৩৩৫ করার পথে ২১ কিলোমিটার দৌড়েছেন ওয়ার্নার!

ডেভিড ওয়ার্নার

পাকিস্তানের বিপক্ষে রেকর্ড গড়া ট্রিপল সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে গত দুদিন ক্রিকেটে বেশ বড় আলোচনার নাম ডেভিড ওয়ার্নার। অজি দলপতি টিম পেইন ইনিংস ঘোষণা না করলে হয়তো ব্রায়ান লারার ৪০০ রানে রেকর্ডই ভেঙে দিতে পারতেন বাঁহাতি এই ওপেনার, এ নিয়েও হচ্ছে নানা বিতর্ক। তবে সব ছাপিয়ে ২২ গজে নিজের ফিটনেস দিয়ে নজর কেড়েছেন ওয়ার্নার।

নিশ্চিতভাবেই ৯ ঘন্টার বেশি সময় , ১২৭ ওভার ক্রিজে থাকা চাট্টিখানি কথা নয়। স্যার ডন ব্র্যাডম্যানের রেকর্ড ভাঙার পথে ওয়ার্নার বল খেলেছেন ৪১৮ টি, ৩৩৫ রানের ইনিংসে বাউন্ডারি থেকে আসে মাত্র ১৬২ রান। অর্থাৎ বাকি ১৭৩ রান ওয়ার্নার নিয়েছেন প্রান্ত বদল করে, এছাড়া বেশিরভাগ চারের ক্ষেত্রেই বল বাউন্ডারি লাইন স্পর্শের আগ পর্যন্ত দৌড়েছেন ৩৩ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান।

হিসাব বলছে ৩৩৫ রানের ইনিংসটি খেলার পথে বাঁহাতি এই ওপেনার দৌড়েছেন ২০.৯২১ কিলোমিটার, যেখানে ম্যারাথনের দুরত্বই ৪২ কিলোমিটার। আগের ম্যাচেও ওয়ার্নার খেলেছেন দুর্দান্ত এক ইনিংস, হতাশায় মোড়ানো অ্যাশেজ শেষে ব্রিসবেনে খেলেন ১৫৪ রানের ইনিংস। নিজের দুর্দান্ত ফিটনেসের জন্য স্পষ্টভাবেই ধন্যবাদ দিয়েছেন স্ত্রী ক্যানডিস ওয়ার্নারকে। ক্যানডিস ছাড়াও ওয়ার্নার কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রতিও, ক্রিকেটারদের ফিটনেস সচেতনতা বাড়াতে তারা হাতে নিয়েছে নানা কার্যক্রম।

মাঠে বসে ওয়ার্নারের অসাধারণ এই ইনিংসটির সাক্ষী ছিলেন তার স্ত্রীও। স্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে গিয়ে ওয়ার্নার বলেন, ‘আমি আমার ফিটনেস নিয়ে গর্বিত। যদি আমি খেলা থেকেও দূরে থাকি কিংবা নেটে না যাই তখন আমি ট্রেডমিলে থাকি কিংবা বাইরে দৌড়াতে বের হই। আমার স্ত্রী আমাকে সবসময় বাইরে নিয়ে যায় এবং নিশ্চিত করে যে আমি হাঁটছি।’

‘আমি প্রতিদিন খেলার আগে এখানে হাঁটি, আর বাইরে থাকতে আমারও বেশ ভালো লাগে। আমাদের তিনটি সন্তান আছে সুতরাং আমাদের খুব তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে উঠতে হয়। কিন্তু আমরা এটা নিশ্চিত করি যে আমাদের ফিটনেস ঠিক রাখতে সময় বের করতে হবে এবং আমি এটি খুব উপভোগ করি। আর এর পেছনে প্রচুর পরিশ্রম জড়িয়ে আছে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

ওয়ার্নারকে টেনে ইমামকে খোঁচা দিল আইসল্যান্ড ক্রিকেট

Read Next

নিজে না পারলেও রোহিতে বাজি ধরলেন ওয়ার্নার

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
36
Share