টাইগারদের পেস বোলিং কোচ হতে চলেছেন গিবসন!

ওটিস গিবসন
Vinkmag ad

মাস চারেকের ব্যবধানেই নিজ দেশের বোলিং কোচ হওয়ার সুযোগ পেয়ে বাংলাদেশ দলের পেস বোলিং কোচের দায়িত্ব থেকে অব্যহতি নেন দক্ষিণ আফ্রিকান চার্ল ল্যাঙ্গেভেল্টে। তবে তার চলে যাওয়ার পর সপ্তাহ দুয়েক পার হতে চললেও টাইগারদের পেস বোলিং কোচ নিয়ে চূড়ান্ত কোন সিদ্ধান্ত আসেনি বিসিবির তরফ থেকে। মূলত বিপিএল ব্যস্ততার জন্যই জাতীয় দলের পেস বোলিং কোচের বিষয়টি কিছুটা ধীরে এগোচ্ছে।

তবে ইতোমধ্যে খবর ছড়িয়েছে কুমিল্লা ওয়ারিয়র্সের প্রধান কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে থাকা ক্যারিবিয়ান সাবেক পেসার ওটিস গিবসনে নজর রাখছে বিসিবি। বিষয়টি নিজেও স্বীকার করেছেন গিবসন।

মিরপুরে আজ (৬ জানুয়ারি) কুমিল্লা ওয়ারিয়র্সের অনুশীলন শেষে গিবসন বলেন দু পক্ষের আলোচনা চলছে তবে চূড়ান্ত হয়নি কিছুই। সুযোগ পেলে অবশ্যই বাংলাদেশের তরুণ পেসারদের শেখানোর সুযোগ লুফে নিতে চান বলেও অকপটে জানান।

সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে বাংলাদেশের বোলিং কোচ হওয়ার প্রসঙ্গ আসতেই ৫০ বছর বয়সী এই ক্যারিবিয়ান বলেন, ‘আমি জানতাম, প্রশ্নটি আসবে (কোচ ইস্যুতে)। আলোচনা চলছে, অবশ্যই চলছে। এটা আমি অস্বীকার করব না। তবে চূড়ান্ত কিছু হওয়া এখনও অনেক অনেক দূর। তবে আলোচনা চলছে।’

ইংল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, দক্ষিণ আফ্রিকার মত দলের কোচ হিসেবে কাজ করা গিবসন জানান কোচিং ভালোবাসেন। সুযোগ পেলে অবশ্যই কাজ করতে চান বাংলাদেশের পেসারদের নিয়ে, ‘দেখি কী হয়। অবশ্যই আমি ক্রিকেট ভালোবাসি ও বোলারদের কোচিং করাতে পছন্দ করি। যদি এখানে এসে কাজ করা ও তরুণ ফাস্ট বোলারদের শেখানোর সুযোগ হয়, আমি অবশ্যই সুযোগটি নিতে চাইব।’

কুমিল্লা ওয়ারিয়র্সের কোচ হওয়ার সুবাধে অনেক পেসারকেই কাছ থেকে দেখার সুযোগ হয়েছে এই অভিজ্ঞ কোচের। ক্রিকেটারদের সাথে নিজের গড়ে ওঠা সম্পর্কের কথা জানাতে গিয়ে গিবসন যোগ করেন, ‘কিছু ক্রিকেটারকে আমি এর মধ্যেই চিনতে পেরেছি। আল আমিন আছে আমাদের দলে, সে জাতীয় দলের পেসার।’

‘একটা সম্পর্ক তাই গড়ে উঠেছে। আমি নিজেও ক্রিকেটার ছিলাম, তাই ক্রিকেটারদের সঙ্গে সম্পর্ক কিভাবে গড়ে তুলতে হয়, জানা আছে আমার। এখানে এসে তাই তরুণ পেসারদের, এমনকি অভিজ্ঞদেরও কিছু শেখাতে আমার সমস্যা নেই।’

ওটিস ডেলরয় গিবসন ১৯৬৯ সালের ১৬ মার্চ বারবাডোসে জন্ম নেন। ৫০ বছর বয়সী এই ক্যারিবীয় ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে ২ টেস্ট ও ১৫ ওয়ানডে খেলেছেন। সেখানে তার উইকেট যথাক্রমে ৩ ও ৩৪। ব্যাট হাতে আন্তর্জাতিক রান- টেস্টে ৯৩, ওয়ানডেতে ১৪১।

১৯৯৯ সালের জানুয়ারিতে শেষবার আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলা গিবসন পরে যোগ দেন কোচিং পেশায়। ২০১০ থেকে ২০১৪ পর্যন্ত ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রধান কোচ ছিলেন ওটিস গিবসন। এর আগে (২০০৭-২০১০) ও পরে (২০১৫-১৭) দুই দফা ইংল্যান্ডের বোলিং কোচ হিসাবে কাজ করেছেন তিনি। ২০১৭ সালে গিবসন দক্ষিণ আফ্রিকা দলের কোচ হিসাবে দায়িত্ব নেন, যে দায়িত্ব শেষ হয় ২০১৯ সালে।

চলমান বিপিএলে গিবসন কুমিল্লা ওয়ারিয়র্সের কোচ হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

একটি টেস্ট খেলার স্বপ্ন দেখা টেইলর এখন সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক

Read Next

চাইলে গতি বাড়াতে পারবেন মুগ্ধ

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
27
Share