মাশরাফিকে ঘটা করে বিদায় দিতে চায় বিসিবি

পাপন মাশরাফি
Vinkmag ad

গত ইংল্যান্ড বিশ্বকাপের পরই ধারণা করা হচ্ছিল মাশরাফি বুঝি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বলতে যাচ্ছেন আনুষ্ঠানিকভাবে। কিন্তু এমন ঘোষণা না দিয়ে শ্রীলঙ্কা সফরেও অধিনায়ক হিসেবে যাওয়ার সব প্রস্তুতি সেরে নেন। শেষ মুহূর্তে চোটে পড়ে লঙ্কা সফর থেকে অবশ্য ছিটকে পড়েন ওয়ানডে দলের কাপ্তান। এরপর বাংলাদেশের ছিলনা আর কোন ওয়ানডে, তবে ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজে মাশরাফিকে বিদায় দিতে জিম্বাবুয়ের সাথে ওয়ানডে যুক্ত করতে চেয়েছিল বিসিবি।

মাশরাফির অনিচ্ছাতেই মাঠ থেকে তাঁকে বিদায় দেওয়ার আয়োজনে শেষ পর্যন্ত এগোয়নি বিসিবি। মাশরাফি জানিয়েছিলেন চলতি বিপিএলটা দেখেই নিতে চান সিদ্ধান্ত। তবে বিসিবি সভাপতি বলছেন মাশরাফি রাজি হলেই বিসিবি তাঁকে দিবে এমন সংবর্ধনা যা বাংলাদেশের ইতিহাসে পায়নি আর কেউ, এমনকি অদূর ভবিষ্যতেও কেউ পাবেনা। এদিক দিন দুয়েক আগে মাশরাফি অবশ্য জানিয়েছেন মাঠ থেকেই বিদায় নিতে হবে এমন কিছু আলাদা করে ভাবেন না তিনি।

আজ (১২ জানুয়ারি) বিসিবির বোর্ড সভা শেষে সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বিসিবি সভাপতি শুরুতেই জানিয়ে দেন আসন্ন কেন্দ্রীয় চুক্তিতে নিজের নাম রাখতে চান না বাংলাদেশের ওয়ানডে দলের কাপ্তান মাশরাফি। মূলত তরুণ কোন ক্রিকেটারকে সুযোগ করে দিতেই ক্যাপ্টেন ফ্যান্টাস্টিকের এমন সিদ্ধান্ত, ‘বোর্ড মিটিং এর আগে মাশরাফির সঙ্গে আমার কথা হয়েছিল। সে বলল ক্রিকেট বোর্ডের কেন্দ্রীয় চুক্তিতে তাকে যেন না রাখা হয়। কারণ হিসেবে সে বলেছে তরুণ ক্রিকেটার যারা আছে আমি না থাকলে আরেকজন তরুণ ক্রিকেটার বেশি সুযোগ পাবে। মাশরাফি যেহেতু নিজ থেকেই চুক্তিতে থাকতে চাচ্ছে না সেহেতু সামনে বোর্ডের যে নতুন চুক্তি হবে সেখানে মাশরাফির নাম থাকবে না।’

এর প্রসঙ্গ টেনেই মাশরাফিকে আনুষ্ঠানিক বিদায় জানানোর ইস্যু তুললে বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘ওকে একবার অফার করেছিলাম আপনারাতো জানেন বিশ্বকাপের পরে। ওয়ানডে একটা খেলে ওকে শেষ করার কথা ছিল। জিম্বাবুয়ের সাথে আমরা ফাইনালও করেছিলাম এমনই কথা হয়েছিল ওর সাথে লন্ডনে। যাইহোক পরে ও বলল যে এই বিপিএল পর্যন্ত দেখতে চায় এরপর সে সিদ্ধান্ত নিবে। এখন যা জেনেছি পত্র পত্রিকার মাধ্যমে তা হল ঘটা করে অবসরে যাওয়ার ইচ্ছাই নাই ওর, মনে হচ্ছে আরকি। আমাকেতো আর বলেনি, পত্র-পত্রিকা দেখে বলছি।’

দেশ সেরা এই পেসার নিজে রাজি হলেই বিসিবি আয়োজন করবে কিছু যা এর আগে পায়নি বাংলাদেশের কোন ক্রিকেটার, ‘যাইহোক আমরা আবারও দেখবো, আমরাতো চাইবো তাঁকে একটা ভালোভাবে, খুব ভালোভাবে বিদায় দিতে। যেটা নাকি আমার মনে হয়না ওর মত আর কেউ বাংলাদেশে পেয়েছে বা পাবে অদূর ভবিষ্যতে। সুতরাং এটা আমাদের ইচ্ছে , সে যদি চায় ভালো কথা না চাইলে কিছু করার নেই।’

এদিকে গত ১০ জানুয়ারি চলতি বিপিএলে ঢাকা প্লাটুন কাপ্তান মাশরাফি নিজের অবসর প্রসঙ্গে বলেন, ‘আমার জায়গা থেকে- আপনি বলতে পারেন আমাকে রিটায়ার সবাই করিয়ে দিয়েছে। আমি নিজেও হয়তোবা ঐ জায়গায় অবস্থান করছি। আমি জাস্ট যেটা খেলছি, সেটাকেই এনজয় করছি। মাঠ থেকে রিটায়ার করবো কি করবো না সেটা এখনো সিদ্ধান্ত নিই নি। যদি ওরকম কিছু মনে হয়, ক্রিকেট বোর্ড যদি মনে করে তাহলে চিন্তাভাবনা করবো।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

‘ওপেনার’ বিড়ম্বনায় বিসিবি সভাপতি!

Read Next

রহস্য টা রহস্যই রাখলেন সাকিব

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
6
Share