লিটনের ব্যাটে খুলনাকে সহজেই হারালো রাজশাহী

লিটন দাস আফিফ হোসেন ধ্রুব
Vinkmag ad

পঞ্চম দিনে এসে অবশেষে ভাটা পড়েছে চট্টগ্রামের রান বন্যায়, প্রথম চারদিনেই দলীয় সংগ্রহ দুইশ অতিক্রম করে পাঁচবার। দিনের প্রথম খেলায় কুমিল্লার দেওয়া ১৬১ রান তাড়া করতে ঢাকা প্লাটুনকে খেলতে হয়েছে ১৯.৫ ওভার পর্যন্ত। দ্বিতীয় ম্যাচে আগে ব্যাট করা খুলনা টাইগার্স করতে পারেনি ১৪৫ রানের বেশি, যদিও সহজেই লক্ষ্য তাড়া করে জিতে নেয় রাজশাহী। লিটন দাসের ফিফটিতে রাজশাহী পায় ৭ উইকেটের জয়।

১৪৬ রানের সহজ লক্ষ্য তাড়ায় শুরুটাও দুর্দান্ত করে রাজশাহী রয়্যালস। ৮.৫ ওভার স্থায়ী উদ্বোধনী জুটিতে লিটন দাস ও আফিফ হোসেন যোগ করেন ৭৫ রান। ২২ রান করে আফিফ রান আউটে কাটা পড়লে ভাঙে জুটি। ১৮ বলে ৩ চারে ইনিংসটি সাজান আফিফ। অন্যপ্রান্তে লিটন দাস অবশ্য তুলে নেন ফিফটি, ৩৮ বলে ফিফটিতে পৌঁছানো লিটন ৪৪ বলে ৫ চার ২ ছক্কায় ৫৮ রান করে ফেরেন পেসার শহীদুলের বলে।

লিটনের গড়ে দেওয়া ভিত্তিকে সামনে টেনে নিয়ে সহজেই দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন রাসেল,মালিকরা। যদিও দুজনের জুটি হয়নি বেশি লম্বা (২৩)। ১৯ বলে ১৬ রান করে মালিক ফিরে গেলেও রবি বোপারাকে নিয়ে আর কোন বিপর্যয় ঘটতে না দিয়ে দলকে ৭ উইকেটের জয় এনে দেন আন্দ্রে রাসেল। ১২ বল হাতে রেখে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেওয়ার পথে রাসেল খেলেন ১৯ বলে ৩ চার ১ ছক্কায় ২৮ রানের অপরাজিত ইনিংস। বোপারা অপরাজিত ছিলেন ৮ বলে ১৩ রানে। খুলনার হয়ে একটি করে উইকেট শিকার ফ্রাইলিঙ্ক ও শহীদুল ইসলামের।

নিয়ম হয়ে যাওয়া টস জিতে ফিল্ডিং নেওয়া তত্ব অনুসরণ করে রাজশাহী রয়্যালস। টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ৬০ রান তুলতেই বিদায় নেয় খুলনার ৫ ব্যাটসম্যান। প্রথম তিন ম্যাচে দলটির টপ অর্ডার যতটা সফল ছিল শেষ দুই ম্যাচে ততটাই ব্যর্থ। ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই রহমান উল্লাহ গুরবাজকে দিয়ে শুরু। আন্দ্রে রাসেলের প্রথম ওভারেই ফিরে যান দুই ওপেনার গুরবাজ ও মেহেদী হাসান মিরাজ। ফলে ব্যর্থ হয় মিরাজকে উপরে তুলে আনার পরিকল্পনা, খালি হাতেই ফেরেন মিরাজ।

দুর্দান্ত ফর্ম আজও টেনে নিচ্ছিলেন রাইলি রুশো, ২৪ বলে ৫ চার ১ ছক্কায় ৩৫ রান করে সে ইঙ্গিত দিচ্ছিলেনও। ফিরেছেন আফিফ হোসেন বলে ফরহাদ রেজাকে ক্যাচ দিয়ে। ব্যর্থ হয়েছেন দলপতি মুশফিকুর রহিমও (১), টানা চতুর্থ ম্যাচ দুই অঙ্ক ছোঁয়ার আগে সাজঘরে ফিরেন টপ অর্ডার থেকে অবনতি হয়ে মিডল অর্ডারে আসা নাজমুল হোসেন শান্ত। টুর্নামেন্টে দ্বিতীয় ডাক মেরে ফিরেছেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান।

এরপর শামসুর রহমান ও রবি ফ্রাইলিঙ্কের ৬৭ রানের জুটিতে লড়াইয়ের পুঁজি মেলে খুলনা টাইগার্সের। ৪৬ বলে ৪ চার ১ ছক্কায় ৫৫ রান করেন শামসুর রহমান। আন্দ্রে রাসেলের বলে শামসুর রহমান আফিফ হোসেনের ক্যাচে পরিণত হলে ভাঙে জুটি। এরপর লেজের ব্যাটসম্যানরাও ফ্রাইলিঙ্ককে দিতে পারেনি যোগ্য সঙ্গ। ফ্রাইলিঙ্ক ফিরেছেন ২৬ বলে ২ চার ১ ছক্কায় ৩১ রান করেন ফ্রাইলিঙ্ক। খুলনা থামে ৯ উইকেটে ১৪৫ রানে। ৪ উইকেট নিয়ে রাজশাহীর সেরা বোলার আন্দ্রে রাসেল, দুটি করে উইকেট নেন কামরুল ইসলাম রাব্বি, রবি বোপারা, একটি শিকার আফিফ হোসেনের।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ
খুলনা টাইগার্স ১৪৫/৯(২০ ওভার)
গুরবাজ ৪, মিরাজ ০, রুশো ৩৫, মুশফিক ১, শান্ত ০, শামসুর রহমান ৫৫, ফ্রাইলিঙ্ক ৩১, শহীদুল ৬, আমির ৩, শফিউল ২*, তানভির ০*; রাসেল ৪-০-৩৭-৪, ইরফান ৩-০-১২-০, রাব্বি ৩-০-২৩-২, রাহী ১-০-১২-০, আফিফ ২-০-১১-১, কাপালি ৩-০-২০-০, ফরহাদ রেজা ১-০-৮-০, বোপারা ৩-০-২০-২।
রাজশাহী রয়্যালস ১৪৯/৩ (১৮ ওভার)
লিটন দাস ৫৮, আফিফ ২২, মালিক ১৬, রাসেল ২৮*, বোপারা ১৩*; আমির ৪-০-২৮৯-০, ফ্রাইলিঙ্ক ৪-০-৩৯-১, শফিউল ইসলাম ২-০-২৭-০, তানভির ৪-০-২৬-০, মিরাজ ১-০-৫-০, শহীদুল ৩-০-২৩-১।

ফলঃ রাজশাহী রয়্যালস ১২ বল ও ৭ উইকেট হাতে রেখে জয়ী।

ম্যাচ সেরাঃ আন্দ্রে রাসেল (রাজশাহী রয়্যালস)

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

রাজাপাকশের কাছে এটা ‘স্রষ্টা প্রদত্ত সুযোগ’

Read Next

বাংলাদেশ-আয়ারল্যান্ড সিরিজের সূচি প্রকাশ

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
9
Share