সবকিছুই নতুন দেখছেন বিসিবি সভাপতি

নাজমুল হাসান পাপন বিসিবি

নানা নাটকীয়তার পর পাকিস্তান সফরে গিয়ে মাঠের ক্রিকেটে নাজুক পারফরম্যান্স বাংলাদেশ দলের। প্রথম দফায় খেলতে গিয়ে ২-০ ব্যবধানে হেরেছে টি-টোয়েন্টি সিরিজ। বৃষ্টি বাঁধায় শেষ ম্যাচটি পরিত্যাক্ত না হলে শঙ্কা জেগেছিল ধবল ধোলাইয়েরও। বিশেষ করে পুরো দলের ব্যাটিং অর্ডার, টস জিতে ব্যাটিং সিদ্ধান্ত, টি-টোয়েন্টি বিবেচনায় ব্যাটিং ধরণ নিয়ে ওঠে প্রশ্ন। দেশে ফিরে পাকিস্তান সফর নিয়ে কথা বলতে গিয়ে তাই হতাশা ঝরেছে বিসিবি সভাপতির কণ্ঠে।

গত ২৭ জানুয়ারি সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচ বৃষ্টিতে ভেস্তে গেলে মাঠ থেকে সরাসরি বিমানবন্দরে ছোটে বাংলাদেশ দল। দেশে ফিরে পাকিস্তান সফর ইস্যুতে মুখ খুলতে একটু দেরিই করলেন বিসিবি সভাপতি। গতকাল (২৮ জানুয়ারি) জাতীয় সংসদ থেকেও খালি হাতে ফেরান সংবাদ কর্মীদের। তবে নিজেই আশ্বস্ত করেন কথা বলবেন আজ। তার বেক্সিমকো কার্যালয়ে আগে থেকে নির্ধারিত বিকাল সাড়ে চারটা নাগাদ হাজির সংবাদকর্মীরা।

দলের পারফরম্যান্স মূল্যায়ন করতে গিয়ে পাপনের কণ্ঠে ঝরেছে কেবল হতাশাই। লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামের মরা পিচে লম্বা সময় পর খেলতে গিয়ে দুই ম্যাচেই টস জিতে ব্যাটিং নেওয়ার সিদ্ধান্ত ভালোভাবে নেননি বিসিবি বস। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘কয়েকটা প্রশ্ন আমার কাছে আছে। ক্যাপ্টেন রিয়াদ, তামিম- ওদের সঙ্গে বসেছিলাম। প্রথম ম্যাচের পরেই আমি জিজ্ঞাসা করেছিলাম, ব্যাটিং নিলাম কেনো? এতোবছর পর পাকিস্তানে আসলাম, তো ব্যাটিং নিলাম কেনো?’

‘আমরা সাধারণত আগের খেলাগুলোতে যা দেখেছি চেজের টার্গেট টা জানি। এখানে তো টার্গেট টা জানি না। ওরা বলছিলো এটা ব্যাটিং পিচ। কিন্তু খেলা দেখে মনে হয়নি খুব ভালো পিচ। খুব ভালো পিচ হলে যেমন খেলা হবার কথা, সেটার সাথে কিন্তু খেলার ধরণটা মেলেনি।’

প্রথম ম্যাচে ১৪১ করে হারের পর দ্বিতীয় ম্যাচেও টাইগারদের লক্ষ্য ছিল আগে ব্যাট করে ১৫০ রান স্কোরবোর্ডে তোলা। কিন্তু তুলতে পারেনি ১৩৬ রানের বেশি, হেরেছেও ৯ উইকেটের বড় ব্যবধানে। লক্ষ্য ঠিক করায় গলদ আছে আগেই বুঝতে পেরেছেন বিসিবি সভাপতি, ‘সেকেন্ড ম্যাচে আমি যখন জিজ্ঞাসা করলাম টার্গেট টা কিরকম, ওরা বলছিল ১৫০। আমি তখন বললাম ১৬০ এর নিচে টি-টোয়েন্টিতে কোন স্কোর হয় না। যেকোন টিমের কাছে হেরে যাবার কথা।’

‘১৮০ এখন স্কোর, ২০০ করেও অনেকে জিততে পারে না। তো আমাদের টার্গেটটা এতো কম কেনো। যাহোক, ওরা ধরেছে ১৫০ যথেষ্ট। সেকেন্ড ম্যাচের পর ওদের সঙ্গে আরো বেশি কথা হয়েছে।’

টস জিতে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ কাপ্তানরা বারবার ভুল করছে বলেই অভিযোগ নাজমুল হাসান পাপনের। উদাহারণ হিসেবে টেনেছেন কোলকাতার ঐতিহাসিক পিংক বল টেস্টেও টস জিতে ব্যাটিং নেওয়ার সিদ্ধান্তকে, ‘আমি ভারতের সঙ্গেও দেখলাম পিংক বলে প্রথম খেলা, ভারতের ওরকম বোলিং লাইন আপ- টসে জিতে বোলিং নিয়ে নিলো। এরকম আগে আমাদের কখনো হয়নি। সবগুলোই নতুন দেখছি। এখন আবার পাকিস্তানেও তাই হয়েছে।’

সিদ্ধান্ত নিতে টিম ম্যানেজমেন্টের সমস্যা হচ্ছে আগে জানালে সাহায্য করতে পারেন উল্লেখ করে নাজমুল হাসান পাপন যোগ করেন, ‘সেকেন্ড ম্যাচেও আমরা আগে ব্যাটিং নিলাম। তারা বলছে এটা ব্যাটিং উইকেট আবার শেষে যেয়ে বলছে ডিফিকাল্ট টু ব্যাট। নেবো কি নেবো না-ওরা যদি বলে আমাদের সমস্যা হচ্ছে তাহলেও তো আমরা হেল্প করতে পারি। ডিসিশন কে নিচ্ছে, কেনো নিচ্ছে- এটা একটা বিষয় যেটা আমি মনে করেছি যে এটা নিয়ে আলাপ করার দরকার আছে।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

দিন একবারে শেষ না করতে পরিচয় বদলাতে চান সৌম্য

Read Next

মৃত্যুঞ্জয়ের সর্বনাশে মেহরাবের পৌষ মাস

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
9
Share