‘খেলে না, খেলে না, খেলে না’ ট্রেন্ডের বিপক্ষে তামিমের ভাষ্য

সাইফ হাসান তামিম ইকবাল
Vinkmag ad

বাংলাদেশের লংগার ভার্সন ঘরোয়া ক্রিকেট খেলতে চাননা জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা এমন অভিযোগ নিয়মিতই ওঠে। বিসিবি-ক্রিকেটাররা নিজ-নিজ পক্ষে দেখান যুক্তি। বিশেষ করে লংগার ভার্সনে পারিশ্রমিক ইস্যুটাই বারবার তুলে ধরতেন সিনিয়র ক্রিকেটাররা। ফাঁকা সূচীতে টুর্নামেন্ট আয়োজন হোক কিংবা বিসিবির কঠোরতা হোক সবশেষ জাতীয় লিগ থেকে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের অংশগ্রহণ সন্তোষজনক। চলতি বিসিএলেও খেলছেন প্রায় সব ক্রিকেটার যা পাকিস্তান সফরের আগে প্রস্তুতির উপলক্ষ্যও বটে।

৭ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হতে যাওয়া রাওয়ালপিন্ডি টেস্টের আগে নিজেদের ঝালিয়ে নেওয়ার শেষ বড় মঞ্চ বিসিএলের প্রথম রাউন্ড। তামিম ইকবাল, মুমিনুল হক, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদরা ব্যাট হাতে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে নিজেদের প্রস্তুতিটা নিয়ে নিয়েছেন শক্তপোক্তভাবেই। তামিম ইকবালতো তুলে নিলেন রেকর্ড গড়া ট্রিপল সেঞ্চুরিও। ইসলামী ব্যাংক ইস্ট জোনের হয়ে ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোনের বিপক্ষে ৩৩৪ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলার পথে দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে পান ট্রিপল সেঞ্চুরির স্বাদ।

প্রতিপক্ষ ক্রিকেটার রকিবুল হাসানের ১৩ বছর আগের রেকর্ড ভেঙে বাংলাদেশের হয়ে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংসের মালিকও ড্যাশিং এই ওপেনার। তৃতীয় দিনের খেলা শেষে মিরপুরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তামিম জানালেন মূলত ব্যস্ত ক্রিকেট সূচীই জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের লংগার ভার্সনের টুর্নামেন্টে অংশ নিতে বাঁধা হয়ে দাঁড়ায়।

সবশেষ শ্রীলঙ্কা সফরের পর গণমাধ্যমের মুখোমুখি তামিম ইকবাল। উপলক্ষ্য তার ট্রিপল সেঞ্চুরি উদযাপনে বিসিবি তরফ থেকে কেক কাটা। আগের রেকর্ডের মালিক রকিবুল হাসানকে সাথে নিয়ে কেক কাটা শেষে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের ঘরোয়া লংগার ভার্সনের ক্রিকেট খেলা নিয়ে তামিম বলেন, ‘দেখেন একটা জিনিস- সবসময় অভিযোগ থাকে জাতীয় দলের ক্রিকেটার রা লংগার ভার্সন খেলতে চায় না। আপনাদের সাথে এটাও মনে রাখতে হবে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের বিশ্রাম টাও খুব গুরুত্বপূর্ণ কিন্তু।’

‘শুধু খেলার জন্য খেলাটা করে দিয়ে কোন ফলাফল আপনি পাবেন না। আপনি এখনই আমাদের শিড্যিউলটা চিন্তা করেন। শেষ দেড় মাসে আমরা ১৫ টার মতো টি-টোয়েন্টি খেলেছি, এখন চারদিনের ম্যাচ খেলবো। দুই দিন পর আবার টেস্ট ম্যাচ খেলবো। আমরা সবাই মানুষ। আমাদের সবার একটা শরীর আছে আর শরীরের সহ্য করার একটা ক্ষমতা আছে। এটাও আপনাদের মাথায় রাখতে হবে।’

লংগার ভার্সনের ক্রিকেট খেলতে চায়না এমন অভিযোগের তিরে প্রতিনিয়তই বিদ্ধ হন ক্রিকেটাররা। এর পুরো বিপরীত অবস্থানে তামিম, ‘আমাদের এখানে একটা ট্রেন্ড চলে যে খেলে না, খেলে না, খেলে না। বুঝতে হবে যে একটা ক্রিকেটার কতগুলো ম্যাচ খেলছে। এক-দেড় মাসে ১৫ টা টি-টোয়েন্টি মানে এটা একটা হেকটিক টুর্নামেন্ট। সুযোগ থাকলে অবশ্যই খেলা উচিৎ। একটা জিনিস আমরাই অভিযোগ করি, ক্রিকেটাররা অভিযোগ করে যে ঘরোয়া ক্রিকেটের মান বাড়াতে হবে। সব সেরা ক্রিকেটাররা যদি খেলে তবেই এর মান বাড়তে পারে। তার মানে এই না যে আপনি শরীরের বিপক্ষে যেয়ে এটা করবেন।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

বাংলাদেশের আসার আগে জিম্বাবুয়ে শিবিরে দুঃসংবাদ

Read Next

রকিবুলকেই বরং স্লেজিং করেছেন বন্ধু তামিম!

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Total
2
Share