আফগান-পাকিস্তান যুবাদের কোয়ার্টার ফাইনালে আলোচনায় ম্যানক্যাডিং

afgan
Vinkmag ad

পাকিস্তানের ইনিংসের ২৮ তম ওভারে ব্যাট করছে কাসিম আকরাম, নন স্ট্রাইকে ওপেনার মোহাম্মদ হুরাইরা। বল হাতে দৌঁড়ে আসছেন আফগান চায়নাম্যান বোলার নুর আহমাদ। তাঁর ম্যানক্যাডিংয়ের শিকার হন ৭৬ বলে ৬ রান করে আফগানিস্তানের দেওয়া ১৯০ রানের লক্ষ্যের দিকে আস্তে আস্তে এগিয়ে যাওয়া পাকিস্তান ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ হুরাইরা।

দলীয় ২৭ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে পাকিস্তান অনূর্ধ্ব-১৯ দলের রান ১২৭,  তখন মোহাম্মদ হুরাইরার সাথে ব্যাট করছেন নতুন ব্যাটসম্যান কাসিম আকরাম। বিপত্তিটা বাঁধলো ২৮ তম ওভারের পঞ্চম বলে যেয়ে। যেখানে ৬৪ রানে ব্যাট করা হুরাইরা দাঁড়িয়ে ছিলেন ‘নন স্ট্রাইক অ্যান্ডে’, বোলার ছিলেন নুর আহমাদ।

ওভারের পঞ্চম বলটা করার সময় নুর আহমাদ বুঝতে পারলেন ক্রিজ ছেড়ে বেশ খানিকটা বের হয়ে গেছেন ব্যাটসম্যান, ওমনি উইকেট ভেঙে রান আউটের আবেদন করে বসলেন তিনি। ক্রিকেটীয় ভাষাতে যাকে বলা হয় ‘ম্যানক্যাডিং’। অনফিল্ড আম্পায়ার রিভিউর জন্য টিভি আম্পায়ের কাছে আবেদন করেন। এরমধ্যেই সাইড স্ক্রিনে ভেসে উঠে ‘আউট’! ৬৪ রানেই প্যাভিলিয়নে ফিরতে হয় পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ হুরাইরাকে।

ভিডিওঃ

আগে কোনরকম সতর্ক ছাড়াই এমন আউটকে খুব ভালোভাবে নিতে পারেননি পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ হুরাইরা। ৭৬ বলে ৮ চার ও ১ ছক্কায় ৬৪ রানের ইনিংস থামে তাঁর; বেশ হতাশ হয়েই মাঠ ছাড়তে দেখা যায় তাঁকে।

তবে এই কোয়ার্টার-ফাইনাল ম্যাচে আফগানিস্তানের দেওয়া ১৯০ রানের টার্গেটে ৫৩ বল বাকী থাকতেই ৬ উইকেটে জয়ী পাকিস্তান। চতুর্থ দল হিসাবে সেমি-ফাইনাল নিশ্চিত করলো পাকিস্তান। সেমিতে লড়াই পাকিস্তান-ভারতের। আর বাংলাদেশের বিপক্ষে নামবে নিউজিল্যান্ড।

ক্রিকেটে এই আউট অত্যন্ত আইনি ও যুক্তিযুক্ত। কিন্তু ক্রিকেট বোদ্ধারা একে এথিকস-বিরোধী, স্পিরিট-বিরোধী, ক্রিকেট-লজ্জা বলে অবিহিত করে থাকেন। আইন পারমিট করে যে নন স্ট্রাইকারেআগে থেকে এগিয়ে গেলে বেল ফেলে দিয়ে আউট করা। আইন অনুযায়ী আউট হলেও ক্রিকেট শুধু আইনের খেলা নয়, ভদ্রলোকের খেলাও বলে অমন আউটে অনেকেরই রয়েছে আপত্তি।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

তাইজুলের পাঁচ, সাইফের টেস্ট মেজাজে ব্যাটিং

Read Next

অধিনায়ক মুমিনুলেই আস্থা, রবিবার টেস্ট দল ঘোষণা

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
132
Share