৫০ দিনে কমেছে ১২ কেজি ওজন, আশরাফুল ফিরতে চান টেস্ট দলে

মোহাম্মদ আশরাফুল

৫০ দিনে ৭৩ কেজি থেকে ৬১ কেজি! নিজের ফিটনেস লেভেলে দারুণ পরিবর্তন এনেছেন মোহাম্মদ আশরাফুল। বিপিএলে সুযোগ না পেয়ে অবসর টা আলসেমিতে কাটাননি। বরং নিজেকে প্রস্তুত করেছেন বড় কিছুর জন্য। ফলটাও পেয়েছেন হাতেনাতে।

বিসিএলের (বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগ) আগে দেওয়া বিপ টেস্টে তুলেছেন ১১ স্কোর। যেখানে অনেক তরুণ ক্রিকেটারই ১১ তুলতে পারেননি।

নিজের ফিটনেসের উন্নতিতে খুশি আশরাফুল ক্রিকফ্রেঞ্জিকে বলেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ অনেক ভালো। গত ৫০ দিন বিপিএলে সুযোগ না পাবার পর নিজের থেকেই মনে হয়েছে যে নিজেকে ফিট বানাতে হবে। অলমোস্ট সাড়ে ১১-১২ কেজি ওজন কমিয়েছি এই ৫০ দিনে। লাস্ট বিপ টেস্ট দিয়েছিলেম ১০, আজ (২৭ জানুয়ারি) দিয়েছি ১১। আলহামদুলিল্লাহ অনেক ভালো, নিজের কাছেও এখন ভালো লাগছে। ফিটনেস লেভেলটা আগের থেকে অনেক বেটার। আশা করি এটা যদি ধরে রাখতে পারি তাহলে হয়তো আরো অনেক লম্বা সময় খেলতে পারবো।’

‘যেটা একটা স্বপ্ন ছিলো-বাংলাদেশ দলে কামব্যাক করাটা। এই ফিটনেস ধরে রাখতে পারলে আশা করি যে সম্ভব।’

বয়সটা ৩৫, তবে ফিটনেস ধরে রাখতে পারলে টেস্ট দলে ফেরা সম্ভব বলে মনে করেন সর্বকণিষ্ঠ টেস্ট সেঞ্চুরিয়ান। ২০১৩ সালের এপ্রিলে শেষবার বাংলাদেশ দলের হয়ে সাদা পোশাকে মাঠে নেমেছিলেন ৬১ টেস্ট খেলা আশরাফুল। আশরাফুলের মতে এনসিএলে তিনি ভালো খেলেছিলেন, ভালো খেলেছিলেন বিসিএলের ৭ম আসরেও।

‘অবশ্যই, লঙ্গার ভার্সনে আমি খেলতে চাই আগে। এবারের ন্যাশনাল লিগটা মোটামুটি ভালো হয়েছে, বরিশালের হয়ে খেলেছি। শেষ বিসিএলটা ভালো হয়েছিল, ইসলামী ব্যাংকের হয়ে খেলেছিলাম। ভালো খেলতে চাই আরকি।’

এবারো নিজেদের দলে মোহাম্মদ আশরাফুলকে রেখেছে ইসলামী ব্যাংক ইস্ট জোন। ৫০ দিনের মিশনে আশরাফুল পরিশ্রম করেছেন বেশ। সকালে স্কিল ট্রেনিং এর পর সন্ধ্যায় জিম। খাদ্যাভ্যাসেও আশরাফুল এনেছিলেন পরিবর্তন।

‘ডায়েট ছিল, জিম ছিল। সকালে স্কিল ট্রেনিং করতাম। বাসার ওখানেই স্কিল ট্রেনিং করতাম; দুই-আড়াই ঘন্টা ব্যাটিং, বোলিং করতাম। আর সন্ধ্যায় জিমে যেতাম, তিন-সাড়ে তিন ঘন্টা জিম করতাম। সেখানে রানিং থাকতো, ওয়েট ট্রেনিং থাকতো। খাবার টা খুব গুরুত্বপূর্ণ। এই ৫০ দিনে খুব চমৎকার করে ডায়েট করেছি। এটার কারণেই কাজ হয়েছে (ফিটনেস)।’

বিপিএলে সুযোগ না পাওয়াটা শাপেবর হয়েছে মোহাম্মদ আশরাফুলের জন্য। অবসর সময়টা কাজে লাগিয়েছেন, ফলও পেয়েছেন হাতেনাতে।

‘বিপিএলে ছিলাম না। সেই কারণেই আসলে এই কাজটা করতে পেরেছি। না থেকে ভালোই হয়েছে বলে আমি মনে করি। নিজেকে আমি চেঞ্জ করতে পেরেছি। অলমোস্ট সাড়ে ১১-১২ কেজি ওজন কমাতে পেরেছি। বিপিএলে থাকতে পারলে ভালো লাগতো। যেহেতু সুযোগ পাইনি তাই চিন্তা করেছি এই সুযোগ টা কাজে লাগাতে হবে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

বিসিএলে দল পাননি অনেক পরিচিত মুখ

Read Next

৭০ চার, ৪৮ ছক্কায় এক ম্যাচে ৮১৮ রান!

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
67
Share