প্রয়োজনে স্ট্রাইক রেট ১৪০ রাখার চেষ্টা করবেন বিজয়

এনামুল হক বিজয়

বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে ১৩০ এর বেশি স্ট্রাইক রেট মাত্র ১০ জনের, নূন্যতম ১০ ইনিংস হিসেব করলে সংখ্যাটা দাঁড়ায় কেবল দুইয়ে! ২৫ ইনিংস ব্যাট করা লিটন দাস রান করেছেন ১৩৮.০৫ ও ৩৯ ইনিংসে ব্যাট হাতে নামা মাশরাফি ১৩৬.১০ স্ট্রাইক রেটে। যা স্পষ্ট ইঙ্গিত দেয় টি-টোয়েন্টি মানের ব্যাটসম্যানের কতটা অভাব বাংলাদেশে। এ নিয়ে নির্বাচকদেরও নেই চিন্তার কমতি।

অস্ট্রেলিয়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ সামনে রেখে নির্বাচকরা কড়া নজর রাখবেন আসন্ন বিপিএলে এমনটা জানিয়েছেন নির্বাচক হাবিবুল বাশার। ১৩০-৪০ স্ট্রাইক রেটে ব্যাট করতে পারা ব্যাটসম্যান না থাকার আক্ষেপ করে জাতীয় দলের এই নির্বাচক গতকাল (৩০ নভেম্বর) বলেন, ‘আমাদের টি-টোয়েন্টি দলটাতে সেরকম টি-টোয়েন্টি স্পেশালিষ্ট নাই যারা স্ট্রাইক রেট ১৩০ বা ১৪০ প্লাসে রান করতে পারে। এ কারণেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ মাথায় রেখে বিপিএলের দিকে থাকিয়ে থাকবো। যে সমস্ত তরুণ ক্রিকেটার আছে তারা কেমন করছে খুব ক্লোজলি ফলো করব।’

একদিন পরই ঢাকা প্লাটুনের হয়ে অনুশীলন শুরু করে দেওয়া এনামুল হক বিজয় সাংবাদিকদের জানান নির্বাচকদের নজরে থাকার জন্যে ও দলের প্রয়োজনে ১৪০ স্ট্রাইক রেটে ব্যাট করার সাধ্যমত চেষ্টা করবেন। যদিও আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি পরিসংখ্যান বলছে দ্রুত গতিতে রান তোলাতে খুব একটা পটু নন ডানহাতি এই ওপেনার। ১৩ ইনিংসে ব্যাট করে রান করেছেন ১১৭.৯৪ স্ট্রাইক রেটে যদিও দেশের সর্বোচ্চ আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি রান সংগ্রাহক তামিম ইকবালের চাইতেও বিজয়ের স্ট্রাইক রেটই বেশি।

আসন্ন বিপিএলে নিজের পরিকল্পনা জানাতে গিয়ে এনামুল হক বিজয় বলেন, ‘ক্রিকেটারদের ব্যক্তিগতভাবে অনেক পরিকল্পনা থাকে। কে কীভাবে খেলবে, কত ভালো খেলবে, দলের জন্য কতটুকু অবদান রাখতে পারবে। অবশ্যই পরিকল্পনা থাকবে। আমাদের সবারই। আমার নিজেরও আছে। দলের জয়ে কীভাবে অবদান রাখব। আসলে বিপিএল দিয়েই আমার ক্যারিয়ারের যাত্রা শুরু হয়েছিল। এখানে ভালো পারফর্ম করে আমি যেন আবারো জাতীয় দলে জায়গা করে নিতে পারি। এটা আমার জন্য ভালো মঞ্চ। শুধু আমার জন্য না। প্রত্যেকটা ক্রিকেটারের জন্যই এটা দারুণ একটি মঞ্চ।’

বিপিএলের ৬ আসরের মধ্যে বিজয় তিনবারই খেলেছেন চ্যাম্পিয়ন দলের হয়ে, যার মধ্যে সবশেষ কুমিল্লার হয়ে খেলেছেন তামিম ইকবালের সাথেই। এ প্রসঙ্গ টেনে বিজয় দলের প্রয়োজনে দ্রুতগতিতে রান তুলতে চান বলে যোগ করেন, ‘আমার ক্ষেত্রে বিশেষ ভালো লাগা কাজ করে বিপিএলকে ঘিরে। কেননা পাঁচ-ছয়টা বিপিএলের মধ্যে তিনটা বিপিএলে আমি চ্যাম্পিয়ন দলে ছিলাম। সেভাবে অবদান রাখতে পেরেছি। এটা পারফর্ম করার জন্য দারুণ জায়গা আমার জন্যে। চেষ্টা করব এখানে আরও বেশি ভালো করার। দল জেতাতে যদি ১৪০ স্ট্রাইক রেট রাখতে হয়, তাহলে সেটা রাখার চেষ্টা করব।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

বিপিএলে দল পেলেন মোহাম্মদ মুসা

Read Next

বিপিএলে দল পেলেন ‘হ্যাটট্রিকম্যান’ মোহাম্মদ সামি

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
33
Share