এক হারেই মোমেন্টাম নিয়ে শঙ্কিত সোহান!

নুরুল হাসান সোহান ডেভিড মালান চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স কুমিল্লা ওয়ারিয়র্স
Vinkmag ad

আজ মিরপুরে কুমিল্লা ওয়ারিয়র্স বনাম চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স ম্যাচটি চলতি বিপিএলে নিশ্চিতভাবেই এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি রোমাঞ্চ ছড়ানো ম্যাচ। উড়ন্ত সূচনার পরেও চট্টগ্রাম পায়নি বড় সংগ্রহ, মাঝারি লক্ষ্য তাড়ায় ক্ষণে ক্ষণে রঙ বদলেছে কুমিল্লার ইনিংসে। হাতের মুঠোয় চলে আসা ম্যাচটিই কঠিন উত্তেজনা উপহার দিয়ে জিতে নেয় ডেভিড মালানের কুমিল্লা।

শেষ ওভারে ইংলিশ পেসার প্লাংকেটকে টানা দুই বাউন্ডারিতে ম্যাচে বাড়তি রোমাঞ্চ জাগান কুমিল্লার ব্যাটসম্যান আবু হায়দার রনি। এরপরও শেষ বলে তিন রান দরকার এমন সমীকরণে ক্রিজে এসেই চার হাঁকিয়ে ম্যাচ জেতান মুজিব উর রহমান। ৮ ম্যাচে ৬ জয় নিয়ে টেবিলের শীর্ষ দল চট্টগ্রাম হেরেছে প্লে-অফ স্বপ্ন বাঁচাতে জয় প্রয়োজন এমন পরিস্থিতিতে থাকা কুমিল্লার কাছে। হারের পর চট্টগ্রামের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহান বলছেন এই হার পরের ম্যাচে জয় পেতে মোমেন্টাম নষ্ট করে দিয়েছে।

‘এই রকম টুর্নামেন্টে মোমেন্টামটা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আমার কাছে মনে হয় শেষ কয়েকটা ম্যাচে আমাদের মোমেন্টাম ভালো ছিল তাই জিতছি। এই ম্যাচটা জিতে গেলে হয়তো মোমেন্টামটা আমাদের দিকেই থাকত। পরবর্তী ম্যাচের মোমেন্টাম আমাদের দিকে আনতে হয়তো একটু কষ্ট হবে। মোমেন্টাম এক সঙ্গে থাকলে একটানা আমরা অনেকগুলা ম্যাচ জিতেছি। আমার কাছে মনে হয় এসব টুর্নামেন্টে মোমেন্টামটা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের কঠোর পরিশ্রম করতে হবে যাতে পরবর্তী ম্যাচে ঘুরে দাঁড়াতে পারি।’

শেষ ২ ওভারে কুমিল্লার প্রয়োজন ছিল ২৪ রান। ৩ ওভারে মাত্র ৯ রান খরচ করে ১ উইকেট তুলে নেওয়া রায়ান বার্লের ছিল আরও এক ওভার বাকি। ১৯তম ওভারটি কাকে দিয়ে করানো হবে এ নিয়ে বেশ দোটানায় পড়ে যায় চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স, মাঠের বাইরে থেকেও আসতে থাকে নানা নির্দেশনা। শেষ পর্যন্ত ২ ওভারে ২৪ রান দেওয়া রানার উপরই ভরসা রাখে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। ১৯তম ওভারের আগে নিজেদের মধ্যে হওয়া আলোচনা নিয়ে জানতে চাইলে সোহান বলেন,  ‘ক্লোজ একটা ম্যাচ হচ্ছে, সবাই একটু রোমাঞ্চিত ছিল। আর রায়ান বার্লও আগের ৩টা ওভার ভালো বল করেছে। পরে ওর সঙ্গে কথা বলেই রানাকে দেয়া হয়েছে, যেহেতু আমাদের হাতে অপশন ছিল।’

প্লাংকেটের মত বিশ্বকাপজয়ী দলের বোলারকে লোয়ার মিডল অর্ডারের আবু হায়দার রনি বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ম্যাচের মোড় নিজেদের দিকে নিয়ে নেন। অবাক হয়েছেন কিনা জানতে চাইলে উইকেট রক্ষক এই ব্যাটসম্যান বলেন, ‘আসলে ক্রিকেটে এমন হতেই পারে। প্লাংকেট প্রথম দুই ওভারে ভালো বোলিং করেছে। শেষ দুই ওভারে হয়তো একটু রান দিয়ে দিছে। একদিন খারাপ সময় যেতেই পারে। এখান থেকে যে ভুল হয়েছে সেটা ঠিক করে সামনে যে কয়টা ম্যাচ আছে গ্রুপ পর্যায়ে ওইগুলো যেন ভালো করে খেলতে পারি এটাই চেষ্টা থাকবে।’

শেষ ওভারে কাউ কর্ণার দিয়ে প্লাংকেটকে চার মেরে ম্যাচে উত্তেজনা ফিরিয়ে আনা আবু হায়দার রনিকে ফিরে যেতে হত নাসুম আহমেদ ক্যাচটি লুফে নিতে পারলে। তবে ক্রিকেটে এমনটা হতে পারে বলেই মনে করেন সোহান, ‘আসলে সত্যি কথা বলতে এইরকম সময়ে ক্যাচ মিস হতেই পারে। ক্যাচটা ধরতে পারলে হয়তো চার রান কম হতো। এটা ক্রিকেটে হয়, যে কারো ক্ষেত্রেই হতে পারে। ও চেষ্টাও করেছে ভালো, ক্যাচটা কঠিনও ছিল। আমরা খারাপ জায়গা থেকে ভালো জায়গায় এসেছি, কিন্তু শেষ পর্যন্ত হেরেছি।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

ব্যর্থতার দায় কোন কিছুর ওপর চাপাচ্ছেন না শান্ত

Read Next

প্লাংকেটকে আক্রমণের রহস্য জানালেন আবু হায়দার রনি

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
9
Share