জয় দিয়ে টুর্নামেন্ট শেষ করলো রংপুর

রংপুর রেঞ্জার্স
Vinkmag ad

টুর্নামেন্ট থেকে আগেই ছিটকে যাওয়া রংপুর রেঞ্জার্সের জন্য ম্যাচটি ছিল কেবলই নিয়মরক্ষার। অন্যদিকে আগেই প্লে-অফ নিশ্চিত হওয়া ঢাকা প্লাটুনের জন্য শীর্ষে দুইয়ের পথটা মসৃণ করার সুযোগ। এমন ম্যাচে ১১ রানের জয় তুলে নিয়ে আক্ষেপ বাড়ালো রংপুর রেঞ্জার্স। শীর্ষ দুইয়ে জায়গা পাকা করতে ঢাকা প্লাটুনকে অপেক্ষা করতে হচ্ছে শেষ ম্যাচ পর্যন্ত।

১৫০ রানের লক্ষ্য তাড়ায় ঢাকার শুরুটাও হয় বাজে, দলীয় ৯ রানের রান আউটে কাটা পড়ে ফেরেন এনামুল হক বিজয় (৫)। মেহেদী হাসানকে নিয়ে ৩৬ রানের জুটিতে বিপর্যয় কাটানোর চেষ্টা তামিম ইকবালের। আরাফাত সানির বলে ২৪ বলে ধীরগতির ২০ রানের ইনিংস খেলে আউট হন মেহেদী, সঙ্গী তামিম ইকবালও আরও একবার ধীরগতির ইনিংস প্রদর্শন করেন। করতে পারেননি ৩৩ বলে ২ চার ১ ছক্কায় ৩৪ রানের বেশি। মাঝে ১৪ বলে ১৮ রান করে মুমিনুলও করেছেন চেষ্টা। মুমিনুল হকের বিদায়ের সময়ও ঢাকার জয়টা কঠিন মনে হচ্ছিলনা।

প্রয়োজন ছিল ৪৫ বলে ৬২ রান। তবে থিসারা পেরেরা (৮), আসিফ আলি (১) ও আরিফুল হক (১) দ্রুত ফিরে গেলে লক্ষ্যটা অসম্ভব হয়ে পড়ে প্লাটুনের জন্য। শেষ ওভারে ঢাকার প্রয়োজন ২৩ হাতে এক উইকেট। এলোমেলো নো বল-ওয়াইড, ফিল্ডিং মিসে প্রথম তিন বলেই আসে ১০ রান। তবে শেষ তিন বলে আর পেরে উঠেনি স্ট্রাইকে থাকা কাপ্তান মাশরাফি। ১২ রানে অপরাজিত থেকে কেবল হারের ব্যবধানই কমাতে পেরেছে, শাদাব খানের ব্যাট থেকে আসে ১৬ রান।

শেষ পর্যন্ত ৯ উইকেটে ১৩৮ রানে থামে ঢাকা প্লাটুন। রংপুরের হয়ে দুটি করে উইকেট শিকার জুনায়েদ খান, তাসকিন আহমেদ ও আরাফাত সানি। একটি করে নেন মুস্তাফিজুর রহমান ও লুইস গ্রেগরি। এই জয়ের ফলে প্রথম ৬ ম্যাচে মাত্র ১ জয় পাওয়া রংপুর টুর্নামেন্ট শেষ করলো ১২ ম্যাচে ৫ জয় নিয়ে। শেষদিকে জয়ের ধারায় ফেরা রংপুর শুরুটা খারাপ হওয়ার আক্ষেপ করতেই পারে।

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে রংপুর রেঞ্জার্সের হয়ে আরেক দফা ব্যর্থ হন অজি তারকা শেন ওয়াটসন। ৮ বলে ১০ রান করে ভালো কিছুর ইঙ্গিত দিয়েও ফিরেছেন প্লাটুন অধিনায়ক মাশরাফির শিকার হয়ে। ম্যাচে মাশরাফির উইকেট এই একটিই, তবে রান দেওয়ায় কৃপণতার ধারাবাহিকতা ধরে রেখেছেন আরেকবার। ৪ ওভারে খরচ করেন মাত্র ১৭ রান যেখানে ডট বলই ছিল ১৬ টি। একপাশে মাশরাফির রান চেপে রাখা অন্যদিকে নিয়মিত বিরতিতে থিসারা পেরেরা, শাদাব খান, মেহেদীরা উইকেট তুলে নিলে ৯ উইকেটে ১৪৯ রানের বেশি করতে পারেনি রংপুর রেঞ্জার্স।

ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ৩২ বলে ৫ চার ২ ছক্কায় ৪৬ রান আসে লুইস গ্রেগরির ব্যাট থেকে। আল আমিন জুনিয়র ২৪ বলে খেলেন ৩৫ রানের ইনিংস, উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান জহরুল ইসলাম অমির ব্যাট থেকে আসে ২৮ রান। শেষের দিকে বলার মত স্কোর করতে পারেনি কেউ। ২৩ রান খরচায় ৩ উইকেট তুলে নিয়ে সেরা বোলার থিসারা পেরেরা। দুইটি উইকেট শিকার শাদাব খানের, একটি করে নেন মাশরাফি ও মেহেদী হাসান।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

রংপুর রেঞ্জার্স ১৪৯/৯ (২০), ওয়াটসন ১০, নাইম ১৭, দেলপোর্ত ৬, গ্রেগরি ৪৬, আল আমিন ৩৫, জহুরুল ২৮, নাদিফ ৩*, তাসকিন ০, মুস্তাফিজ ০, সানি ০; মেহেদী ৪-০-২৯-১, মাশরাফি ৪-০-১৭-১, শাদাব ৪-০-২৫-২, পেরেরা ৩-০-২৩-৩।

ঢাকা প্লাটুন ১৩৮/৯ (২০), তামিম ৩৪, বিজয় ৫, মেহেদী ২০, মুমিনুল ১৮, পেরেরা ৮, শাদাব ১৬, আসিফ ১, আরিফুল ১, ফাহিম ৩, মাশরাফি ১২*, হাসান ০*; মুস্তাফিজ ৪-০-৩১-১, জুনায়েদ ৪-০-২২-২, তাসকিন ৪-০-২৫-২, সানি ৪-০-২৯-২, গ্রেগরি ৪-০-২৫-১।

ফলাফলঃ রংপুর রেঞ্জার্স ১১ রানে জয়ী।

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

গর্বের সাথে আক্ষেপও আছে প্রথম টেস্ট জয়ের নায়কের

Read Next

শামীমের ঝড়ো সেঞ্চুরি, টাইগার যুবাদের রানের পাহাড়

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
23
Share