ওয়াটসন ইস্যুতে সতীর্থদের ‘ইউ টার্ন’

শেন ওয়াটসন রংপুর রেঞ্জার্স
Vinkmag ad

প্রথম ৫ ম্যাচে মাত্র ১ জয় নিয়ে যখন রংপুর রেঞ্জার্স টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে যাওয়ার অপেক্ষায়, ঠিক তখনই উড়িয়ে আনা হয় অজি তারকা শেন ওয়াটসনকে। সাবেক অজি অলরাউন্ডারকে দেওয়া হয় অধিনায়কত্বের ভারও। ব্যাট হাতে প্রথম চার ম্যাচে ছিলেন নিজের ছায়া হয়ে তবে দল জিতেছে দুটিতে।

গতকাল (৩ জানুয়ারি) সিলেটকে হারানো ম্যাচে কথা বলেছে তার ব্যাটও। ফলে শেষ ৫ ম্যাচেই রংপুর পেয়েছে তিন জয়, টিকে রইলো প্লে-অফ স্বপ্ন। ম্যাচ শেষে জহরুল ইসলাম অমি বলছেন দলের চেহারাটা বদলে দিয়েছেন ওয়াটসনই, তাকে অনুসরণ করার পরামর্শ দিয়েছেন দলের তরুণদের।

অথচ আগের ম্যাচ শেষে জহুরুলের সতীর্থ আল আমিন জুনিয়র আকারে ইঙ্গিতে বলেছিলেন, ওয়াটসন দলের চাপ বাড়াচ্ছেন।

ওয়াটসনের কাছ থেকে প্রতাশামত কিচু না পাওয়া দলকে চাপে ফেলছে উল্লেখ করে অলরাউন্ডার আল আমিন জুনিয়র বলেছিলেন, ‘প্রত্যেকটি দলে যদি এমন কেউ (ওয়াটসনের মতো) থাকে তাহলে তাঁর কাছ থেকে বড় কিছু আশা করি আমরা। হয়তো বা হচ্ছে না, আশা করি সামনে থেকে হবে। আর প্রেশার বলতে ভালো পারফর্ম করা তো অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ। সেই হিসেবে ওনার ব্যাটিংটা আমাদের দরকার।’

ঠিক এখন যে সমীকরণে দাঁড়িয়ে রংপুর তাতে প্লে-অফ খেলার স্বপ্ন বাস্তবেই বেশ কঠিন। কেবল কাগজে কলমে টিকে থাকলো হিসাব নিকাশ, তাকিয়ে থাকতে হবে অন্য দলগুলোর জয় পরাজয়ের দিকে, নিজেদের জিততে হবে বাকি দুই ম্যাচেই। উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান জহরুল ইসলাম বলছেন সে বাস্তবতার কথাই। প্লে-অফ নয় বরং লম্বা সময়ের অপেক্ষা শেষে পাওয়া জয়গুলো উপভোগ করছেন তারা।

জয়ের পর আনন্দের মুহূর্ত পাচ্ছিলনা রংপুর রেঞ্জার্স ক্রিকেটাররা। ওয়াটসনের মন্ত্রেই দল গুছিয়ে উঠেছে বলে জানান ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। প্রথম চার ম্যাচে রান না পেলেও ওয়াটসন ছিলেন ইতিবাচক, ড্রেসিং রুম সামলেছেন দুর্দান্তভাবে জানালেন জহরুল। শুধু মাঠের অধিনায়কত্ব নয় মাঠের বাইরের আচরণ, বাচনভঙ্গি থেকে শেখার আছে বেশ বলছেন রংপুর রেঞ্জার্স এই ব্যাটসম্যান। গতকাল তার ৩৬ বলে করা ৬৮ রানের ইনিংসে ভর করেই সিলেটকে ২০০ রানের লক্ষ্য ছুঁড়ে দেয় রংপুর।

ওয়াটসনকে প্রশংসায় ভাসিয়ে জহরুল বলেন, ‘কিছু ঘাটতি ছিল (শুরুর দিকে টানা হারের কারণ)। টিমের কম্বিনেশ হচ্ছিলো না। ওয়াটসন নিজেও ফর্মে ছিল না। তবে ওর ইনভলভমেন্ট অনেক বেশি ছিল দলের সঙ্গে। টিমটাকে সে একটা শেপে দাঁড় করিয়েছে।’

‘ওর ক্যাপ্টেন্সি না শুধু। অফ দ্যা ফিল্ড বা অন দ্যা ফিল্ডে ওর কাছ থেকে অনেক শেখার আছে। সে ৩৬০/৭০ টি ম্যাচ খেলেছে। সব বড় লেভেলের ম্যাচ খেলেছে। শুধু ক্যাপ্টেন্সি না, আমাদের সাথে যে টিম মিটিং বা চলা ফেরা ছোটো খাটো টিপস দেয়া এগুলো থেকে অনেক কিছু শেখা যায়। গত চারটা ম্যাচে রান করেনি কিন্তু ওর চলাফেরায় কোনো পরিবর্তন আসেনি।’

মোহাম্মদ নাইম শেখের মত তরুণ ক্রিকেটারদের জন্য অমির পরামর্শ যেন অনুসরণ করে ওয়াটসনদের, ‘ওর বডি ল্যাঙ্গুয়েজ দেখে অনেক কিছু শেখা যায়। ওরা বড় প্লেয়ার হয়েছে এসব গুণের জন্য। আমাদের নাইম খুব ভালো খেলছে। ধারাবাহিক পারফরম্যান্স করছে। এরা বড় প্লেয়ার হওয়ার সম্ভাবনা রাখে। যদি এদের (ওয়াটসন) কাছ থেকে ভালো কিছু নিতে পারে। আশা করি ওদেরও এমন একটি ক্যারিয়ার হতে পারে।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

রশিদ লতিফের বিশ্বাস: সৌরভ সাহায্য করবেন

Read Next

প্লে অফ চিন্তা নেই, জয় উপভোগ করছে রংপুর

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
7
Share