‘মুস্তাফিজ টপকে গেল কিনা মাথায় আনি না’

মেহেদী হাসান রানা
Vinkmag ad

বল হাতে কারিশমা দেখানো যেন থামছেই না চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স পেসার মেহেদী হাসান রানার। বল হাতে যতটা ঝড় ২২ গজে তোলেন ততটাই নিষ্প্রভ মাঠের বাইরে। খুলনা টাইগার্সের বিপক্ষে আজ (৪ জানুয়ারি) তুলে নিয়েছেন তিন উইকেট। ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠার আগেই বোল্ড করে ফিরিয়েছেন হাশিম আমলাকে, এক ম্যাচ বিরতি দিয়ে বন্ধু মুস্তাফিজকে পেছনে ফেলে আবারও সর্বোচ্চ উইকেট সংগ্রাহকের তালিকায় শীর্ষে রানা। বাড়তি কিছু নয় নিজের শক্তি জায়গা দিয়েই ঘায়েল করেন ব্যাটসম্যানকে। জানিয়েছেন প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানের নাম দেখে বল করেন না।

৮ ম্যাচে উইকেট ১৭,  আজ ৪ ওভারে ২৯ রান খরচায় তুলে নেন ৩ টি, হয়েছেন ম্যাচ সেরাও। চলতি বিপিএলে এটি তার তৃতীয় ম্যাচ সেরার পুরষ্কার। বয়সভিত্তিক থেকেই নজরে ছিলেন কিন্তু বিপিএলকে মঞ্চ হিসেবে পেয়ে কি এমন করলেন রানা যে ব্যাটসম্যান পাচ্ছেনা দিশা? স্বল্পভাষী রানার উত্তর, ‘বিপিএলের আগেও একই রকম ছিলাম। হয়তো বা তখন সেভাবে সুযোগ আসেনি। সুযোগের জন্য অপেক্ষা করছিলাম। যেটা এসেছে এর জন্য আমি প্রস্তুত ছিলাম। তাই ভালো হচ্ছে।’

মাত্র ৮ ম্যাচে ১৭ উইকেট, ঈর্ষণীয় পারফরম্যান্স বলতেই হয়। নিয়মিত ভালো বল করে পকেটে পুরছেন উইকেট, কত উইকেট পাচ্ছেন গুনছেন কি রানা? জবাবে বাঁহাতি এই পেসার বলেন, ‘আসলে উইকেট আমি গুনছি না। একেকটা ম্যাচ বাই ম্যাচ হিসেবে চিন্তা করছি। যে একেকটা ম্যাচ কিভাবে ভালো করা যায়। আমি একটা একটা ম্যাচ হিসেবে খেলছি। মুস্তাফিজ আমাকে টপকে গেল কিনা এসব আমি মাথায় আনি না।’

শুরু থেকেই ছিলেন শীর্ষে কিন্তু টানা অফ ফর্ম কাটিয়ে মুস্তাফিজ ফর্মে ফিরতেই বন্ধু মেহেদী হাসানা রানার পেছনে ছুটেছেন। গতকালকের (৩ জানুয়ারি) আগে ১৪ উইকেট নিয়ে দুজনেই ছিলেন সমানে সমান। সিলেটের বিপক্ষে দুই উইকেট নিয়ে গতকাল শীর্ষে উঠে আসেন মুস্তাফিজ, তাকে পেছনে ফেলতে অবশ্য ২৪ ঘন্টাও সময় নেয়নি রানা। খুলনা টাইগার্সের তিন ব্যাটসম্যানকে ফিরিয়ে ফের উঠে আসেন শীর্ষে।

দুই বন্ধুর এমন প্রতিযোগিতা উপভোগ করছেন কি নিজে জানতে চাইলে তরুণ এই পেসার বলেন, ‘হ্যা অবশ্যই করছি। ম্যাচ বাই ম্যাচ যেহেতু আমি উন্নতি করছি এবং বোলিং করছি তাই অবশ্যই ভালো ভবিষ্যৎ আছে ইন শা আল্লাহ।’

বিপিএলের গত মৌসুমে সিলেট সিক্সার্সের হয়ে সিলেটেই রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে চার ওভারে খরচ করেন ৫৭ রান যা ওই আসরে যৌথভাবে সবচেয়ে খরুচে বোলিংয়ের রেকর্ড ছিল। অথচ বছর ঘুরতেই একই মাঠে খেলতে নেমে ম্যাচ সেরা। মাঠে নামার আগে রানা বলছেন অতীত পরিসংখ্যান, রেকর্ড অবশ্য তার মাথায় কাজ করেনা, ‘না, পেছনে কি হয়েছে সেটা নিয়ে আমি ভাবি না। আমাকে ভবিষ্যতে কি করতে হবে এবং হবে সেটা নিয়ে আমি ভাবি।’

শুধু নিজের অতীত রেকর্ড নয় আমলাকে ফেরানোর প্রসঙ্গ উঠতেই তরুণ এই পেসার সাফ জানিয়ে দিয়েছেন প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যান ভেবে কখনোই বলে করেন না, ‘আসলে ব্যাটসম্যান যখন নামে আমি চিন্তা করি না কে আমলা, কে অন্য কেউ। আমি শুধু চিন্তা করি যে আমার স্ট্রেন্থ আছে সেই অনুযায়ী বোলিং করার। আর সেটা করেই আমি সাফল্য পাচ্ছি।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

আমলার বিপিএল অভিষেকের দিনে খুলনার বড় পরাজয়

Read Next

ক্রিকেটকে বিদায় বললেন ইরফান পাঠান

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
5
Share