নিরাপত্তা নয় আকরামের ভাবনায় শুধুই ক্রিকেট

আকরাম খান
Vinkmag ad

নিঃসন্দেই বলা যায় নিকট অতীতে বাংলাদেশের কোন সফর নিয়ে এতটা আলোচনা হয়নি । অনিশ্চয়তার দোলাচলে থাকা পাকিস্তান সফরের প্রথম ধাপ খেলতে আজ রাত ৮ টার একটি বিশেষ ফ্লাইটে দেশ ছাড়ে টিম বাংলাদেশ। প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু ও ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খানও তামিম-রিয়াদদের সঙ্গী হন। বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে আকরাম খান জানান সরকারের নিরাপত্তা পর্যবেক্ষণের পরই তারা সবুজ সংকেত পেয়েছেন।

ফলে খারাপ কিছুর শঙ্কা নয় মাঠের ক্রিকেটেই রাখতে চান নজর। বিপিএল ভালো খেলে দলে সুযোগ পাওয়াদের জন্য সিরিজটি নিজেদের আন্তর্জাতিক আঙ্গিনায় প্রমাণের মঞ্চ বলছেন বিসিবির এই পরিচালক।

যেকোন সফরই চ্যালেঞ্জিং তবে নিরাপত্তা ইস্যুতে পাকিস্তান সফর নিশ্চিত হতেই লেগেছে সময়। সিরিজ চূড়ান্ত হওয়ার পর মানসিক প্রস্তুতির জন্য বেশিদিন সময় পাওয়া না গেলেও ভালো ফলের আশায় আকরাম খান। আজ (২২ জানুয়ারি) সন্ধ্যা ৬ টা নাগাদই দলের সব ক্রিকটার হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে হাজির। দল নিয়ে নিজেদের ভাবনা জানান সৌম্য সরকার, শফিউল ইসলাম, মোহাম্মদ মিঠুনের সাথে বোর্ড পরিচালক আকরাম খানও।

সাংবাদিকদের সাথে দেশ ছাড়ার আগে শেষ মুহূর্তের আলাপে আকরাম খান বলেন, ‘সব ট্যুরই কিন্তু আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জিং। সবসময় বাংলাদেশ দল ভালো খেলতে চায়, আমরাও চাই ভালো খেলুক। কিন্তু এই সিরিজ নিয়ে অনেক কম সময় পেয়েছে ক্রিকেটাররা মানসিকভাবে প্রস্তুতির জন্য। তার পরেও ৯৯ ভাগ ক্রিকেটারই যাচ্ছে, অফিশিয়ালরা যাচ্ছেন। তো ইনশাআল্লাহ্‌ আশা করছি পাকিস্তান নিরাপদ ক্রিকেটের জন্য। এর আগেই কিন্তু পাকিস্তানে ক্রিকেট খেলেছি আমরা। যদি আমরা দল হিসেবে খেলতে পারি তো পারফরম্যান্সটা ভালো হবে। পারফরম্যান্স ভালো হবে সবাই খুশি থাকবে।’

সরকারের নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক দলের অনুমতি ও পাকিস্তানে বাংলাদেশ হাইকমিশনের সবুজ সংকেতের পরই পাকিস্তান সফর চূড়ান্ত হয় বাংলাদেশের। তাই নিরাপত্তা নিয়ে বাড়তি চিন্তা নয় শক্তিশালী পাকিস্তানকে মাঠে মোকাবেলা করাতেই যত পরিকল্পনা ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধানের, ‘আমরা এনওসি (ছাড়পত্র) পেয়েছি সরকার থেকে তো অবশ্যই ওনারা তো সবকিছু দেখেশুনেই এই ছাড়পত্র দিয়েছে।’

‘আশা করছি এগুলা নিয়ে এতো চিন্তা নেই, পারফরম্যান্সই হলো বেশি গুরুত্বপূর্ণ। বাংলাদেশ দল যেন ভালো খেলতে পারে সেটাই আমাদের প্রথম লক্ষ্য। ঘরের মাঠে পাকিস্তান বেশ শক্তিশালী দল এবং তাদের দলে বেশ কয়েকজন কোয়ালিটি ক্রিকেটার আছে তো আমার মনেহয় এদিক দিয়ে চ্যালেঞ্জিং হবে।’

অভিজ্ঞ সাকিব-মুশফিক নেই, দলে জায়গা পেয়েছেন বেশ কয়েকজন তরুণ ক্রিকেটার। যারা বিপিলে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে কেড়েছেন নজর। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে খেলাটা সহজ নয় ফলে নিজেদের প্রমানের রয়েছে বেশ সুযোগ মনে করেন আকরাম খান, ‘এটা আমাদের জন্য ভালো হয়েছে এবং যারা দলে তারা ভালো খেলেছে। গুরুত্বপূর্ণ যেটা সেটা হলো অবশ্যই বিপিএলের থেকে এখানে চ্যালেঞ্জিং তো এখানে কষ্ট করতে হবে এবং নিজেকে মানসিকভাবে আরো শক্তিশালী হবে। তো ইনশাআল্লাহ্‌ বোলিং, ব্যাটিং আর ফিল্ডিং; তিন বিভাগেই যদি ভালো করে তবে ভালো কিছু করার সম্ভবনা আছে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

সৌম্যদের মতো সাকিবও করছেন ভালো কিছুর প্রত্যাশা

Read Next

ক্রিকেট থেকে দূরে থাকলেও দলের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ সাকিবের

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
5
Share