস অ্যাঞ্জেলসে ২০২৮ সালের অলিম্পিকে ক্রিকেট ইভেন্ট থাকার ব্যাপারে আশাবাদী আইসিসি।

সূত্রঃ ইএসপিএনক্রিকইনফো।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

বিকেএসপিতে যেমন গেলো প্রস্তুতি ম্যাচের ১ম দিন

Read Next

যেকারণে অন্যদের চেয়ে আকবরকে এগিয়ে রাখলেন বিকেএসপি কোচ

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
26
Share