শান্ত’র জন্য ফস্টারের বাড়তি প্রশংসা

নাজমুল হোসেন শান্ত রাইলি রুশো খুলনা টাইগার্স
Vinkmag ad

বঙ্গবন্ধু বিপিএলের শুরু থেকেই দাপট দেখিয়েছে মুশফিকুর রহিমের খুলনা টাইগার্স। মাঝে একটু ছন্দপতন হলেও শেষদিকে টানা জয়ে টেবিলের শীর্ষে থেকেই শেষ করেছে দলটি। প্রথম কোয়ালিফায়ারে আন্দ্রে রাসেলের রাজশাহী রয়্যালসকে হারিয়ে ফাইনালও নিশ্চিত করে নেয় আগে। দ্বিতীয় দফায় উতরে ফাইনালে প্রতিপক্ষ হিসেবে নাম লিখিয়েছে রাজশাহীই। মাঠের ক্রিকেটে ক্রিকেটাররা লড়াই করে সাফল্য এনে দিলেও পেছনে কাজ করেছে কোচিং স্টাফ, টিম ম্যানেজমেন্ট। ফাইনালের আগে কোচ জেমস ফস্টার দলীয় প্রচেষ্টাকে তুলে আনলেন সামনে।

আজ (১৬ জানুয়ারি) মিরপুরে অনুশীলন শেষ আনুষ্ঠানিকভাবে ট্রফি উন্মোচিত হয়। ট্রফি উন্মোচন শেষে সাংবাদিকদের সাথে দলের প্রতিনিধি হয়ে কথা বলেন খুলনা টাইগার্স কোচ। ফাইনালের আগে ব্যক্তিগতভাবে তিনি কতটা রোমাঞ্চিত জানতে চাইলে ফস্টার বলেন,

‘দেখেন এখানে ব্যক্তিগত কোন ব্যাপার নেই। এটা পুরো দলীয় ব্যাপার আমি অনুভব করি পুরো টুর্নামেন্টে আমরা একটি দল হিসেবেই খেলেছি। আমি বেশ উচ্ছ্বসিত ফাইনাল খেলছি বলে। সব ক্রিকেটার, কোচ, ব্যাকরুম স্টাফ আমরা একসাথে পরিশ্রম করেছি। আর প্রত্যেকেই বেশ রোমাঞ্চিত আগামীকালের ম্যাচের জন্য।’

টুর্নামেন্টের শুরুটা ভালো নাহলেও শেষদিকে দলের জয়ে অনবদ্য অবদান রেখেছেন নাজমুল হোসেন শান্ত ও মেহেদী হাসান মিরাজ। শেষ দুই ম্যাচে শান্ততো একাই টেনেছেন দলকে। ঢাকা প্লাটুনের বিপক্ষে গ্রুপ পর্বে শেষ ম্যাচে অপরাজিত ১১৫ রানের পর কোয়ালিফায়রে অপরাজিত ৭৮ রান। অথচ শুরুটা বেশ বিবর্ণ ছিল শান্তর, প্রথম চার ম্যাচে ছুঁতে পারেননি দুই অঙ্ক। প্রথম ৮ ম্যাচে রান সাকূল্যে ১১৫!

শেষদিকে দলের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচেই শান্তর জ্বলে ওঠার প্রশংসা করেছেন কোচ জেমস ফস্টার। নিজেদের ফাইনালে ওঠার ক্ষেত্রে শান্ত মিরাজের অবদান তুলে ধরতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘অসাধারণ। তারা ফর্মে আছে, আর তাদের দারুণ কিছুতেই আমরা এখন ফাইনালে বলা যায়। তাদের ফর্ম নিয়ে বেশ আশাবাদী। তারা বেশ আত্মবিশ্বাসী। তবে শুধু তারা দুজন নয় দলে আরও অনেক ছেলে আছে যারা অবদান রেখেছে দলের ঠিক প্রয়োজনের মুহূর্তে।’

শান্তর জন্য ফস্টারের কন্ঠে ছিল বাড়তি প্রশংসা, ‘ শান্ত বেশ ভালো ক্রিকেটার। এতা বেশ গুরুত্বপুর্ণ যে সে বেশ ব্যস্ত একজন খেলোয়াড় বলে আমি অনুভব করি। সে যখনই দল থেকে বাদ পড়ে ফিরে আসলো দেখিয়ে দিয়েছে নিজের জাত।’

দেখতে দেখতে একেবারে টুর্নামেন্টের শেষে এসে পৌঁছেছে বঙ্গবন্ধু বিপিএল। আগামীকাল (১৭ জানুয়ারি) রাজশাহী-খুলনা ম্যাচ দিয়ে পর্দা নামবে এবারের আসরের। প্রথমবার প্রধান কোচ হিশেবে আসা ফস্টার পুরো জার্নিটা কেমন উপভোগ করেছেন জানতে চাইলে বলেন, ‘এটা বেশ মজার ছিল। তৃতীয়বারের মত আমার এখানে আসা আর প্রথমবারের মত প্রধান কোচ হিসেবে। এমন কিছু সাপোর্ট স্টাফ পাওয়া সত্য ভাগ্যের ব্যাপার, তারা একদম প্রথম শ্রেণি মানের। খেলোয়াড়েরা ব্রিলিয়ান্ট। ৬ সপ্তাহের বেশি সময় আমি এখানে বেশ আন্দের সাথে কাটিয়েছি।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

স্মার্ট ক্রিকেট খেলায় নজর খুলনার কোচের

Read Next

ফাইনালের আগে অদ্ভুত প্রশ্নের উত্তর দিলেন রাসেল

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
11
Share