রানার জন্য মঞ্জুরুল ইসলামের যত পরামর্শ

মঞ্জুরুল ইসলাম চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স
Vinkmag ad

টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই পেশাদারিত্বের ছাপ রেখে দল গুছায় চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। মাঠের লড়াই শুরু হতে প্রমানও মিলে তার, ৭ ম্যাচে ৫ জয়ে পয়েন্ট টেবিলে আছে শীর্ষেই। ঢাকা পর্বে তিন ম্যাচে দুই জয়ের পর চট্টগ্রামে টানা তিন জয়, হেরেছে কেবল শেষটিতে। টুর্নামেন্টে আগের ৪ ম্যাচেই হারা রংপুর রুখে দেয় চট্টগ্রামের টানা জয়। ৬ উইকেটে হারা ম্যাচে উইকেট বিবেচনায় স্বল্প পুঁজি নিয়েও প্রায় জিতে যাচ্ছিলো চট্টগ্রাম, তবে থামতে হয়েছে লুইস গ্রেগরির অসাধারণ এক ইনিংসে। তার দেওয়া ক্যাচ মিসকেই হারের কারণ হিসেবে দেখছেন দলটির বোলিং কোচ।

চট্টগ্রাম পর্বে চ্যালেঞ্জার্সরা খেলেছে টানা চারদিনে চারটি ম্যাচ। তবে কি টানা খেলার ক্লান্তি ঝেঁকে বসেছিল চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স ক্রিকেটারদের? এমন প্রশ্নে বোলিং কোচ মঞ্জুরুল ইসলাম বলেন, ‘না তেমন কিছুনা। আমরা ম্যাচ জিতিনাই তার মানে টানা খেলা সমস্যা করছে এমন না। সূচীতো সবার জন্যই, কেউ আগে করবে কেউ পরে করবে। ফলে টানা খেলা সমস্যা হচ্ছে এরকম কিছুনা।’

৩৬ রানে তিন উইকেট হারান রংপুরকে কেবল টেনেই তুলেননি বলের সাথে পাল্লা দিয়ে প্রয়োজনীয় রান নিয়েছেন ঝড়ো গতিতে। লুইস গ্রেগরির ৩৭ বলে অপরাজিত ৭৬ রানেই চট্টগ্রাম ছিটকে যায় ম্যাচ থেকে। বিশেষ করে ব্যক্তিগত ২৬ রানে মিস করা তার ক্যাচেই হয়েছে সর্বনাশ বলছেন চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স বোলিং কোচ, ‘হ্যা ওই ইনিংসের কারণেই তারা ম্যাচটা জিতেছে, সে যেভাবে ব্যাট করেছে বেশ দুর্দান্ত।’

‘ঠিক জায়গায় বল করতে পারলে হয়তো তাকে ঠেকানো যেত। ২৬ রানে সে অবশ্য একটা সুযোগ দিয়েছিল ওই ক্যাচটা যদি আমরা ধরতে পারতাম তাহলে দৃশ্যটা হয়তো বদলে যেতেও পারতো। ওই ক্যাচের মূল্যই আমাদের দিতে হয়েছে। সেই পুরোনো কথা ক্যাচ মিসতো ম্যাচ মিস।’

বাংলাদেশের জার্সিতে টেস্ট, ওয়ানডে খেলেছে বাঁহাতি পেসার মঞ্জুরুল ইসলাম, এখন কোচ হিসেবে আছেন মেহেদী হাসান রানাদের দেখভালের দায়িত্বে। নিজের অভিজ্ঞতা থেকে কেমন দেখছেন রানাকে আর পরামর্শই কি থাকবে জানতে চাইলে ৪০ বছর বয়সী মঞ্জুরুল জানান এখনই উচ্ছ্বাস নয়, সময় দিয়ে সব ফরম্যাটের জন্য প্রস্তুত করতে হবে রানাকে। তবে দেখছেন বেশ সম্ভাবনা, ‘তাকে আরও খেলতে দিতে হবে, অনেক খেলতে দিতে হবে।’

‘টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট যেরকম ফরম্যাটের সেটা দিয়ে যদি আপনি লঙ্গার ভার্সন ক্রিকেট চিন্তা করেন সেক্ষেত্রে কিন্তু আমার মনে হয় একটু বোকামিই হবে। টি-টোয়েন্টি ফরম্যাট, সীমিত ওভার (ওয়ানডে) এরপর লঙ্গার ভার্সন ক্রিকেট তিনটি ফরম্যাটের ফ্লেভার যদি সে ঠিকভাবে নিতে পারে তাহলে বুঝা যাবে সে কি করে বা কীভাবে এগুচ্ছে। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট বিবেচনায় সে বেশ ভালো, সম্ভাবনাময়। তবে যেটা বললাম এ জায়গাগুলোতে তাকে মানিয়ে নিতে হবে। এজন্য তাকে সময়ও দিতে হবে।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

অধিনায়ক বদলে ভাগ্য ফিরল রংপুরের

Read Next

সাগরিকার উইকেট বাড়ি নিয়ে যেতে চান ফ্লেচার!

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
6
Share