প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানের সেঞ্চুরিও যে কারণে ভালো লাগলো বিজয়ের

এনামুল হক বিজয়
Vinkmag ad

টুর্নামেন্টের শুরু থেকে ভালো খেলে দুই ম্যাচ আগেই প্লে-অফ নিশ্চিত করে ঢাকা প্লাটুন। সুযোগ ছিল পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ দুইয়ে থেকে কোয়ালিফায়ার খেলার কিন্তু টানা দুই হারে এলিমিনেটর খেলতে হচ্ছে তামিম-মুমিনুলদের। গতকাল (১১ জানুয়ারি) খুলনা টাইগার্সকে ২০৬ রানের লক্ষ্য দিয়েও ৮ উইকেটে হেরে গ্রুপ পর্ব শেষ করে ঢাকা প্লাটুন। নাজমুল হোসেন শান্তর দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরিতে ম্লান হয়ে যায় মুমিনুল হক, মেহেদী হাসানের ঝড়ো ইনিংস। মূলত শান্তর দুর্দান্ত ইনিংসের পাশাপাশি কুয়াশার কারণে বল ঠিকঠাক করতে না পারাকেই দায়ী করছেন এনামুল হক বিজয়।

মুমিনুল হকের ৯১ রানের ইনিংসের সাথে মেহেদী হাসানের হার না মানা ৬৮ রানে চড়ে ২০৫ রানের সংগ্রহ দাঁড় করায় ঢাকা। মিরাজের ঝড়ো শুরুর পর শান্তর সেঞ্চুরিতে ১১ বল ও ৮ উইকেট হাতে রেখেই টেবিলের শীর্ষস্থানে খুলনা। ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা প্লাটুন ব্যাটসম্যান এনামুল হক বিজয় হারের কারণ জানাতে গিয়ে বলেন, ‘কুয়াশার একটা ব্যাপার ছিল আসলে। বোলারদের বল গ্রিপ করতে সমস্যা হচ্ছিল। বলই করা যাচ্ছিল না, দুই-তিনটা বল পরিবর্তন করা হয়েছে। এই অবস্থায় বল করা কঠিন ছিল বোলারদের জন্য। এটা একটা কারণ ছিল।’

তবে বোলারদের ব্যর্থতা এড়িয়ে যাননি বিজয়, ‘আর আমরা অবশ্যই সঠিক জায়গায় বোলিং করতে পারিনি। কিন্তু আমাদের বোলাররা পুরো টুর্নামেন্টে দারুণ বোলিং করেছে। এটাকে আমরা ইতিবাচক দিক হিসেবে নিচ্ছি। সামনে আমাদের আরও ম্যাচ আছে। এই ম্যাচগুলোর ভুল থেকে বের হয়ে এসে আমাদের ভালো কিছু করতে হবে। এটা একটা ভালো দিক, এই ম্যাচগুলো থেকে শিখে সেমিফাইনালে ভালো কিছু করতে পারব।’

প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যান হলেও বাংলাদেশি একজন সেঞ্চুরি করেছে বলে শান্তর ইনিংসে তৃপ্ত প্লাটুন ওপেনার, ‘অবশ্যই খুব ভালো একটা ইনিংস ছিল। দেখে অবশ্যই ভালো লেগেছে, বাংলাদেশি একটা ক্রিকেটার বিপিএলে সেঞ্চুরি করল, দেখে অবশ্যই ভালো লাগার মতো। উইকেটটা ভালো ছিল, ভাগ্য ভালো ছিল; সব মিলিয়ে ভালো একটা ইনিংস ছিল। শান্ত খুব ভালো খেলেছে, দেশি ব্যাটসম্যানদের সেঞ্চুরি বিপিএলে খুব একটা দেখা যায় না।’

হারা ম্যাচে ঢাকা প্লাটুনের জন্য দুঃসংবাদ আরও একটি, ক্যাচ ধরতে গিয়ে বাঁহাতের তালুতে চোট পাওয়া অধিনায়ক মাশরাফির হাতে সেলাই লেগেছে ১৪ টি, বলা যায় বিপিএলই শেষ। এদিকে চ্যাম্পিয়ন হতে হলে পরবর্তী সবগুলো ম্যাচেই জিততে হবে এনামুল, মুমিনুলদের। সব মিলিয়ে পরবর্তী ধাপটা কঠিন মানছেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান, ‘অবশ্যই মাশরাফি ভাইয়ের যেহেতু একটা বড় সেলাই পড়েছে আমার কাছে মনে হয় একটু কঠিনই হয়ে যায় ওনার জন্য খেলা।’

‘আমি নিশ্চিত না, তবে আমার কাছে মনে হয় এখানে যেহেতু ১০টার বেশি (১৪ টি) সেলাই পড়েছে, ওনার পরবর্তী ম্যাচ খেলা কঠিন হয়ে যাবে। আমাদের জন্য কঠিন। সব দলই কিন্তু দারুণ, পয়েন্ট তালিকা দেখলেই বোঝা যায়। আমার কাছে মনে হয় বড় একটা স্বপ্ন। যদি আমরা ভালোভাবে কাজে লাগাতে পারি তাহলে আমাদের জন্য কাজটা সহজ হয়ে যাবে। কিন্তু আমার কাছে মনে হয় অতো সহজ না।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

শান্তর অশান্ত হওয়ার পেছনের কারিগর খালেদ মাহমুদ সুজন

Read Next

অবসর ভেঙ্গে আবার মাঠে ফিরছেন পন্টিং, ওয়ার্ন, ওয়াটসনরা

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
7
Share