বিমানবন্দর থেকে বিসিবির পথে বিশ্ব জয়ীরা

team
Vinkmag ad

দেশের ক্রিকেট তথা ক্রীড়াঙ্গনেরই এ যাবত কালের সেরা সাফল্য ছিনিয়ে এনেছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। পচেফস্ট্রুমে ভারতকে হারিয়ে বিশ্ব চ্যম্পিয়ন হওয়া টাইগার যুবাদের দেশে ফেরার অপেক্ষায় প্রহর গুনা শুরু গত রোববার রাত থেকেই। পরিবর্তিত সূচীতে আজ বিকেলে দেশে ফিরলো আকবর আলির দল। সাধারণ দর্শক থেকে বিসিবি এমনকি খোদ ক্রিকেটারদের কাছেও মাঝের সময়টা যেন অন্তিম মনে হচ্ছিল।

u19

নানা সমস্যা জর্জরিত গোটা দেশে নিকট অতীতে যে কবার একসাথে আনন্দের উপলক্ষ্য এসেছিল তার বেশিরভাগই ক্রিকেটারদের হাত ধরে। বড় কোন শিরোপা কিংবা টুর্নামেন্ট জয় নয় পদে পদে নিপিড়ীত এই জাতি আকরাম খান, মিনহাজুল আবেদিন নান্নু থেকে শুরু করে আশরাফুল, আফতাব, মাশরাফিদের একেকটি জয়েই উল্লাসে ফেটে পড়তো সারা দেশ। বড় দলগুলোর বিপক্ষে কালে ভদ্রে একটি জয়ই রাস্তায় রাস্তায় পতাকা মিছিল, রঙ ছড়ানোর কারণ হয়েছে বহুবার।

সাকিব-তামিমদের হাত ধরে নিয়মিত জয় পাওয়া শুরু করা বাংলাদেশের ক্রিকেট ভক্তদের ক্ষুধা বেড়েছে সময়ের পরিক্রমায়। এখন আর একটা ম্যাচ কিংবা সিরিজ জয়েই তুষ্ট থাকার জো নেই। ত্রিদেশীয় সিরিজ, এশিয়া কাপ, আইসিসি ইভেন্ট জয়েই চোখ ক্রিকেটার, বোর্ড ও ভক্ত সমর্থকদের। বাস্তবতা বিবেচনায় আইসিসি ইভেন্ট জয় সহজ না হলেও এশিয়া কাপ কিংবা ত্রিদেশীয় সিরিজ জয়ও ধরা দিচ্ছিলোনা।

ফাইনালে প্রতিপক্ষ ভারতকে হারানো যেন অসাধ্য হয়ে পড়েছে জাতীয় দল ও অনূর্ধ্ব-১৯ দলের। তীরে গিয়ে তরী ডুবিয়েছে সাকিব, তামিম, মুশফিকরা। জয়ের উপলক্ষ্য তৈরি করে মাস পাঁচেক আগেও এশিয়া কাপের ফাইনালে হেরে বসেছে যুব দল। তবে ক্রিকেট বিধাতা হয়তো এই ভারতকে হারিয়েই এদেশের মানুষকে বড় কোন আনন্দের উপলক্ষ্য দিতে চেয়েছেন, মাঝে নিয়েছেন বেশ কয়েকবার ধৈর্য পরীক্ষাও। ধৈর্য পরীক্ষায় পাশা করা বাংলাদেশিরা আবারও গত ৯ ফেব্রুয়ারি যুব বিশ্বকাপের ফাইনালে পরীক্ষা দিতে প্রস্তুত ছিলেন।

তবে এবার আর হতাশা নয় আনন্দের অশ্রু ঝরানোর কারোন হয়েই এসেছে ভারত। ক্ষণে ক্ষণে মোড় বদলানো ম্যাচে ভারত যুবাদের ৩ উইকেটে হারিয়ে বিশ্ব জয় করলো আকবর আলির দল। আকবরদের বরণ করে নিতে বিসিবিও নিতে শুরু করে প্রস্তুতি, দেশের ফেরার আগেই সব আয়োজন সম্পন্ন। এই যেমন আজ বিকেলে আকবরদের বহনকারী এমিরেটস এয়ারলাইন্সের বিমানটি অবতরণের পরই পেল ওয়াটার স্যালুট।

দেশের ক্রীড়াঙ্গনে এই প্রথম এমন কোন নজিরের সাক্ষী হল। অনেকটা ২০১৮ বিশ্বকাপ ফুটবল জয়ের পরে ফ্রান্স ও ২০১৬ সালে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়ন হয়ে দেশে ফেরার পর পর্তুগাল ফুটবল দল যেমনটা পেয়েছে। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান খানের উপস্থিতিতে আকবর, শরিফুল, রাকিবুল, তামিম, সাকিবদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেয় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। এর চাইতে বড় কিছুর পরিকল্পনা থাকলেও যাত্রীদের দুর্ভোগ ও এমনিতেই জ্যামে নাকাল ঢাকা আরও থমকে যাওয়ার আশঙ্কায় সে ভাবনা থেকে সরে আসে বিসিবি।

তবে বড় আয়োজনে কোন ছাড় দেয়নি বিসিবি, ক্রিকেটারদের নিয়ে নিজস্ব প্রোটোকলে নিয়ে যাওয়া হয় বিসিবি কার্যালয়ে। সন্ধ্যা ৫ টা ৫০ মিনিটে আকবরদের বহনকারী বিসিবির নিজস্ব বাস বিমানবন্দর ছেড়ে যায়। সেখানেই অপেক্ষায় হাজার হাজার ভক্ত সমর্থক। আকবরদের বিমানবন্দরে পৌঁছানোর আগেই মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের মূল ফতক পরিণত হয় জনস্রোতে। মিরপুরে বিসিবি কার্যালয়ে দুইদিন আগে থেকেই সাজ-সাজ রব উঠতে শুরু করে।

টাইগার যুবাদের ছবি সম্বলিত ব্যানার, ফেস্টুনে ভরে যায় বিসিবি কার্যালয়ের ভবন। গতকাল সন্ধ্যা থেকেই মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের সামনে অংশে দেখা যায় আলোকসজ্জা। আগেই জানানো হয়েছিল বিসিবিতে আকবরদের জন্য থাকছে নানা আয়োজন, বিসিবিতে ডিনার, সংবাদ সম্মেলন শেষেই ঘরে ফিরবে পুরো জাতিকে এক সুতোয় গেঁথে দেওয়ার উপলক্ষ্য তৈরি করা শামীম, তৌহিদ, সাকিব, তামিম, রাকিবুলরা। ঢাকার বাইরের ক্রিকেটাররা রাত কাটাবেন বিসিবিতে, ঢাকার ভেতরের ক্রিকেটাররা রাতেই ফিরে যাবেন পরিবারের কাছে।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

‘আমি আর প্রধানমন্ত্রী মনে প্রাণে বিশ্বাস করে রেখেছিলাম’

Read Next

বিশ্বকাপজয়ী প্রত্যেক ক্রিকেটার প্রতিমাসে ১ লক্ষ টাকা করে পাবে

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
12
Share