খুলনার দাপটে উড়ে গেল রংপুর

খুলনা টাইগার্স রংপুর রেঞ্জার্স
Vinkmag ad

হার দিয়ে বিপিএল শুরু করা রংপুর রেঞ্জার্স চট্টগ্রামে এসেও আঁটকে ছিল হারের বৃত্তে। চতুর্থ ম্যাচে এসে প্রথম জয়ের লক্ষ্যে মাঠে নেমে আজ (২০ ডিসেম্বর) খুলনা টাইগার্সের বিপক্ষে আগে ব্যাট করে চট্টগ্রামের দুর্দান্ত ব্যাটিং উইকেটেও বড় সংগ্রহ পায়নি। টস হেরে ব্যাট করে ৯ উইকেটে পায় ১৩৭ রানের সংগ্রহ। সহজ লক্ষ্য সহজেই জিতে নেয় খুলনা টাইগার্স, ৮ উইকেট ও ৪৫ বল হাতে রেখেই টানা তৃতীয় জয় তুলে নেয় মুশফিকুর রহিমের দল।

লক্ষ্য তাড়ায় নেমে আবারও ব্যর্থ নাজমুল হোসেন শান্ত, শান্তকে এক পাশে রেখেই মাত্র ২.২ ওভারের জুটিতে ২৪ রান তুলে ফেলেন আফগান ওপেনার রহমানউল্লাহ গুরবাজ। ৬ বলে ১ রান করে শান্ত ফেরেন মুস্তাফিজের বলে। শান্ত বিদায় নিলে গুরবাজকে নিয়ে প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান রাইলি রুশো রীতিমত ঝড় তোলেন, ২৬ বল স্থায়ী জুটিতে দুজনে যোগ করেন ৬১ রান।

আগের ম্যাচে অভিষেকে নজর কাড়া পেসার মুগ্ধের বলে গুরবাজ মুস্তাফিজকে ক্যাচ দিলে ভাঙে জুটি। সাজঘরের ফেরার আগে তরুণ এই ব্যাটসম্যান ২২ বলে ১ চার ৪ ছক্কায় খেলেন ৩৭ রানের ইনিংস। অন্যদিকে রুশো ছিলেন আরও আক্রমণাত্মক, জুটিতে যোগ করেন ১৩ বলে ৪ চার ২ ছক্কায় ৩৫ রান। মুশফিকুর রহিমকে নিয়ে বাকি পথ পাড়ি দেন অনায়েসেই। ৮.৪ ওভারে ১০০ পার করা খুলনা দুজনের অবিচ্ছেদ্য ৫৩ রানের জুটিতে ম্যাচ জিতে নেয় ১২.৩ ওভারে।

২৩ বলে ফিফটিতে পৌঁছানো রুশো শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন ৩১ বলে ৯ চার ও ২ ছক্কায় ৬৬ রানে। মুশফিকুর রহিম অপরাজিত থাকেন ১৭ রানে। টানা চার হারে পয়েন্ট টেবিলের তলানিতেই আছে রংপুর, অন্যদিকে টানা তিন জয়ে খুলনার অবস্থান দুইয়ে। যদিও তালিকার শীর্ষে থাকা চট্টগ্রাম খেলেছে পাঁচটি ম্যাচ।

এর আগে রংপুরের দুই ওপেনার মোহাম্মদ শেহজাদ ও নাইম শেখ পায় ভালো শুরুই। তবে ৭ বলে ১১ রান করে শেহজাদ মোহাম্মদ আমিরের শিকার হলে জুটিতে যোগ হয়নি ২০ রানের বেশি। এরপর দ্রুতই ফিরে যান আজই প্রথম খেলতে নামা প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান দেলপোর্ত (৪)। নাদিফ চৌধুরী ফেরেন ৯ বলে শূন্য রানের দৃষ্টিকটু ইনিংস খেলে। ৪০ রানে তিন উইকেট হারিয়ে ফেলা রংপুরকে নাইম একাই টানতে থাকেন, মাত্র ৩২ বলে ৫ চার ২ ছক্কায় ৪৯ রানে কাটা পড়েন রান আউটে।

তার বিদায়ের পর ৪ রান করে ফিরে যান অধিনায়ক মোহাম্মদ নবি। লুইস গ্রেগরিকে নিয়ে ৩৮ রানের জুটিতে কিছুটা স্বস্তি ফেরান ফজলে মাহমুদ রাব্বি। শুরুতে ধীরে খেলা ফজলে মাহমদু পরে অবশ্য কিছুটা খোলস ছাড়েন। ৩৩ বলে ২ চার ২ ছক্কায় ৪২ করে স্টাম্পের পেছনে মুশফিককে ক্যাচ দেন শফিউল ইসলামের বলে। শেষদিকে লুইস গ্রেগরি কিছুটা চেষ্টা করেন তবে বড় সংগ্রহের জন্য তা ছিলনা যথেষ্ট। লেজের ব্যাটসম্যানরাও আসা যাওয়ার মিছিলেই ছিলেন।

ইনিংসের শেষ ওভারে পেসার শহিদুল ইসলামের তোপে রংপুর হারায় তিন উইকেট। তাসকিন আহমেদ রান আউট হলেও, মুস্তাফিজ ও লুইস গ্রেগরি ফেরেন শহিদুলের শিকার হয়ে। ২০ বলে ২ চারে গ্রেগরি করতে পারেন ২২ রান। ৯ উইকেটে ১৩৭ রানেই থামতে হয় রংপুর রেঞ্জার্সকে। ২১ রান খরচায় ৩ উইকেট নিয়ে খুলনার সেরা বোলার শফিউল ইসলাম। শহিদুল ও মোহাম্মদ আমিরের শিকার দুটি করে।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

রংপুর রেঞ্জার্স ১৩৭/৯ (২০), শেহজাদ ১১, নাইম ৪৯, দেলপোর্ত ৪, নাদিফ ০, রাব্বি ৪২, নবি ৪, গ্রেগরি ২২, তাসকিন ২, মুস্তাফিজ ০, সানি ১*; আমির ৪-০-২৪-২, শফিউল ৪-১-২১-৩, শহিদুল ৩-০-৩২-২।

খুলনা টাইগার্স ১৩৮/২ (১২.৩), গুরবাজ ৩৭, শান্ত ১, রুশো ৬৬*, মুশফিক ১৭*; মুস্তাফিজ ২-০-১৮-১, মুগ্ধ ৩-০-২৮-১।

ফলাফলঃ খুলনা টাইগার্স ৮ উইকেটে জয়ী (৪৫ বল হাতে রেখে)।

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

বিপিএল মাতাতে আসছেন শেন ওয়াটসন

Read Next

এখনো সঙ্গ দেওয়ার ভূমিকাতেই এনামুল হক বিজয়!

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
20
Share