লাহোরের ড্রেসিংরুম থেকে সরাসরি বিমানবন্দরে যাবে বাংলাদেশ

বাংলাদেশ
Vinkmag ad

অনিশ্চয়তা, শঙ্কা একপাশে সরিয়ে রেখে গত ২২ তারিখ রাতে বাংলাদেশ বিমানের একটি ভাড়া করা ফ্লাইটে লাহোর পৌঁছলেন মাহমুদউল্লাহরা। এরমধ্যে দল খেলেও ফেলল সিরিজের প্রথম দুই টি-টোয়েন্টি। কাল সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচ; লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে এই ম্যাচ খেলে বাংলাদেশ দল সরাসরি আসবে বিমানবন্দরে।

বাংলাদেশ দলকে সর্বোচ্চ পর্যায়ের নিরাপত্তা দেওয়া হচ্ছে লাহোরে। টিম হোটেল, অনুশীলন, কিংবা ম্যাচের সময়- ক্রিকেটারদের আশে-পাশে শুধু নিরাপত্তাবাহিনীই দেখা যায় সবচেয়ে বেশি। ১০ হাজার নিরাপত্তাকর্মী সবসময়ের জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের নিরাপত্তায়।

কিন্তু এই নিরাপত্তায় যেন বন্দি বাংলাদেশি ক্রিকেটার’রা। তাই সিরিজ শেষ করে একদিনও পাকিস্তানে থাকতে চায় না বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি দল। ম্যাচে শেষে ক্রিকেটার’রা ফিরবেন ড্রেসিংরুমে, আর অধিনায়ক যাবেন সিরিজ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে। এরপরই বাস যোগে লাহোরের বিমানবন্দরে। ঐ রাতেই দল ফিরবে ঢাকায়।

লাহোরের পার্ল কন্টিনেন্টাল হোটেলে উঠেছে বাংলাদেশ দল। ২৭ তারিখ শেষ টি-টোয়েন্টির পর টিম হোটেলে রাত কাটিয়ে পরের দিন অর্থাৎ ২৮ তারিখ দেশে ফেরার কথা ছিল বাংলাদেশ দলের। কিন্তু পাকিস্তানের নিরাপত্তায় বন্দি মনে হচ্ছে ক্রিকেটারদের; তাই তাঁরা ২৭ তারিখ রাতেই দেশে ফিরে আসতে চায়।

আগামীকাল বাংলাদেশ সময় বিকেল ৩টায় লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টি। প্রথম দুই ম্যাচে বাজে ভাবে হেরে এরমধ্যেই সিরিজ হার নিশ্চিত বাংলাদেশের। কাল শুধু হোয়াইট ওয়াশ বাঁচানোর লড়াই। সিরিজ জয় দিয়ে শেষ করতে পারবে কি বাংলাদেশ?

সব মিলিয়ে তিন মাসে তিনবার পাকিস্তান সফর করবে বাংলাদেশ দল। টি-টোয়েন্টি সিরিজ শেষে মাহমুদউল্লাহরা ফিরে আসবেন ২৭ তারিখ রাতেই। দ্বিতীয়দফায় বাংলাদেশ দল ৭-১২ ফেব্রুয়ারি রাওয়ালপিন্ডিতে থাকবে। সেখানে প্রথম টেস্ট। এরপর ফিরে এসে মার্চ মাসে বিরতি। ১ এপ্রিল তৃতীয় ও শেষবার পাকিস্তান সফর শুরু হবে। করাচিতে ৩ এপ্রিল একমাত্র ওডিআই। একই শহরে ৫ এপ্রিল বাংলাদেশ মাঠে নামবে দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট খেলতে।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

ম্যাচ শেষেই বিমান ধরবেন হারিস রউফ

Read Next

মুস্তাফিজকে ভালো করার উপায় বাতলে দিলেন ওয়াসিম আকরাম

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
10
Share