তামিমের ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস, মুমিনুলের সেঞ্চুরি

তামিম ইকবাল মুমিনুল হক

গতবছর মার্চে সবশেষ টেস্ট খেলেছেন তামিম ইকবাল। এরপর বাংলাদেশ আরও তিনটি টেস্ট খেললেও ব্যক্তিগত কারণে ছুটি নেওয়া তামিমের খেলা হয়নি। মাঝে জাতীয় লিগে খেলা একটি ম্যাচই বাঁহাতি এই ওপেনারের সবশেষ ৯ মাসে লংগার ভার্সন ক্রিকেট খেলার অভিজ্ঞতা। পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রথম টেস্ট সামনে রেখে বিসিএল দিয়ে প্রস্তুতি নেওয়ার সুযোগটা ভালোভাবেই কাজে লাগালেন তামিম ইকবাল, খেললেন ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস।

আগামী ৪ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানের উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়বে টাইগার বাহিনী। পাকিস্তানে নেই কোন অনুশীলন ম্যাচ ফলে পূর্ণ প্রস্তুতির উপলক্ষ্য হিসেবে চলতি বিসিএলের প্রথম রাউন্ডকেই পাখির চোখ করে জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা। মিরপুরে ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোন ও ইসলামী ব্যাংক ইস্ট জোনের মধ্যকার ম্যাচে খেলছেন তামিম, মুমিনুল, শান্ত, তাইজুল, মুস্তাফিজ, সৌম্য, রুবেল, রাহি, নাইমদের মত স্কোয়াডে সম্ভাব্য ক্রিকেটাররা।

তাইজুল ইসলামের পাঁচ উইকেট শিকারে সাইফ হাসানের টেস্ট মেজাজের ফিফটিতে প্রথম ইনিংসে সেন্ট্রাল জোন করতে পারেনি ২১৩ রানের বেশি। জবাবে তামিম ইকবালের ডাবল সেঞ্চুরি ও কাপ্তান মুমিনুল হকের সেঞ্চুরিতে রানের পাহাড় গড়তে যাচ্ছে ইস্ট জোন। পিনাক ঘোষের সাথে ৬২ রানের ওপেনিং জুটি গড়েন তামিম ইকবাল, ২৬ রান করে পিনাক ফিরলে ভাঙে জুটি।

এরপর অধিনায়ক মুমিনুল হককে নিয়ে ২৯৬ রান যোগ করেন তৃতীয় উইকেট জুটিতে। দুজনেই তুলে নেন সেঞ্চুরি, ১২৬ বলে ১৪ চারে প্রথম শ্রেণির ক্যারিয়ারের ১৬ তম সেঞ্চুরির দেখা পান তামিম ইকবাল। ড্যাশিং এই ওপেনার পরে এটিকে রূপ দেন ডাবল সেঞ্চুরিতে, দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে অপরাজিত আছেন ২২২ রানে। যা ইতোমধ্যে তার প্রথম শ্রেণির ক্যারিয়ারে সেরা ইনিংস, পেছনে ফেলেছেন ২০১৫ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে খুলনা টেস্টে ২০৬ রানের ইনিংসটিকে।

৩০২ মিনিট ক্রিজে থেকে ২৪২ বলে ২৯ চারে ডাবল সেঞ্চুরিতে পৌঁছান দেশ সেরা এই ওপেনার। অন্যদিকে আউট হওয়ার আগে প্রথম শ্রেণির ক্যারিয়ারে নিজের ২১তম সেঞ্চুরি তুলে নেন মুমিনুল হকও। ১৮০ বলে সেঞ্চুরি ছোঁয়া ইস্ট জোন কাপ্তান আউট হওয়ার আগে করেন ১৯৪ বলে ১২ চার ১ ছক্কায় ১১১ রান। মুমিনুলের বিদায়ের পর ইয়াসির আলি রাব্বিকে নিয়ে দিনের খেলা শেষ করেন তামিম ইকবাল। ইস্ট জোনের সংগ্রহ ২ উইকেটে ৩৯৫ রান। ৮ উইকেট হাতে রেখে ইস্ট জোনের লিড দাঁড়িয়েছে ১৮২!

২৮১ বলে ৩০ চারে ২২২ রানে অপরাজিত আছেন তামিম ইকবাল ও ৪৮ বলে ২২ রানে ইয়াসির আলি রাব্বি। সেন্ট্রাল জোনের হয়ে উইকেট দুটি ভাগাভাগি করেন শুভাগত হোম ও মুকিদুল ইসলাম মুগ্ধ। মুস্তাফিজুর রহমান ছিলেন বিবর্ণ, ১৯ ওভারে ৮৭ রান খরচায় আছেন উইকেট শূন্য।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ দ্বিতীয় দিন শেষে

ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোন প্রথম ইনিংসঃ ২১৩

ইসলামী ব্যাংক ইস্ট জোন প্রথম ইনিংসঃ ৩৯৫/২ (৯৫ ওভার), পিনাক ২৬, তামিম ২২২*, মুমিনুল ১১১, রাব্বি ২২* ; মুস্তাফিজুর ১৯-২-৮৭-০, শহিদুল ১৪-০-৮৩-০, শুভাগত ৩১-৫-১০৮-১, মুকিদুল ১৫-০-৫১-১, সোহরাওয়ার্দী ১১-১-৩৩-০, সাইফ ৫-০-২৪-০।

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

তামিম-শান্ত-মুমিনুল ভাবনায় পাকিস্তান দলে বিলাল

Read Next

ভিরাট কোহলিদের সাজা দিল আইসিসি

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
27
Share