‘ইমরুল ব্রো’ সম্বোধনকে ভালোবাসা হিসেবে নিচ্ছেন ইমরুল কায়েস

ইমরুল কায়েস
Vinkmag ad

প্রায় ৯ বছরের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার ইমরুল কায়েসের। কখনোই ঠিক ওভাবে থিতু হতে পারেননি দলে। আসা যাওয়ার মিছিলে থাকা ইমরুল কায়েস ঘরোয়াতে দুর্দান্ত ফর্মে থেকে ডাক পেলেও সেটা টেনে নিতে পারেন না জাতীয় দলে। জাতীয় লিগে বেশ ধারাবাহিক পারফর্ম করে জায়গা পান সবশেষ ভারত সফরের টেস্ট দলেও, দুই টেস্টের চার ইনিংসে সাকূল্যে রান ২১! অন্য অনেকেই বাজে ফর্মে থাকলেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঝড়টা ইমরুল কায়েসকেই বেশি সামলাতে হয়। ট্রল করে তাকে নিয়ে ফেসবুকে খোলা হয়েছে অনেক পেজ, গ্রুপও।

যেসব পেজের বদলৌতে ইমরুল কায়েসকে মজা করে বিশেষ একটি নামেও ডাকা হচ্ছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চোখ বুলালেই দেখা যায় ‘ইমরুল ব্রো’ ট্যাগ সেঁটে দেওয়া হয়েছে বাঁহাতি এই ওপেনারের গায়ে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ছেড়ে বাস্তব জীবনেও আড্ডার ছলে ইমরুল প্রসঙ্গ আসতেই যেন ইমরুল কায়েস সাগর নয় ‘ইমরুল ব্রো’ নামেই বেশি পরিচিত হয়ে গেছেন চলতি বিপিএলে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের হয়ে খেলা এই ব্যাটসম্যানের।

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ইনজুরিতে চট্টগ্রামের অধিনায়কত্ব সামলাচ্ছেন বেশ ভালোভাবেই। ব্যাট হাতে ধারাবাহিক পারফরম্যান্সে দলকে এনে দিচ্ছেন নিয়মিত সাফল্য, সাথে যোগ হয়েছে বুদ্ধিদীপ্ত অধিনায়কত্ব। আজ (২৭ ডিসেম্বর) ঢাকা প্লাটুনকে তার ৫৪ রানের ইনিংসে ভর করেই ৬ উইকেটে হারায় চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স।

প্লে-অফ অনেকটা নিশ্চিত করে ফেলা ম্যাচের পর সংবাদ সম্মেলনে এসে নানা কথার ফাঁকে তাকে নিয়ে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হওয়া ট্রল নিয়েও মতামত ব্যক্ত করেন ইমরুল কায়েস।

ট্রল করে ‘ইমরুল ব্রো’ বলে ডাকাকে নিজে কীভাবে দেখেন জানতে চাইলে উত্তরে ইমরুল কায়েস বলেন বিদ্রুপকে দেখেন ভালোবাসা হিসেবে, ‘কেউ যদি আমাকে ‘ইমরুল ব্রো’ ডেকে মজা পায়, আমার কোন আফসোস নাই। আমাকে ভালোবেসে ডাকছে, সমস্যা কী?’


এদিকে ভারতের বিপক্ষে টেস্টে নাজুক পারফরম্যান্সের সাথে গায়ে লেগে যাওয়া ‘টি-টোয়েন্টি খেলতে পারেনা’ তকমা। বিপিএলে অসাধারণ ফর্মের পর নিজেকে টি-টোয়েন্টির জন্য উপযুক্ত বলে ভাবছেন কিনা এমন প্রশ্নে এই বাঁহাতি ওপেনার বলছেন,

‘ভাই দেখেন, আমি বলবো না যে আমি টি-টোয়েন্টি খেলবো, এই করবো ওই করবো। এসব আমি বলতে চাইনা। একজন ক্রিকেটার হিসেবে আমি যেখানেই খেলি, জাতীয় দল, বিপিএল, প্রিমিয়ার লিগ সব জায়গায় রান করার চেষ্টা করি।’

‘কখনো সফল হই, কখনো হইনা। একজন ক্রিকেটারের সবসময় ভালো যায়না। আমি আসলে ওইভাবে চিন্তা করছিনা যে এখানে ভালো করলে জাতীয় দলে সুযোগ পাবো। আমি আমার কাজটা করে যাই, এরপর টিম ম্যানেজমেন্ট যদি মনে করে উনারা যদি ভাবে এখন আমাকে দিয়ে হবে তখন নিলে নিবে, নাহয় আমার কোন সমস্যা নাই।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

হাসির ছলে মাশরাফির কণ্ঠে অভিমানী সুর

Read Next

নিও ক্রিকেট ক্লাবের জাঁকজমকপূর্ণ পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠান

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
5
Share