মানসিকতায় পরিবর্তন এসেছে শান্ত’র, ভাবছেন না পজিশন নিয়ে

রাসেল ডোমিঙ্গো নাজমুল হোসেন শান্ত
Vinkmag ad

বয়সভিত্তিক আর ঘরোয়া লিগের পারফরম্যান্স দিয়ে নির্বাচকদের রাডারে এসেছেন বারবার, তাঁর প্রতি আস্থার জায়গাটা এতই যে ব্যর্থ হওয়ার পরও তিন ফরম্যাটেই চেষ্টা করা হয়েছে তাঁকে দিয়ে। প্রত্যাশার ছিটেফোঁটাও করতে পারেননি পূরণ, টি-টোয়েন্টিতে শান্ত যেন আরও শান্ত।

ওয়ানডে ও সাদা পোশাকের ক্রিকেটে ঘরোয়া লিগে শান্ত’র ব্যাট হাসলেও টি-টোয়েন্টিতে বরাবরই ছিলেন নাজুক। সদ্য সমাপ্ত বিপিএলের শেষ তিন ম্যাচে অপরাজিত এক সেঞ্চুরি ও হাফ সেঞ্চুরিতে গড় ঠেকেছে ২০ এ গিয়ে। আগের ৪৬ ম্যাচে যেখানে গড় ছিল ১৬.৬১, ফিফটি মাত্র একটি। বিপিএলের শুরুটাও হয়নি ভালো প্রথম চার ম্যাচ ছুঁতে পারেননি দুই অঙ্ক, প্রথম ৮ ম্যাচে রান ১১৫!

লিগ পর্বের শেষ ম্যাচে ঢাকা প্লাটুনের বিপক্ষে অপরাজিত ১১৫ এর পর প্রথম কোয়ালিফায়ারে রাজশাহীর বিপক্ষে অপরাজিত ৭৮। অবশ্য ফাইনালে ফিরেছেন খালি হাতে, দলও জিততে পারেনি শিরোপা। তবে ওই দুই ইনিংসে ঠিকই জায়গা করে নিয়েছেন পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের দলে।

তিনদিনের অনুশীলন ক্যাম্পের প্রথম দিন গতকাল উপস্থিত না থাকলেও আজ (২০ জানুয়ারি) অনুশীলনে যোগ দেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান। গতবছর ঘরের মাঠে ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজে অভিষেক হওয়া শান্ত হয়েছেন ব্যর্থ। দুই ম্যাচে রান করেছেন মাত্র ১৬। বিপিএলে শেষদিকে রানে ফেরা শান্ত আজ গণমাধ্যমের মুখোমুখি জানিয়েছেন মানসিকতায় এসেছে পরিবর্তন, সুযোগ পেলে ভালো করবেন বলে আশাবাদী।

অনুশীলননের ফাঁকে বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান জানান, ‘আমার কাছে মনে হয় যে মানসিকতায় পরিবর্তন এসেছে অনেক। মেন্টালিটিতে পরিবর্তন আসছে অনেক। বিশ্বাস আসছে যে এই ফরম্যাটেও রান করা সম্ভব। যেহেতু প্রথমে কয়েকটি ম্যাচ রান করিনি, আত্মবিশ্বাসে একটু অভাব ছিল। তো মেন্টালি ওভাবে প্রস্তুতি নিয়েছি যে আমি এই ফরম্যাটেও রান করতে পারি। নিজের মধ্যে বিশ্বাস আনার চেষ্টা করেছি। তো এটা আসার কারণে শেষের কয়েকটি ম্যাচে রান হয়েছে।’

যেকোন পজিশনে ব্যাটিং করতে প্রস্তুত শান্ত

মূলত ওপেনার ব্যাটসম্যান, বিপিএলে সাফল্য পেয়েছেন ওপেন করেই। কিন্তু জাতীয় দলে ওপেন করার সুযোগ মিলবেনা বলাই যায়। তামিম, লিটন, নাইম শেখদের ভীড়ে পাকিস্তান সিরিজে ব্যাট করতে হতে পারে মিডল অর্ডারে। শান্ত নিজে অবশ্য এ নিয়ে খুব একটা ভাবছেন না, ‘পজিশন নিয়ে কোনো চিন্তা নেই। যেহেতু দলে সুযোগ পেয়েছি, যেকোনো পজিশনে খেলার জন্য প্রস্তুত আছি। যেখানেই খেলব চেষ্টা করব পারফর্ম করার। যেখানেই ব্যাটিং করি ভালো খেলার চেষ্টা করব।’

টপ অর্ডারে খেলতে স্বাচ্ছন্দ বোধ করা শান্ত জাতীয় দলে যেকোন পজিশনে খেলতে রাজি। উদাহরণ হিসেবে টানলেন বড় তারকাদের কথা, ‘সাধারণত আমি টপ অর্ডারে খেলি। ওখানে নামলে তো অবশ্যই ভালো। যেটা আমি বললাম, পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে যেখানে নামায় যেকোনো পজিশনে রান করা উচিত।’

‘এখন যদি চিন্তা করা যায় বড় বড় ক্রিকেটাররা যেকোনো পজিশনে ব্যাটিং করে এবং রান করার সক্ষমতা রাখে। ওভাবেই আমি চিন্তা করছি যে যেখানে ব্যাটিংয়ের সুযোগ আসবে, সেখানেই পারফর্ম করার চেষ্টা করব।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

বাংলাদেশের বিপক্ষে পাকিস্তানের ১৯ সদস্যের প্রাথমিক টেস্ট দল

Read Next

পাকিস্তানে খেলার অভিজ্ঞতা আছে শান্তদের

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
7
Share